fbpx
চিকিৎসানতুন খবর

কিডনিতে পাথর? বাড়িতে তুলসি পাতা থাকলে চিন্তার কোনো কারণ নেই। নিয়ম মেনে পান করুন তুলসি পাতার রস।

আমাদের প্রত্যেকের বাড়িতে কমবেশি তুলসী গাছ সকলেরই আছে। আর এই তুলসী পাতার রয়েছে অনেক ঔষধী গুণ; যার ফলে আমাদের দৈনন্দিন জীবনে অনেক কাজে আসে তুলসী পাতা। আমাদের প্রায় দিনই কোনো না কোনো ছোটখাটো অসুখ লেগে থাকে শরীরের মধ্যে। তাই যদি বাড়িতে তুলসী পাতা থাকে তাহলে সেই সব রোগ নিরাময় খুব সহজেই করা যায়। আসুন এ রকমই কয়েকটি রোগের কথা আপনাদের সামনে তুলে ধরি যেগুলি তুলসী পাতার মাধ্যমে খুব সহজে নিরাময় হয়ে যায়।

১) গলায় ব্যাথা:- এই শীতকালে আমাদের প্রত্যেকেরই কম বেশী গলায় ব্যথা হয়ে থাকে। একটু ঠান্ডা লাগলে প্রথমে আমাদের গলায় ব্যথা শুরু হয়ে যায়। তাই এই গলা ব্যথা থেকে বাঁচার জন্য তুলসী পাতা অত্যন্ত উপকারী। সামান্য গরম জলে কয়েকটি তুলসী পাতা ফেলে দিন; তারপর কিছুক্ষণ পর পর সেই জলটি পান করুন দেখবেন আপনার গলায় ব্যথা খুব সহজেই নিরাময় হয়ে গিয়েছে।

২) সর্দি কাশি:- শীতকাল হোক বা গ্রীষ্ম-বর্ষা যে কোনো ঋতুতে এই সর্দি কাশি আমাদের চরম ভাবে শারীরিক কষ্ট দেয়। প্রায় সময়ই আমাদের এই সর্দি লেগে থাকে। তাই এই সর্দির হাত থেকে বাঁচার জন্য তুলসী পাতা হচ্ছে অত্যন্ত উপকারী। কয়েকটি তুলসী পাতা মুখের মধ্যে রেখে কিছুক্ষণ চিবিয়ে সেই রসটি পান করে নিন। দেখবেন সহজেই সর্দি থেকে আপনি নিরাপদ দূরত্ব বজায় রেখেছেন।

৩) ত্বকের সমস্যা:- অনেকের মুখেই দেখি অত্যন্ত বন বের হয়। আর বন বেরোনোর জন্য তাদের মুখের সৌন্দর্য নষ্ট হয়ে যায়। তাদের জানিয়ে রাখি তুলসী পাতা যদি লাগানো হয় আপনাদের বন-তে তাহলে সহজেই আপনাদের বন চলে যাবে। এবং সেইসাথে মুখের সমস্ত রকম দাগ এলার্জি পর্যন্ত মিলিয়ে যাবে এই তুলসী পাতার কারণে।

৪) কিডনির সমস্যা:- কিডনির যে কোন সমস্যা নিরাময়ে তুলসী পাতা এক বিরাট ভূমিকা গ্রহণ করেন। কয়েকটি তুলসী পাতা নিয়ে সেগুলি রস করে যদি কোন ব্যক্তি প্রতিদিন একগ্লাস করে খেতে পারেন তাহলে তার কিডনিতে কোনো দিন স্টোন হবে না। অর্থাৎ কিডনিতে স্টোন হওয়ার সম্ভাবনা প্রায় শেষ হয়ে যাবে তুলসী পাতার রসের গুনের কারনে।
এছাড়াও যদি কোন ব্যক্তির কিডনিতে স্টোন জমে গিয়েছে। তাহলে উনার সেই স্টোনকে নিরাময়ের ক্ষেত্রে বিশেষ ভূমিকা গ্রহণ করবে তুলসী পাতা। যদি সেই ব্যাক্তি টানা ছয় মাস তুলসী পাতার রস নিয়মিত ভাবে সেবন করতে পারেন তাহলে তার সেই স্টোন মূত্রের মাধ্যমে দেহের বাইরে বেরিয়ে আসবে এটা বৈজ্ঞানিকভাবে প্রমাণিত।
#অগ্নিপুত্র

Open

Close