ফের একবার ত্রিপুরায় বিশাল মার্জিনে উত্তীর্ণ হল বিজেপি। বিজেপির জয়ের অনুপাত ৬৬:১ হ্যা এটাই ফলাফল। মানে বিজেপির পাওয়া আসন সংখ্যা ৬৬ আর প্রতিপক্ষ বামপন্থী সিপিএমের প্রাপ্ত আসন সংখ্যা মাত্র ১। অবাক হলেও পরিসংখ্যানটি বাস্তব। পানি সাগর পুরসভায় যে ১১টি আসনে ভোট হয়েছিল,তার মধ্যে থেকে মাত্র একটি আসন জিতে নিজেদের অস্তিত্ব ধরে রেখেছে বামপন্থীরা।

অন্যদিকে আগরতলা মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশনের ৪টি ওয়ার্ডেই হোয়াইটওয়াশ করেছে বিজেপি। ২০১৯ এ লোকসভা নির্বাচনের পূর্বে এই ফলাফল বিজেপি শিবিরে স্বস্থির পরিবেশ গড়ে তুলেছে।

তবে এখন ফলপ্রকাশের পর বামপন্থী সিপিএম এবং বিজেপি বিরোধী দলগুলি বিজেপির সমালোচনা করছে।ত্রিপুরার কিছু বামপন্থী সমর্থক বিজেপিকে সন্ত্রাসবাদী দল বলেছেন নিজেদের ব্যর্থতা ঢাকতে।

বিজেপি কিন্তু সমালোচনায় না গিয়ে ত্রিপুরার জনগনকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন। এই উপনির্বাচনে ৮১ শতাংশেরও বেশি ভোট পড়েছে ।
হরিয়ানার পুরভোট ,গুজরাটের বিধানসভা ভোট, এবং ত্রিপুরার উপনির্বাচনের ফলাফল মধ্যপ্রদেশ,রাজস্থান,ও ছত্তিশগড়ের ফলাফলের ফলে সৃষ্ট হওয়া হতাশা কাটিয়ে দিয়ে মিডিয়ার সমস্ত প্রশ্নের জবাব দিয়েছে।

আর এই জয় লোকসভা নির্বাচনের আগে বিজেপি কে যে বাড়তি অক্সিজেন দেবে সেটা বলাই বাহুল্য। কারণ এই জয় সাধারণ মানুষের জয় দেশের জয়। জয় লাভের পর এমনই মন্তব্য করলেন ত্রিপুরা বিজেপি।