in , , ,

বিগ্রেডের দিনেই তৃণমূলে ভাঙ্গন। তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগদান করলেন শতাধিক কর্মীসমর্থক।

বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় 2019 লোকসভা নির্বাচনের আগে নিজের ক্ষমতা জাহির করবার জন্য 19 শে জানুয়ারী বিগ্রেড সভা ডাকেন। এবং সেই সাথে তিনি দেশের সমস্ত বড় বড় মোদি বিরোধী নেতাকে হাজির করেন এই সভায়। কিন্তু এত কিছু আয়োজন করার পরেও পুরোপুরিভাবে সফল হয়নি এই সভা। সভা মঞ্চের বেশিরভাগ স্থানীয় এইদিন ফাঁকা থেকে গিয়েছিল, মানুষের ভিড় সেরকম ভাবে চোখে পড়েনি। এর থেকে বোঝা যাচ্ছে তৃণমূল এর জনপ্রিয়তায় এই রাজ্যে দিনের পর দিন হ্রাস পাচ্ছে। এবং বিজেপি দিনের পর দিন জনপ্রিয় দল হিসাবে আত্মপ্রকাশ করেছে পশ্চিমবঙ্গে।

এইদিন বিগ্রেড মঞ্চ থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যখন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ তুলে আক্রমণ করে যাচ্ছেন বিজেপি দল কে। সেই সময় পুরুলিয়া জেলার তৃণমূলের কোমর ভেঙে দিলেন রাজ্য বিজেপি।

এই দিন বিজেপি নেতা কুরবান আলীর হাত ধরে পুরুলিয়া জেলায় তৃণমূল ত্যাগ করে বিজেপিতে যোগদান করলেন 37 টি পরিবার। তারা প্রত্যেকেই এদিন বিজেপিতে যোগদান করে তৃণমূলের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছেন। তারা জানিয়েছেন আমরা চরম অত্যাচারী হচ্ছিছিলাম তৃণমূলের দুর্নীতির কাছে। এই জন্যই আমরা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে বিজেপিতে যোগদান করলাম। ভবিষ্যতে দেশের হয়ে কাজ করার জন্যই বিজেপি কে বেঁছে নিয়েছি। আর এর ফলে এই মুহূর্তে পুরুলিয়াতে তৃণমূল কংগ্রেস চরম দুর্বল হয়ে গেল। সেই সাথে বিজেপির শক্তি বহুগুণ বেড়ে গেল।
#অগ্নিপুত্র

What do you think?

0 points
Upvote Downvote

হাইকোর্টের রায় ফের একবার দিলীপ ঘোষের পক্ষে। দিলীপ ঘোষের মুখের হাসি দেখে হতাশ বিরোধীরা।

মা এর সাথে সময় কাটালেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। দেশ এবং পরিবারের একসাথে সেবা করে চলেছেন ভারতমাতার বীর সন্তান মোদীজি।