২২ দিন ধরে নিখোঁজ ১৩ বছরের নাবালিকা! তৃণমূলের কাউন্সিলর আর ৫ মুসলিম যুবকের বিরুদ্ধে অভিযোগ পরিবারের

২২ দিন ধরে খোঁজ নেই মেয়ের। পুলিশের কাছে অভিযোগ করেও মিলছে না সহযোগিতা। কিশোরীর বাড়ি ফিরে আসার অপেক্ষায় দিন গুনছে তাঁর পরিবার। এমনকি স্থানীয় তৃণমূল কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের অভিযোগ তুলেছে নির্যাতিতার পরিবার। ১৩ বছরের ওই নাবালিকা মালদহের ২৮ নম্বর ওয়ার্ডের শকুন্তলা পার্কের বাসিন্দা।

নির্যাতিতার বাবা জানান, ফেব্রুয়ারি মাসের ৮ তারিখ বিকেল চারটে থেকে নিখোঁজ তাঁর মেয়ে। এলাকায় তন্য তন্য করে খোঁজার পরেও হদিশ না মিললে মালদহের ইংরেজবাজার থানায় অভিযোগ দায়ের করেন নিখোঁজ কিশোরীর বাবা। তিনি জানান, অভিযোগ করার পর থেকে কোনও পদক্ষেপ নেয়নি পুলিশ। কিশোরীর বাবা জানান, ‘আমার মেয়ের নিখোঁজ হওয়ার পরের দিন জানতে পারি যে, এলাকার পাঁচ যুবক আকবর শেখ, সুলতান শেখ, ছোটু শেখ, আসগর শেখ আর মনু শেখ মিলে আমার মেয়েকে তুলে নিয়ে গিয়েছে।”

নাবালিকার বাবা অভিযোগ করে বলেন, ‘আমি জানি এই ঘটনার পিছনে ২৮ নম্বর ওয়ার্ডের তৃণমূল কাউন্সিলরও রয়েছেন। অভিযুক্ত যুবকদের আমাদের পাড়ায় আনাগোনা ছিল। আমি বারণ করেছিলাম। এরপর কাউন্সিলরের গ্যাং আমাদের বাড়িতে হামলা করেছিল। ওঁরা আমাকে হুমকি দিয়ে বলে গেছিল যে, মেয়েকে এলাকার থেকে দূরে কোথাও বিয়ে দিয়ে দিতে।”

নাবালিকার বাবা জানান, আমি এই বিষয়ে অনেকবার থানায় অভিযোগ জানিয়েছি। কিন্তু পুলিশ আমাদের দিকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেয়নি। এরপর আমরা সোমবার রাতে মালদহরে ফোয়াড়া মোড়ে অনশনে বসি। নির্যাতিতার বাবা বলেন, ‘আমাদের মেয়ে আদৌ বেঁচে আছে কি না জানিনা। ২২ দিন হয়ে গেছে। মেয়ের কোনও খোঁজ নেই। শুনলাম কাউন্সিলর বিভিন্ন জায়গায় গিয়ে বলছে পুলিশ কী করে সেটা দেখব।” কিশোরীর বাবা তাঁর মেয়েকে ফেরৎ পাওয়ার সাথে সাথে অভিযুক্তদের উপযুক্ত শাস্তির দাবি করেছে।

আরেকদিকে, স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব এই ঘটনাকে বিজেপির নাটক বলে আখ্যা দিয়েছেন। যদিও নির্যাতিতার পরিবারের পাশে দাঁড়িয়েছে বজরং দলের সদস্যরা।