খেতে বসে ভাত কম নিয়ে মাংস বেশি খাওয়ায় বরপক্ষকে উত্তম মধ্যম ধোলাই কন্যাপক্ষের, আহত ৩

বিয়ে বাড়িতে গিয়ে বর কনেকে দেখা হোক বা না হোক, খাবারের মেনুর দিকে ঢুঁ মারতেই বেশি পছন্দ করেন অনেকে। আবার অনেক সময় দেখা যায়, বিয়ে বাড়ি গেছেন, অথচ বর কনের মুখই দেখেননি, খাবারের স্টলেই ঘুরে বেড়াচ্ছেন। তবে এবার বিয়ে বাড়িতেই বেশি মাংস খাওয়ার অপরাধে, বরযাত্রীদের পেটালো কনে পক্ষ। যদিও এই ঘটনায় কোনপক্ষই পুলিশের দারস্থ হয়নি।

শুনে অবাক হচ্ছেন, বাস্তবে ঠিক এমনই ঘটনা ঘটেছে বাংলাদেশের (bangladesh) চুয়াডাঙা সদর উপজেলার বদরগঞ্জ দশনিপাড়ায়। রবিবার সেখানে ছিল সবুজ নামে এক যুবকের সঙ্গে সুমি খাতুন নামে এক যুবতীর বিবাহ অনুষ্ঠান। আর সেখানেই ঘটে এই বিপত্তি।

সূত্রের খবর, বিয়ের অনুষ্ঠান শেষে শুরু হয় খাওয়া দাওয়া পর্ব। আর সেখানেই ভাত না খেয়ে বেশি মাংস খাওয়ায়, বরযাত্রীর উপর চড়াও হয় কনেপক্ষরা। অভিযোগ প্রথমে হাতাহাতি দিয়ে শুরু হলেও, পরবর্তীতে লাঠি নিয়ে বরযাত্রীর ওপর হামলা চালায় কনেপক্ষরা।

এই ঘটনায় বরপক্ষ জানিয়েছে, খেতে বসে বরযাত্রীরা বেশি মাংস চাইলে, তা দিতে অস্বীকার করে কনেপক্ষ। আর তারপর তাঁরা লাঠি নিয়ে চড়াও হয় তাঁদের উপর। যার ফলে শাহ জামাল, ফারুক হোসেন ও আবদুর রহিম নামে ৩ ব্যক্তি গুরুতর আহত হন। বাকি দুজনকে চিকিৎসার পর ছেড়ে দেওয়া হলেও, শাহ জামাল চুয়াডাঙা সদর হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে।

অন্যদিকে এই বিষয়ে কনেপক্ষ জানিয়েছে, খেতে বসে প্রথম থেকেই ভাত কম খেয়ে বেশি বেশি মাংস চাইতে থাকে বরপক্ষ। তাঁদের ইচ্ছানুযায়ী মাংস দেওয়ার পর তা শেষ হয়ে যাওয়ার পরও আরও ব্যবস্থা করা হয়। কিন্তু এরই মধ্যে তাঁরা কনেপক্ষের সঙ্গে অভদ্র আচরণ করতে শুরু করে।

Related Articles