TMC নেতাদের স্বাগত জানানোর আলিপুর জেলের রং নীল-সাদা করা হয়েছে: বাবুল সুপ্রিয়।

রাজনৈতিক দৃষ্টিকোন থেকে পশ্চিমবঙ্গ এমন একটা রাজ্য যেখানে রাজনৈতিক আক্রমন, কটাক্ষ লেগেই থাকে। বর্তমান পরিস্থিতিতে পশ্চিমবঙ্গে শাসনকারী তৃণমূল কংগ্রেসের সবথেকে বড়ো বিরোধী দল হিসেবে উঠে এসেছে বিজেপি। তাই এখন পশ্চিমবঙ্গে তৃণমূল বনাম বিজেপির রাজনৈতিক লড়াই তীব্ররূপ ধারণ করেছে।  কেন্দ্রীয়মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয় সম্প্রতি মমতা ব্যানার্জীকে কটাক্ষ করে নীল সাদা রংয়ের প্রসঙ্গ টেনেছেন। আলিপুর জেলের রঙ TMC নেতাদের স্বাগত জানানোর জন্য করা হয়েছে বলে মন্তব্য করেন বাবুল সুপ্রিয়।

আসানসোলের সাংসদ এবং কেন্দ্রীয়মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয় (Babul Supriyo) বলেছেন, দিদি কলকাতার আলিপুর জেলকে উনার পার্টির রং এ
সাজিয়েছে। আলিপুর জেলকে নীল সাদা রং করার কারণ হিসেবে তৃণমূলকে হাস্যকরভাবে কটাক্ষ করেন বাবুল সুপ্রিয়। বাবুল সুপ্রিয় বলেন, সম্ভবত মনে করা হচ্ছে যে আলিপুর জেল পরবর্তীকালে তৃণমূলের পার্টি কার্যালয় হবে। আসলে তৃণমূলের দুর্নীতি সব ফাঁস হলে সকলে জেলে যাবে, সেই ইঙ্গিত তুলেই বাবুল সুপ্রিয় মমতা ব্যানার্জীকে আক্রমন করেন।

বাবুল সুপ্রিয় বলেন, আমি আলিপুর অঞ্চল থেকে ভ্রমণ করছিলাম। হাস্যকরভাবে, দিদি আলিপুর জেলকে নীল ও সাদা রঙ করেছেন। আমরা সন্দেহ করি যে তারা ইতিমধ্যে জানে যে আলিপুর জেল TMC এর অফিসিয়াল অফিস হতে চলেছে। তারা সবাই কারাগারে স্থানান্তরিত হতে চলেছে।  মমতা ব্যানার্জী রাজীব কুমারের জন্য ধর্ণায় বসেছিলেন। তার উপরেও মন্তব্য করেন আসানসোলের সাংসদ বাবুল সুপ্রিয়। CBI রাজীব কুমারকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে চেয়েছিল কিন্তু মমতা রাজীব কুমারের বাড়ির সামনে ধর্ণায় বসে গেছিলেন। যার জন্য উনি মুখ্যমন্ত্রী পদের অসম্মান করেন বলে মন্তব্য করেন বাবুল সুপ্রিয়।

Related Articles