ভারতের সাথেই আছি, চীন আর পাকিস্তানের মুখে ঝামা ঘষে জানালো বাংলাদেশ

সামনে থেকে মুখ মিষ্টি এবং পেছন থেকে ছুরি মারার কুশলতার জন্য বরাবরের জন্য কুখ্যাত জিনপিং-এর দেশ চীন (China)। বহু ছোট ছোট দেশকে ঋণের জালে ফাঁসিয়ে তাঁদের সর্ব শান্ত করেছে চীন। আন্তর্জাতিক মহলে যেভাবে চীনের প্রতি অন্যান্য দেশগুলোর সচেতনতা বেড়েছে, তাতে এবার ছোট দেশগুলো চীনের জালে আর ফাঁসতে চাইছে না।

বাংলাদেশকে (Bangladesh) বাগে আনতে গিয়ে বেগ পেতে হচ্ছে চীনা রাষ্ট্রপতি জিনপিংকে। ভারত (India) বিরোধী মনোভাব বাংলাদেশের মধ্যে ঢুকিয়েও বিশেষ সুবিধা ভাল করতে পারল না ড্রাগন। করোনা ভাইরাসের ভ্যাকসিন বিষয়ক অনুমোদন সম্পর্কে চীনের এখনও সংশয়ে। তবে এরই মধ্যে ভারতের দিকে ঝুঁকছে বাংলাদেশ।

বর্তমানে বাংলাদেশ সফরে রয়েছেন ভারতের বিদেশ সচিব হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা। এরই মধ্যে আবার শোনা যাচ্ছে, অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের টিকা উৎপাদনের বিষয়ে ভারতের সাথে যুক্ত হতে চাইছে বাংলাদেশ।

করোনা টিকা নিয়ে আলোচনা করবে দুই দেশ
ভারতের বিদেশ সচিব হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা বাংলাদেশ পৌঁছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার (Sheikh Hasina) সঙ্গে বিভিন্ন বিষয়ে বৈঠক করেন। সেই বৈঠকে করোনা ভাইরাসের টিকা সংক্রান্ত বিষয় নিয়েও আলোচনা হয়। আবার, বুধবারও করোনা টিকা নিয়ে আলোচনা হবে বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন।

ভারতের দিকে ঝুঁকছে বাংলাদেশ
সিনোভ্যাক বায়োটেক লিমিটেড বাংলাদেশেও তাদের প্রস্তুত করা টিকার তৃতীয় ধাপের পরীক্ষা করতে উদ্যত হয়েছিল। সেইমত বাংলাদেশ মেডিকেল রিসার্চ কাউন্সিল, বিএমআরসি গত ১৮ জুলাই এই টিকার পরীক্ষায় অনুমোদনও দেয়। কিন্তু চীনের এই টিকা পরীক্ষা নিয়ে সমস্যা দেখা দেওয়ায়, বাংলাদেশ বর্তমানে ভারতের দিকে এগোচ্ছে।

সংশয়ে ভারত
এদিকে আবার ধারণা করা হচ্ছে, বাংলাদেশ চীনের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা বাড়ানোয়, ভারতের জন্য তা চিন্তার বিষয় হয়ে দাঁড়ায়। তাই এই পরিস্থিতিতে হর্ষবর্ধন শ্রিংলার বাংলাদেশ সরফ বলে মনে করা হচ্ছে। বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাত করার পাশাপাশি বিদেশমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন ও বিদেশ প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলমের সঙ্গে দেখা করবেন হর্ষবর্ধন শ্রিংলা। সেইসঙ্গে করোনা পরিস্থিতি এবং টিকা নিয়েও আলোচনা করা হবে বলে জানা গিয়েছে।