অজানা তথ্য

বাংলাদেশকে যাতে ভারতের মধ্যে না আনা হয়, ভয়ে মোদিকে চিঠি বাংলাদেশ প্রধানমন্ত্রী হাসিনার

মাই ইন্ডিয়া ডেস্কঃ কাশ্মীরে 370 এবং 35 A বাতিল করা হলো এবং এক নতুন ইতিহাস তৈরী হলো যেখানে সম্পূর্ণরূপে ভারতের সংবিধান লাগু হলো । এর ফলে অবশ্যই একটা ভয় এবং সন্ত্রাসের পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে পাকিস্তানে যেখানে ভারতের পরবর্তী টার্গেট হলো পাকিস্তান অধিকৃত কাশ্মীর এবং সেটা খুব ভালোভাবেই পাকিস্তান জানে যার ফলে তারা ভয় পাচ্ছে যে ভারত আগামী দিনে সেখানে আক্রমণ না করে দেয় ।

এদিকে এসব চলতে চলতে অপরদিকে নিজেদেরকে আগে থেকে বাঁচাতে মরিয়া বাংলাদেশ , অবশ্যই বাংলাদেশ ভারতের একটি অংশ তাই ভারত যদি এখন ভাবে যে বাংলাদেশকে পুনরায় অধিগ্রহণ করা হবে সে ক্ষেত্রে বাংলাদেশ সমস্যায় পড়তে পারে এবং তার জন্য তড়িঘড়ি ভারতের প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি পাঠালেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং তিনি চিঠিতে অনুুরোধ করলেন ভারত যাতে কোন ভাবেই বাংলাদেশের উপর আক্রমণ না করে , বাংলাদেশে অধিগ্রহণ করার চেষ্টা না করে এবং তার জন্য তিনি অনুরোধ করলেন ।

যদিও বাংলাদেশের এই মুহূর্তে ভয় পাওয়ার কোন কারণ নেই কারণ বাংলাদেশে কোন ভাবেই ভারতের সঙ্গে বিরোধিতা করে না এবং বাংলাদেশ ভারতের একটি খুবই ভালো প্রতিবেশী দেশ, গরু পাচার বাদে । এবং সেই চিঠির পরিবর্ত হিসেবে মোদি বাংলাদেশকে জানিয়ে দিলেন পরিস্কার ভাবে যে বাংলাদেশ সব সময় ভারতের একটি প্রতিবেশী দেশ এবং ভারতের ছত্রছায়ায় সে এভাবেই থাকবে ভবিষ্যতে তবে পাকিস্তান সম্পর্কে মোদী কোন উক্তি করেননি এটা থেকে এটা পরিষ্কার যে পাকিস্তান সম্পর্কে কিছু একটা তো তার মাথায় রয়েছে এবং তিনি আবারও কিছু অবশ্যই করতে চলেছেন পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ।

এবং সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া একটি পোস্টে বলা হচ্ছে ” এই মুহূর্তে কাশ্মীরে জমি কেনার জন্য ছোটাছুটি করবেন না হতে পারে লাহোরে আরো সস্তায় পেয়ে যেতে পারেন কিছুদিন পর “। অনেকের মতে এটাই নাকি প্রধানমন্ত্রীর মোদির পরবর্তী লক্ষ্য যেখানে পাকিস্তানকে আরো কোণঠাসা করে দেওয়াটাই তার মূল লক্ষ্য । যদিও এই খবর আমরা যাচাই করে দেখিনি। তবুও এই খবর সোশ্যাল মিডিয়ায় খুব ভাইরাল হচ্ছে। খবরের সত্যতা আমাদের পক্ষে যাচাই করা সম্ভব হয়ে ওঠেনি। 

Close