মোদীকে ঢুকতে দেওয়া হবেনা দেশে! দিল্লী হিংসার প্রতিবাদে মোদী বিরোধিতায় কট্টরপন্থীরা

0
131

ভারতে আক্রান্ত হচ্ছেন সে দেশের সংখ্যা মুসলমানরা। দিল্লিতে গোষ্ঠী সংঘর্ষের প্রতিবাদ সমাবেশ থেকে এমনই আওয়াজ উঠল। পূর্ব ঘোষিত কর্মসূচি মেনেই শুক্রবার বিশেষ নমাজের পর বিক্ষোভ সমাবেশ হল ঢাকায়। বাংলাদেশের বিভিন্ন ইসলামিক সংগঠন এই সমাবেশে অংশ নেয়।পরিস্থিতি যাতে উত্তপ্ত না হয়, তার জন্য আগে থেকেই ঢাকার বায়তুল মোকাররম মসজিদ এলাকায় মোতায়েন করা হয় বিরাট পুলিশ বাহিনি। পাশাপাশি ভারতীয় দূতাবাসের নিরাপত্তা বাড়িয়ে দেওয়া হয়।

বাংলাদেশের জাতীয় মসজিদ হল বায়তুল মোকাররম। ঢাকার এই মসজিদ থেকেই বিভিন্ন সময়ে মুসলিম সংগঠনগুলি তাদের দাবি নিয়ে মিছিল ও সমাবেশ করে থাকে। বৃহস্পতিবার হেফাজতে ইসলাম সহ বিভিন্ন মুসলিম সংগঠনের নেতৃত্ব একযোগে জানিয়েছিলেন, ভারতের রাজধানী দিল্লিতে যেভাবে মুসলিমদের উপর হামলা হয়েছে। তার প্রতিবাদে শুক্রবার জুম্মার নমাজের পর বিক্ষোভ সমাবেশ হবে। সেই বিক্ষোভ সমাবেশ থেকে মুজিব বর্ষের অনুষ্ঠানে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে আমন্ত্রণ জানানোর সমালোচনা করেন বক্তারা। মোদীকে বাংলাদেশে ঢুকতে দেয়া হবে না বলেও ঘোষণা করা হয়।

ঢাকা বিমানবন্দর ঘেরাওয়ের ঘোষণা দেন ইসলামি দলের নেতৃত্ব। এদিকে মার্চ মাসেই শুরু বাংলাদেশের জাতির পিতা শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশচবর্ষ অনুষ্ঠান। ১৭ মার্চ থেকে ২০২১ সালের ২৬ মার্চ পর্যন্ত এই বর্ষ উদ্‌যাপন করা হবে। ১৯২০ সালের ১৭ মার্চ জন্ম হয়েছিল শেখ মুজিবুর রহমানের। এই অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ সরকার আমন্ত্রণ জানিয়েছে ভারতের প্রধানমন্ত্রী সহ অন্যান্যদের।

তালিকায় মোদী, প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়, পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, কংগ্রেস শীর্ষ নেত্রী সোনিয়া গান্ধী রয়েছেন। বায়তুল মোকাররম মসজিদের বিক্ষোভ সমাবেশে মুসলিম সমগঠনগুলির নেতৃত্বরা বলেছেন, ভারতের সাম্প্রদায়িক মোদি সরকার সংখ্যালঘু মুসলিমদের ওপর নির্মম নির্যাতন চালাচ্ছে। সমাবেশ থেকে আন্তর্জাতিক মুসলিম সম্প্রদায়কে ভারতের মুসলমানের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানান বক্তারা।