in

মুসলিম বহুল এলাকা গুলোতেও মোদীর জয়জয়কার, ৫০ শতাংশেরও বেশি আসন বিজেপির দখলে

ভারতীয় জনতা পার্টি (Bharatiya Janata Party) এবার লোকসভা নির্বাচনে গত বারের তুলনায় অনেক ভালো ফল করেছে। এমনকি বিজেপি ৯০ টি সংখ্যালঘু বহুল এলাকায় ৫০ শতাংশেরও বেশি আসনে জয়লাভ করেছে। ২০০৮ সালে এই সংখ্যালঘু জেলা গুলোর স্বীকৃতি দিয়েছিল প্রাক্তন কংগ্রেস (Congress) সরকার। সংখ্যালঘু সম্প্রদায় বহুল হওয়ার সাথে সাথে এই জেলা গুলোয় আর্থিক-সামাজিক ও মৌলিক সুবিধার সূচকগুলি জাতীয় গড়ের চেয়ে কম।

এরকম ৭৯ নির্বাচনী এলাকায় বিজেপি (BJP) সবথেকে বেশি ৪১ টি আসন জিতেছে, যেটা ২০১৪ এর তুলনায় সাতটি আসন বেশি। কংগ্রেসের খাতায় যুক্ত হওয়া আসন গতবারের তুলনায় অর্ধেক হয়ে গেছে। কংগ্রেস ২০১৪ সালে সেখান থেকে ১২ টি আসনে জয়লাভ করেছিল। বিশ্লেষকেরা জানান যে, এবার নির্বাচনে মুসলিম ভোটারেরা কোন এক প্রার্থী, এক দল এর পক্ষে একত্রিত হয়ে ভোট দেয়নি।

আরেকদিকে জোটের ২৭ জন মুসলিম প্রার্থী এইবারের লোকসভা আসনে জয়লাভ করেছে। যদিও বিজেপির ছয়জন মুসলিম প্রার্থীর মধ্যে মাত্র একজনই জয় হাসিল করতে পেরেছে।

জয়ী মুসলিম সাংসদদের মধ্যে তৃণমূলের পাঁচ, কংগ্রেসের চার, সমাজবাদী পার্টি, বহুজন সমাজ পার্টি, ন্যাশানাল কনফারেন্স এবং ইন্ডিয়ান ইউনিয়ন মুসলিম লীগের তিনজন করে, আসাদউদ্দিন ওয়াইসীর দুজন প্রার্থী, এনসিপি, সিপিআইএম, এআইইউডিএফ এর একজন করে সাংসদ হয়েছেন। বিরোধী দল সংখ্যালঘুদের জন্য বিশেষ কিছু করেনা, কিন্তু তাঁদের উপর হামলা এবং অসহযোগিতার অভিযোগ বরাবরই বিজেপির উপরে করে আসে বিরোধীরা।

সংখ্যালঘু জেলা গুলোর মধ্যে বিজেপি সর্বাধিক লাভ পশ্চিমবঙ্গ থেকে পেয়েছে। উত্তর দিনাজপুর জেলার রায়গঞ্জ যেখানে ৪৯ শতাংশ মুসলিম জনসংখ্যা আছে, সেখানে বিজেপির প্রার্থী দেবর্ষি চৌধুরী জিতেছেন। আরেকদিকে মালদা জেলার উত্তর মালদা আসনে খগেন মুর্মু তৃণমূলের মৌসম নূর কে ৮৪,২৮৮৮ ভোটে হারিয়েছেন। সেখানে মুসলিম জনসংখ্যা প্রায় ৫০ শতাংশ।

কোচবিহার আসনে বিজেপির প্রার্থী নিশীথ প্রামাণিক তৃণমূলের প্রার্থীকে হারিয়েছেন। আরেকদিকে জলপাইগুড়ি, উত্তর দিনাজপুর জেলার বালুরঘাট, বাঁকুড়া, বিষ্ণুপুর, হুগলী, বর্ধমান-দুর্গাপুর আসনেও বিজেপি প্রার্থী জয়লাভ করেছেন।

কংগ্রেস সরকার ২০০৮ সালে একটি প্রকল্প অনুযায়ী ৯০ টি সংখ্যালঘু জেলা চিহ্নিত করেছিল, তাঁদের উদ্দেশ্য ছিল ওই জেলা গুলোতে, শিক্ষা, স্বাস্থ এবং উন্নতি পৌঁছে দেওয়া। উত্তর প্রদেশের ২০ টি আসন এমনও আছে, যেখানে মুসলিমরা সংখ্যাগুরু।

আরেকদিকে বিহারের সাতটি আসন অররিয়া (৪৫ শতাংশ) বিজেপির কুমার দিপ সিং, কাটিহার ( ৪০ শতাংশ ) জেডিইউ এর দুলাল চন্দ্র গোস্বামী, দারভাঙ্গা ( ২৩ শতাংশ ) বিজেপির গোপাল জি ঠাকুর, খগড়িয়ায় লোক জনশক্তি পার্টির মেহবুব আলী কেসর, বাঁকা ( ২০ শতাংশ ) জেডিইউ এর গিরিধারি যাদব, আর মধুবনি ( ১৯ শতাংশ ) বিজেপির অশোক যাদব জয় হাসিল করেছে।

What do you think?

0 points
Upvote Downvote

আবারও সত্যাগ্রহ আন্দোলনের ডাক দিলেন মুখ্যমন্ত্রী, কালই বসছেন ধরনায়

ব্রেকিংঃ দুই গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান সহ ২০০ কর্মীর বিজেপিতে যোগদান