করোনা ঠেকাতে মমতা ব্যানার্জীর বড় ঘোষণা!

0
46

রবিবার রাজ্যের মুখ্যসচিব নির্দেশিকা জারি করে বলেছিলেন, ২৭ মার্চ পর্যন্ত কলকাতা-সহ রাজ্যের বেশ কিছু জায়গায় লকডাউন ঘোষণা করা হল। সেইমতো সোমবার বিকেল ৫টা থেকে শুরু হয়েছে এই লকডাউন। তার ২৪ ঘণ্টা কাটতে না কাটতেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়ে দিলেন, আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত গোটা রাজ্যে লকডাউন ঘোষণা করা হল।

সোমবার বিকেল ৫টার পর থেকে লকডাউন শুরু হওয়ার পরেও রাজ্যের একাধিক জায়গায় দেখা দিয়েছে জটলা। মানুষ এই লকডাউনকে তোয়াক্কা না করেই বাইরে বেরিয়েছেন। এই পরিস্থিতিকে শক্ত হাতে মোকাবিলা করা শুরু করেছে প্রশাসন। রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় রাস্তায় পুলিশ পিকেট বসানো হয়েছে। টহল দিচ্ছেন পুলিশকর্মীরা। কোথাও জটলা দেখলে বা বিনা কারণে বাইরে বেরলেই তেড়ে যাচ্ছেন তাঁরা। সোমবার রাত পর্যন্ত শুধু কলকাতাতেই ২৫৫ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

এই পরিস্থিতিতে আরও কড়া সিদ্ধান্ত নিলেন মুখ্যমন্ত্রী। সোমবার সাংবাদিক সম্মেলনে তিনি জানিয়ে দিলেন এই লকডাউনের মেয়াদ ৩১ মার্চ পর্যন্ত বাড়ানো হল। শুধু তাই নয়, গোটা রাজ্যকেই এবার লকডাউনের আওতায় আনা হল। অর্থাৎ আগের নির্দেশিকায় যে জায়গাগুলিকে এর বাইরে রাখা হয়েছিল, সেখানেও এবার থেকে লকডাউন শুরু হবে।

এদিনের বৈঠকে অসংগঠিত ক্ষেত্রের শ্রমিকদের সাহায্য করার কথাও বলেছেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, এই সময় কলকারখানা, অফিস সব বন্ধ। সমস্যায় পড়েছেন অসংগঠিত ক্ষেত্রের শ্রমিকরা। তাই তাঁদের জন্য ‘প্রচেষ্টা প্রকল্প’ ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী। এই প্রকল্পের আওতায় এই শ্রমিকদের মাসে হাজার টাকা করে আর্থিক সাহায্য করবে সরকার।

মুখ্যমন্ত্রী আরও একবার রাজ্যবাসীর কাছে আবেদন করেছেন, এই পরিস্থিতিতে বাড়ির বাইরে না বেরতে ও সোশ্যাল ডিসট্যান্সিং বজায় রাখতে। তিনি বলেন, করোনাভাইরাস মোকাবিলায় যতটা সম্ভব চেষ্টা করছে সরকার। কিন্তু সেইসঙ্গে মানুষকেও এগিয়ে আসতে হবে। তবেই এই ভাইরাস দূর করা সম্ভব হবে। মানুষকে আরও বেশি সচেতন হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।