২০২১ এ বিজয় মিছিলে চায়না ট্রলিতে অনুব্রত মন্ডলকে বেঁধে নিয়ে যাবে BJP

বিজেপি ডাকে আজ জেলাজুড়ে পালিত হচ্ছে ‘গণতন্ত্র বাঁচাও’ কর্মসূচি। ধরনায় সামিল হয়েছেন বিজেপি কর্মী, সমর্থকরা। বহু জায়গাতেই বিজেপির ধরনা মঞ্চ ভেঙে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে পুলিসের বিরুদ্ধে। চলুন একনজরে দেখে নেওয়া যাক, রাজ্যের সামগ্রিক অবস্থাটা-

রামপুরহাট-
পশ্চিমবঙ্গ বাঁচাও । গনতন্ত্র বাঁচাও । এই দাবিতে বীরভূমের রামপুরহাট মহকুমা শাসকের দফতরের সামনে মঞ্চ তৈরি করে ধরনায় বসেন বিজেপির কর্মী, সমর্থকেরা । এদিনের ধরনায় উপস্থিত ছিলেন বিজেপির বীরভূম জেলা সভাপতি শ্যামাপদ মণ্ডল, বিজেপি যুব মোর্চার বীরভূম জেলা সভাপতি শান্তনু মণ্ডল, জেলা কমিটির সম্পাদিকা শ্রাবন্তী ব্যানার্জি, রামপুরহাটের মহিলা মোর্চার সভানেত্রী রশ্মি দে সহ কয়েকশো বিজেপি কর্মী ও সমর্থক। বিজেপির বীরভূম জেলা কমিটির সদস্য মানস বন্দ্যোপাধ্যায় এদিন এই ধরনা মঞ্চ থেকে হুঁশিয়ারি দেন, “২০২১ সালে বিজেপির বিজয় মিছিলে চায়না ট্রলিতে অনুব্রত মন্ডলকে বেঁধে নিয়ে যাওয়া হবে। আর ট্রলির পিছনে পিছনে রোলার চালানো হবে । সেদিন অনুব্রত মণ্ডল বুঝতে পারবে মৃত্যুভয় কাকে বলে।”

দক্ষিণ দিনাজপুর-
দক্ষিণ দিনাজপুর জেলাশাসকের ভবনের সামনে অবস্থান বিক্ষোভে বসে বিজেপি। পশ্চিমবঙ্গ বাঁচাও গণতন্ত্র বাঁচাও, এই ব্যানারে আজ সকাল থেকে বিজেপির জেলা নেতৃত্ব অবস্থান বিক্ষোভে বসেছে‌।

পশ্চিম মেদিনীপুর –
পশ্চিম মেদিনীপুর জেলাশাসকের অফিসে সামনে এলআইসি মোড়ে বাংলায় গণতন্ত্র বাঁচিয়ে তোলো ডাক দিয়ে বিজেপি অবস্থান বিক্ষোভে বসে । বিজেপি জেলা নেতৃত্বের পাশাপাশি উপস্থিত আছে বিজেপি রাজ্য কমিটির সম্পাদক তুষারকান্তি ঘোষ।

বাঁকুড়া-
পশ্চিমবঙ্গ বাঁচাও, গণতন্ত্র বাঁচাও। এই দাবি নিয়ে বাঁকুড়াতেও ধরনায় সামিল বিজেপি নেতা, কর্মী, সমর্থকরা। বাঁকুড়া শহরের মাচানতলায় মুক্ত মঞ্চে ধরনায় বসেন বিজেপি নেতা, কর্মী, সমর্থকরা। উপস্থিত ছিলেন বাঁকুড়ার বিজেপি সাংসদ সুভাষ সরকার সহ জেলা বিজেপি নেতৃত্ব৷ অন্যদিকে বিষ্ণুপুরের মহকুমা শাসকের দফতরের সামনে ধরনা অবস্থান করেন বিজেপির বিষ্ণুপুর সাংগঠনিক জেলার কর্মী-সমর্থকরা।

আলিপুরদুয়ার-
অলিপুরদুয়ারে বিজেপির এসডিও অফিস ঘেরাও কর্মসূচি আটকে দেয় পুলিস ৷ রাস্তা ব্যারিকেড করে বিজেপি কর্মীদের এগোতে বাধা দেওয়া হয়। বাধা পেয়ে আলিপুরদুয়ারের সাংসদ সহ জেলা বিজেপি নেতারা কোর্ট মোড়ে বক্সা ফিডার রোডের উপরই বসে পরেন ৷ সাংসদ জন বার্লার সঙ্গে জেলা পুলিস কর্তাদের বচসাও বাধে ৷

জলপাইগুড়ি-
সাংসদ চিকিৎসক জয়ন্ত কুমার রায়ের নেতৃত্ব জলপাইগুড়ি এসডিও অফিসে ডেপুটেশন জমা দেন বিজেপি কর্মীরা। ডেপুটেশন জমা দিতে আসার পর পুলিসের সঙ্গে ধস্তাধস্তি বাধে বিজেপি সমর্থকদের।