আমি খু’ন হতে পারি লিখে পোস্ট করার তিনদিনের মাথায় ঝুল’ন্ত দে’হ উদ্ধার বিজেপি নেতার

হুগলীর গোঘাটে উদ্ধার হল বিজেপির (Bharatiya Janata party) যুব মোর্চার সভাপতির ঝুল’ন্ত দে’হ। তিনদিন আগে ফেসবুকে পোস্ট করে লিখেছিলেন, ‘আমরা যারা বিজেপি করি তারা জানি যে কোন সময় আমাদের হ’ত্যা করতে পারে তৃণমূলী (All India Trinamool Congress) গুন্ডা, আবার এটাও জানি উপরওয়ালার ইচ্ছা ছাড়া কোন কিছু হয়না। আমরা ভয় পাই না।” পোস্ট করার তিন্দিনের মাথায় যুব মোর্চার ঝুল’ন্ত দে’হ উদ্ধার হওয়া নিয়ে ঘনীভূত হচ্ছে রহস্য।

মৃ’ত যুব মোর্চার সভাপতি গোঘাটের নারায়ণপুর গ্রামের বাসিন্দা। মৃ’ত ওই বিজেপি নেতার নাম সৌভিক মুখোপাধ্যায় (Souvik Mukherjee)। বয়স মাত্র ২৬ বছর। তিনি ৪৬ নম্বর জেলা পরিষদ অঞ্চলে বিজেপির যুব মোর্চার দায়িত্ব সামলাচ্ছেন। ওনার দে’হ উদ্ধার হওয়ার পর শাসক দল তৃণমূলের দিকে আঙুল তুলছে বিজেপি। তৃণমূল নেতাদের বিরুদ্ধে আত্ম’হ’ত্যায় প্ররোচনা দেওয়ার অভিযোগ করা হচ্ছে।

যদিও সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেছে স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব। তাঁদের মন্তব্য অনুযায়ী, কোন সম্পর্কের জেরে এই আত্ম’হ’ত্যা। যদিও এই ঘটনায় নিরপেক্ষে তদন্তের দাবি তুলেছে স্থানীয় বিজেপি নেতৃত্ব। তাঁদের দাবি অনুযায়ী, যেই ছেলেটা শাসক দলের রক্তচক্ষু উপেক্ষা করে দলের হয়ে তুখর পরিশ্রম করত, আর যে দিন কয়েক আগে সোশ্যাল মিডিয়ায় শাসক দলের হাতে খু’ন হওয়ার আশঙ্কা জাহির করেছিল, সে কি করে আত্ম’হ’ত্যা করতে পারে?

সৌভিকের দে’হ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়েছে পুলিশ। ময়নাতদন্তের রিপোর্টের উপর ভিত্তি করে পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে। এর আগে বিজেপির বিধায়কের ঝুল’ন্ত দেহ উদ্ধার হওয়ার পর শাসকদলের তরফ থেকে বলা হয়েছিল যে, উনি আত্ম’হ’ত্যা করেছেন। যদিও পরে এই খু’নে অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে পুলিশ। সেই হিসেবেই এটিকেও আত্ম’হ’ত্যা হিসেবে দেখতে নারাজ গেরুয়া শিবির।

Related Articles