পশ্চিমবঙ্গে আড়াই কোটি হিন্দু ভারতীয় নাগরিকতা পাবেন জানালেন বিজেপি সাংসদ

নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পাশ হয়েছে সংসদে আর যা নিয়ে শুধুমাত্র সমালোচনার ঝড় উঠেছে দেশ জুড়ে। যদিও নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের সমর্থনে ভোট বেশি পড়েছে কিন্তু তা সত্ত্বেও চরম বিরোধিতা করতে ক্ষান্ত থাকেনি কংগ্রেস তৃণমূল সহ অন্যান্য বিরোধী দলগুলি। যদিও বার বার কেন্দ্রের তরফে বলা হয়েছে দেশে বসবাসকারী মুসলিমদের ওপর কোনও প্রভাব পড়বে না নাগরিক কত সংশোধন বিলের মাধ্যমে কিন্তু তা সত্ত্বেও মহারাষ্ট্রে শিবসেনার তরফে হিন্দু ও মুসলিমদের মধ্যে অদৃশ্য বিভাজনের চেষ্টা চলছে বলে অভিযোগ তোলা হয়।

পাশাপাশি, নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল অসাংবিধানিক বলেও কটাক্ষ করে কেউ কেউ। কিন্তু কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ সংশোধনী বিলে মুসলিমদের স্থান না দেওয়ার পিছনেও ব্যাখ্যা দিয়েছেন কারণ বাংলাদেশ আফগানিস্তান ও পাকিস্তানের মতো দেশে হিন্দুরা সংখ্যালঘু তাই সেই সমস্ত দেশ থেকে আসা পার্সি হিন্দু বৌদ্ধ শিখ ও জৈনদের মধ্যে যাঁরা কমপক্ষে পাঁচ বছর ভারতে বসবাস করছে তাদেরকে নাগরিকত্ব দেওয়া হবে। নাগরিকত্ব বিলের সমর্থনে কথা বলেছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীরা।

আর এই প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে বিজেপি সাংসদ সৌমিত্র খাঁ মহাভারতের প্রসঙ্গ তুলে এনে বাংলার আড়াই কোটি মানুষ এই বিলের জন্য অপেক্ষা করছিল বলে জানান একই সঙ্গে বাংলাদেশ থেকে আসা সমস্ত হিন্দু নাগরিকরা ই বিলের মাধ্যমে নাগরিকত্ব পেল তাই এ প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে আঙুল দূরে ডায়মন্ড হারবারের তৃণমূল কংগ্রেস সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে কথা বলেন একই সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে তোপ দেগে তিনিই এনআরসির বিরোধিতা করছেন এমন কারণ কী? তাও প্রশ্ন তোলেন পাশাপাশি হিন্দুদের প্রত্যেক জায়গায় অত্যাচার করা হচ্ছে বলেও অভিযোগ তোলেন।

অন্যদিকে লোকসভায় নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পাস হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই মঙ্গলবার গোটা অসম জুড়ে নর্থ ইস্ট স্টুডেন্টস অর্গানাইজেশনের তরফে দু দিন জুড়ে বন্ধের ডাক দেওয়া হয়েছে, কারণ তাঁদের মতে এই বিলটি অসম চুক্তির অবমাননা।