মাসুদ আজাহারকে বাঁচানোর জন্য চীনের উপর ক্ষোভ উগড়ে দিল বিদেশমন্ত্রক।

পুলওয়ামা কাণ্ডের পর ভারতের বিদেশমন্ত্রকের চাপে পড়ে চিন যে পাকিস্তানের পাশ থেকে সরে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছিল সেই ভাবনায় আবারও সীলমোহর পড়ল। পাকিস্তানের সঙ্গে চিনের সম্পর্কের কখনই যে টানাপোড়েন হতে পারে না তারও প্রমান মিলল। রাষ্ট্রসংঘে অন্যান্য বারের মতো আবারও পাকিস্তানের হয়ে কথা বলল চিন। এই নিয়ে চারবার রাষ্ট্রসংঘের দরবারে মাসুদ আজাহার বিশ্ব সন্ত্রাসবাদী তকমা পেতে পেতে বেঁচে গেল। মাসুদ আজাহারকে পৃথিবীখ্যাত সন্ত্রাদ তকমা দেওয়ার সিদ্ধান্ত অনেক দিন আগেই নিয়েছিল রাষ্ট্রসংঘ। আর তাতে সায় ছিল ভারত- আমেরিকা- ফ্রান্স সহ আরও অন্যান্য দেশের।

কিন্তু তাতে সায় দেয়নি চিন। আর তাতেই মাসুদ আজাহার আবারও বেঁচে গেল। ঘটনার পর যথেষ্ট ক্ষোভ প্রকাশ ও হতাশ হয়েছেন বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ। কাশ্মীরের পুলওয়ামায় ভয়াবহ জঙ্গীহানা যেভাবে ভারতের চল্লিশ জন জওয়ানের প্রাণ কেড়েছে তাতে পাকিস্তানকে দুচোখে সহ্য করতে পারছেনা বিশ্বের সমস্ত শক্তিধর দেশ। বিশেষ করে আমেরিকা, ফ্রান্স, ইরান সহ একাধিক মুসলিম প্রধান দেশও পাকিস্তানের এই কাজকে সমর্থন করে নি। তাই এবার হয়তো জইশ-ই-মহম্মদ প্রধান মাসুদ আজাহার বিশ্ব সন্ত্রাসবাদী হিসেবে চিহ্নিত হবে। এমনটাই আশা করেছিল ভারত। কিন্তু সেই আশায় জল ঢেলেছে চিন। বিশ্বের অন্যান্য শক্তিধর দেশের কাছ থেকে সমর্থন পেলেও রাষ্ট্রসংঘের এই সিদ্ধান্ত চিনের কাছে বাধা পেয়ে ফেরও স্থগিত হয়ে গেল।

মাসুদ আজাহার প্রসঙ্গে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও ব্রিটেন একযোগে তাঁর বিরোধিতা করেছে। বিশেষ করে পুলওয়ামা কাণ্ডের পর রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে আল কায়দা নিষেধাজ্ঞা সংক্রান্ত কমিটিতে ওই দুই দেশ একেবারে প্রথমেই সায় দিয়েছিল এবং মাসুদ আজাহারকে নিষিদ্ধ করার জন্য প্রস্তাবও দিয়েছিল। কিন্তু পাকিস্তানের পরম বন্ধু চিনের জন্য সেই সিদ্ধান্ত আর কার্যকর হল না। পরে বিদেশমন্ত্রকের তরফ থেকে জানা গিয়েছে রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের এক সদস্যের কারণে প্রস্তাবটির সিদ্ধান্ত আপাতত স্থগিত করা হয়েছে। শুধু তাই নয় এরপর বিদেশমন্ত্রক হতাশও হয়েছে। হতাশ হয়ে বিদেশমন্ত্রক এক বিবৃতিও দিয়েছে, ঘটনার হতাশা প্রকাশ করে পুলওয়ামা জঙ্গীহানার দায় নেওয়া জইশ ই মহম্মদের এক নেতার বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক মহল পদক্ষেপ করতে বাধা পাবে।

অন্যদিকে, মাসুদ আজাহারকে নিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে টানাপোড়েন চলছিল। মাসুদ আজাহারের বিরুদ্ধে পাকিস্তান কোনো ব্যবস্থা না নিলে তাঁকে ভারতের হাতে তুলে দেওয়ার দাবি জানিয়েছিল ভারত। কিন্তু তাতে আমল দেয়নি পাকিস্তান সরকার। তাই ফেরও একবার মাসুদ আজাহারকে ভারতের হাতে তুলে দেওয়ার দাবি করলেন বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ। শুধু তাই নয় পাকিস্তান সরকার জঙ্গদের বিরুদ্ধে কোনো পদক্ষেপ না নিলে ভারত সেদেশের সঙ্গে কোনো আলচনায় বসবে না বলেও রাফ সাফ জানিয়ে দেন। পাশাপাশি, কারোর নাম না করে ইমরান খানের প্রিয় ব্যক্তিদের মাসুদ আজাহারকে দেশের হাতে তুলে দেওয়ারও দাবি জানান বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ।