fbpx
নতুন খবরপশ্চিমবঙ্গরাজনৈতিক

এনডিএ-তে যোগ দিতে চাইছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, বিস্ফোরক দাবি মুকুলের।

রাজ্যে একসময়ের তিনটি ‘ম’ ছিল বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ। বিশেষ করে পঁয়ত্রিশ বছর বাম জমানার রদবদলের পর যখন তৃণমূল কংগ্রেস রাজ্যের শাসন ভার সামলানোর দায়িত্ব পেল তখন থেকে যেন মমতা, মুকুল ও মদন রাজ্যেবাসীর কাছে এক অন্য শব্দ। কিন্তু আজ সেই তিনটি ‘ম’ এসে দাঁড়িয়েছে দুটিতে। কারণ, যেদিন থেকে তৃণমূল কংগ্রেসের থেকে নিজেকে সরিয়ে নিয়েছেন মুকুল রায় সেদিন থেকেই দলের সঙ্গে তাঁর ঘনিষ্ঠ সম্পর্কটা যেন ম্লান হয়ে গিয়েছে। দল শুধু নয় দলের নেতা-নেত্রীদের সঙ্গেও তাঁর বিশেষ সম্পর্ক নেই। কিন্তু বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পরই একের পর এক কটাক্ষের ভাষায় সরাসরি মুখ্যমন্ত্রীকে তোপ দেগেছেন তিনি। মুখ্যমন্ত্রীর তোপের পাল্টা জবাব দিতে গিয়ে তিনিও সুর চড়িয়েছেন।

তবে এবার আর কোনো রাখঢাক গুড় গুড় নেই, সাংবাদিকদের বৈশাখী শোভনের দলে যোগ দেওয়া নিয়ে প্রশ্নের উত্তর দিতে গিয়ে বিজেপির রাজ্য নেতা মুকুল রায় মুখ্যমন্ত্রী এনডিএ-তে যোগ দিতে পারেন বলে মন্তব্য করেন। আসলে পলওয়ামা কাণ্ডের পর নিহত জওয়ানদের মৃত্যুর প্রতিশোধ নিতে গিয়ে যেভাবে দেশের সরকার এক বিরাট সাফল্য পেয়েছে তাই মোদীজির সফলতা ঢাকতে পাকিস্তানের বালাকোট এয়ার স্ট্রাইকের পর একের পর এক প্রশ্ন করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। যা নিয়ে বিজেপি শিবির ক্ষোভে ফুঁসছে। তাই এদিন মুকুল রায় মুখ্যমন্ত্রী আসলে ভারতের পক্ষে না পাকিস্তানের পক্ষে আছেন সেই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়ার পরামর্শ জানান। অন্যদিকে দেশের সরকার যখন সন্ত্রাসবাদ নিধনে একধাপ সাফল্য পেয়েছেন তখন দেশের সরকারের চোয়াল শক্ত হয়েছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

পাশাপাশি তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং এর প্রসঙ্গ টেনে মুকুল বাবু এদিন জানান মুম্বাই হামলার পর তিনি ভারতীয় সেনাবাহিনীকে পূর্ণ স্বাধীনতা দেননি। কিন্তু বর্তমান প্রধানমন্ত্রীর আমলে তা সম্ভব হয়েছে বলেও মন্তব্য করেন। প্রসঙ্গত, দেড় বছর আগে তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন একদা তৃণমূল ঘনিষ্ঠ মুকুল রায়। দলে যোগ দিয়ে তিনি নাকি অন্য তৃণমূল নেতাদের ভাঙানোর চেষ্টা করছেন বলেও মন্তব্য করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই কটাক্ষের জবাবও দিয়েছেন মুকুল রায়। মুকুল রায়ের বিজেপিতে যোগদানের পর একের পর এক তৃণমূল হেভিওয়েটরা যোগ দিয়েছেন বিজেপিতে। এই নিয়েও কম জল্পনা হয়নি তৃণ অন্দরে। এবার দলে নাম লেখানোর কথা চলছে বৈশাখী ও প্রাক্তন মেয়র মন্ত্রী শোভন চট্টোপাধ্যায়ের। এমনকি দুজনকে বিজেপির প্রার্থী হিসেবেও ভাবা হচ্ছে।

এমনটাই জানিয়ে ছিলেন বিজেপি রাজ্য সম্পাদক রাহুল সিনহা। তবে বৈশাখী-শোভনের দলে নাম লেখানো নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে মুকুল রায় বলেন বৈশাখী ও শোভন ছাড়াও বিজেপিতে অনেক লোক যোগ দেওয়ার জন্য বসে আছেন বলে মন্তব্য করেন।

Close