fbpx
নতুন খবরপশ্চিমবঙ্গরাজনৈতিক

মাত্র ১৫ দিন সময় নিলাম; এর মধ্যেই ইট, বলি, সিমেন্ট আলাদা করে দেব: দিলীপ ঘোষ।

লোকসভা নির্বাচনকে ঘিরে রাজ্যের শাসকদল ও বিরোধী দলের অন্তর্দ্বন্ধ ক্রমশই প্রকাশ্যে। গত 21শে জুলাই শহীদ দিবসের মঞ্চ থেকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনে রাজ্যে 42 টি সিটের মধ্যে 42 টি সিটই দখল করার কথা জানিয়েছিলেন। আর লোকসভা ভোটের দিনক্ষণ ঘোষনার পরই সেই আসন জেতার জন্য মরিয়া তৃণমূল সরকার। তাই 42 টি আসনেই প্রার্থীর নাম ঘোষনা করা হয়েছে। কিন্তু ছাড়বার পাত্র নয় গেরুয়া শিবির। আস্তে আস্তে বিজেপি দলে যেভাবে তৃণমূল ছেড়ে সদস্য সংখ্যা বাড়ছে তাতে একটু হলেও জয় নিয়ে বেশ আশাবাদী বিজেপিরা। রাজ্য বিজেপির তরফ থেকে ইতিমধ্যেই বেশ জোরকদমে প্রস্তুতি চলছে। প্রার্থীদের নাম ঘোষনা না হলেও তৃণমূল সরকারকে রাজ্য ছাড়া করতে তৃণমূল অভিনেত্রীদের বিরুদ্ধে তাঁবড় তাঁবড় প্রার্থীদের নাম ঘোষনা করতে পারে বিজেপি।

এমনকি তৃণমূল সরকার চলতি বছরের মধ্যেই ভেঙে যাবে বলে দাবি করলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। পাশাপাশি রাজ্য সরকারকে হুমকিও দিতে শোনা গেছে দিলীপ ঘোষকে। শুক্রবার রাতে বারাসাতে সাংবাদিকদের সামনে এমনই মন্তব্য করেছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। ভাটপাড়ার বিধায়ক অর্জুন সিং বৃহস্পতিবারই তৃণমূল ত্যাগ করে যোগ দিয়েছেন বিজেপিতে। নয়া দিল্লীতে বিজেপির সদর দফতরে কৈলাস বিজয়বর্গীয় ও মুকুল রায় সহ একাধিক বিজেপি শীর্ষনেতাদের সামনে বিজেপিতে নাম লেখান প্রাপ্তন তৃণমূল নেতা অর্জুন সিং। বিজেপিতে নাম লিখিয়েই তৃণমূলের নিন্দায় সরব হন তিনি। যদিও শাসক দলের তরফে দাবি করা হয়েছে নির্বাচনে লড়াই করার টিকিট না পেয়েই তিনি বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন। যদিও সে কথায় কান দিচ্ছেন না অর্জুন সিং। কিন্তু তাঁর হটাৎ দলবদলের সিদ্ধান্তে কিছুটা হলেও ক্ষিপ্ত অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।

বিজেপিতে অর্জুন সিং দাঁড়ালেও তাঁর বিরুদ্ধে তাঁদের জয়লাভ করা নিয়ে চ্যালেঞ্জও ছুঁড়ে দিয়েছেন তিনি। এমনকি মুকুল রায়কে কটাক্ষ করতেও ছাড়েননি অভিষেক। আর অভিষেকের চ্যালেঞ্জের জবাব দিয়েছেন দিলীপ ঘোষ। মুকুল রায়ের দল ভাঙানোর প্রসঙ্গ টেনে এদিন দিলীপ বাবু তৃণমূলকেই ভাঙানো দল বলে উল্লেখ করেন। একইসঙ্গে, অভিষেক যতই চ্যালেঞ্জ করুন না কেন ভোটের পরে তাঁর অবস্থা কি হবে সেদিকেও নজর রাখতে বলেছেন তিনি। পাশাপাশি, মাত্র পনের দিন সময়ের মধ্যে তৃণমূলকে সরিয়ে দেওয়ার কথাও বলেন তিনি। ডিসেম্বরের মধ্যে এই সরকার আর দেখতে পারবেন না বলেও জানান তিনি। শুধু দিলীপ ঘোষ নন, তৃণমূলকে সরানো নিয়ে একই সুর গেয়েছেন বিজেপির অন্যতম বিশেষ নেতা মুকুল রায়। যার হাত ধরে একে একে বিজেপিতে নাম লেখাচ্ছেন তৃণমূলের প্রাক্তন নেতা, সাংসদ থেকে মন্ত্রী আমলারা। কিছুদিন আগেই মুকুলের শিষ্য শঙ্কুদেব পন্ডাও যোগ দিয়েছেন বিজেপিতে।

লোকসভা নির্বাচনে 20 টির বেশি আসনে জয়লাভের আশাবাদী মুকুল রায় সাংবাদিকদের জানিয়েছিলেন চলতি বছরের মধ্যেই তৃণমূল সরকার ভেঙে যাবে। তবে তৃণ-বিজেপির জোর তরজা চলবে লোকসভা নির্বাচনের ফলাফল অবধি চলবে। তার প্রভাব কতটা ভোটবাক্সে পড়বে তা বলবে লোকসভা ভোটের ফলাফল। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের চ্যালেঞ্জ বনাম দিলীপ ঘোষের চ্যালেঞ্জ- কে জিতবে বলবে সময়।

Open

Close