মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প নিশ্চিত করেছেন যে আল কায়েদার প্রাক্তন নেতা ৯/১১-এর মাস্টারমাইন্ড ওসামার ছেলে হামজা বিন লাদেনকে মেরে ফেলা হয়েছে। শনিবার সকালে হোয়াইট হাউস জারি করা এক বিবৃতিতে রাষ্ট্রপতি ট্রাম্প বলেছেন যে আফগানিস্তান/পাকিস্তান অঞ্চলে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সন্ত্রাসবাদ বিরোধী অভিযানে আল-কায়েদার উচ্চ সদস্য, হামজা নিহত হয়েছেন। তবে, কখন এই অপারেশন করা হয়েছিল, তা পরিষ্কারভাবে বলা হয়নি।
আল কায়েদা নেতা ওসামা বিন লাদেনের ছেলে হামজা,  একসময় আমেরিকার জন্য বড় ধরনের হুমকি হয়ে উঠছিল। এর মৃত্যুর সংবাদ আগেও অনেকবার মিডিয়াতে এসেছিল কিন্তু তখন এ বিষয়ে কোনো স্পষ্টতা ছিল না।

তখন মার্কিন রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্প থেকে শুরু করে উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা কোনও কথা বলতে বিরত ছিলেন। তবে এখন রাষ্ট্রপতি ট্রাম্প নিজেই এ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। হামজার (৩০) তার বাবার মৃত্যুর প্রতিশোধ নিতে আমেরিকাকে কয়েকবার হামলা করার হুমকি দিয়েছিল। তার বাবা ওসামাকে ২০১১ সালের মে মাসে পাকিস্তানের অ্যাবোটাবাদে মার্কিন সিল কমান্ডোরা শেষ করেছিল।

আগস্ট মাসে মার্কিন কর্মকর্তারা এক বিবৃতিতে বলেছিলেন যে ট্রাম্প প্রশাসনের প্রথম দুই বছরে হামজা বিন লাদেনকে হত্যা করা হয়েছিল। চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে বিদেশমন্ত্রক হামজার ঠিকানা বলার জন্য পুরস্কার ঘোষণার কথা ভেবেছিল। কিন্তু পুরষ্কারের ঘোষণা করার আগেই তাকে হত্যা করা হয়েছিল। ফেব্রুয়ারিতে আমেরিকার বিদেশ মন্ত্রণালয় জানিয়েছিল যে ওসামার ২০ সন্তানের মধ্যে হামজা ১৫ তম স্থানে রয়েছে। হামজা ওসামার তৃতীয় স্ত্রীর থেকে জন্ম হয়েছিল। আল কায়েদা সাম্প্রতিক বছরগুলিতে এর অনেক বার্তা জারি করেছিল। তবে গত কয়েকমাস ধরে তাঁর কাছ থেকে কোনও বার্তা আসেনি।