দেশজুড়ে যুদ্ধকালীন পরিস্থিতি, কখন হবে লোকসভা নির্বাচন? সূচিপত্রে কি বদল এল? জেনে নিন বিস্তারিত।

পুলওয়ামা ও বালাকোট হামলা ভারত-পাকিস্থানের সম্পর্কের ভীত নড়বড়ে। কিন্তু ভারতের লোকসভা নির্বাচন আসন্ন। তবে এমন উত্তেজনামূলক পরিস্থিতিতেও নির্ধারিত সময়েই লোকসভা নির্বাচন হবে বলেই জানালেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার সুনীল আরোরা। নির্বাচনের নির্ঘন্ট বেজে যাওয়ায় আপাতত সুনীল আরোরা উত্তরপ্রদেশে। সেখানে থেকেই এই কথা জানিয়েছেন তিনি। কাশ্মীরের পুলওয়ামায় জঙ্গীহানার অনেক আগে থেকেই ভারত-পাক সম্পর্কের অবনতি হয়েছিল, কিন্তু পুলওয়ামা জঙ্গীহানার পর পাকিস্থানের আকাশে ভারতীয় বায়ুসেনাদের এয়ার স্ট্রাইকের পর সেই সম্পর্ক ক্রমশই তিক্ততর হয়ে উঠেছে। তাই লোকসভা নির্বাচনে তার কোনো প্রভাব পড়বে কি না, সাংবাদিকদের এই প্রশ্নের উত্তরে নির্ধারিত সময়েই নির্বাচন হওয়ার কথা জানিয়েছেন সুনীল আরোরা।

পাশাপাশি এদিন তিনি সাংবাদিকদের আরও জানিয়েছেন, এবারের লোকসভা নির্বাচনে নিয়ম আরও আঁটোসাঁটো করা হবে। নির্বাচনে লড়াই করতে গেলে প্রার্থীকে কমিশনের কাছে তাঁর দেশ বিদেশের সম্পত্তির খতিয়ান জমা দিতে হবে।  পরে সেই খতিয়ান যাচাই করে দেখবে আয়কর দফতর। খতিয়ানে অসংগতি থাকলে সেই প্রার্থীর বিরুদ্ধে আয়কর দফতর যথোপযুক্ত ব্যবস্থা নেবে বলেও জানান তিনি।

নির্বাচনের সময় যেকোনো অভিযোগ জানানোর জন্য সাধারন মানুষের সুবিধার্থে একটি অ্যাপ খোলা হবে বলেও জানা গিয়েছে। যেখানে গিয়ে যে কোনো সাধারন মানুষ বুথ বা প্রার্থী বা কোনো সমস্যার বিরুদ্ধে অভিযোগ জানাতে পারবেন। নির্বাচন কনিশন সেই ব্যক্তির যাবতীয় তথ্য গোপন রাখবে বলেও জানা গিয়েছে। এমনকি নির্বাচনের বিষয়ে যাবতীয় নজরদারি চালানোর জন্য সামাজিক মাধ্যমেও কড়া নিরাপত্তায় নজরদারি চালানো হবে।

ইভিএম-এ ভোট গ্রহন নিয়ে সাংবাদিকদের আরোরা জানিয়েছেন, বিরোধীদের আপত্তির সত্ত্বেও এবারের নির্বাচনে আরও বেশি করে ইভিএম মেশিন ব্যবহার করা হবে এবং প্রতিটি বুথেই ভিভিপ্যাট মেশিন থাকবে বলেও জানান তিনি।

প্রসঙ্গত, আসন্ন লোকসভা নির্বাচন নির্বিঘ্নে সম্পন্ন করতে আগে থেকেই নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করার কথা ঘোষনা করেছিল কমিশন। কিন্তু তার আগেই ভারত-পাকিস্থানের সাময়িক যুদ্ধের বাতাবরন তৈরি হওয়ায় নির্বাচন ব্যবস্থা কঠোর করতে উদ্যত কমিশন।