অর্থনীতি চাঙ্গা করতে রপ্তানির উপর জোর দিল সরকার, শীঘ্রই শক্তিশালী হবে ভারতের ইকোনমি।

অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ শনিবার অর্থনীতির মন্দা দূর করতে বেশ কয়েকটি বড় ঘোষণা করেছেন। জানিয়ে দি ভারতকে আর্থিক দিক থেকে শক্তিশালী করতে হলে অবশ্যই রপ্তানির পরিমাণ বৃদ্ধি করতে হবে। কোনো দেশের আর্থিক শক্তি তার রপ্তানির উপরেই নির্ভর করে। এমনকি ভারত যখন সোনার পাখি হিসেবে পরিচিত ছিল তখনও ভারত থেকে সবথেকে বেশি রপ্তানি হতো।  এখন সেই কাজেই নেমে পড়েছে অর্থমন্ত্রণালয়। অর্থনীতির গতি বাড়ানোর জন্য অর্থমন্ত্রী বিশেষত দুটি খাতে জোর দিয়েছিলেন, যার মধ্যে সাশ্রয়ী মূল্যের আবাসন খাত এবং রপ্তানি খাত । তিনি দেশের চারটি স্থানে হস্তশিল্প, যোগব্যায়াম, পর্যটন, বস্ত্র ও চামড়া খাতে বার্ষিক শপিং এর মেগা ফেস্টিভাল করার ঘোষণা করেন।

সীতারমণ রপ্তানিকারীদের জন্য  পিএসএল এর ঘোষণা করেন। এটি রপ্তানিকারকদের 36,000 কোটি থেকে 68,000 কোটি রুপি পর্যন্ত অতিরিক্ত আর্থিক সহায়তা দেবে। তিনি রপ্তানীকারকদের পিএসএল বিধি পর্যালোচনা করার কথাও বলেন। অর্থমন্ত্রী বলেন যে এর জন্য গাইডলাইনগুলি ভারতের রিজার্ভ ব্যাঙ্কের সাথে আলোচনা করা হচ্ছে। অর্থমন্ত্রীর ঘোষণা অনুযায়ী বাণিজ্য বিভাগের অধীনে একটি আন্তঃমন্ত্রণালয় গোষ্ঠী রফতানি খাতে সক্রিয়ভাবে তহবিল পর্যবেক্ষণ করবে।

সীতারমন বলেন যে এই উদ্যোগের বার্ষিক ব্যয় হবে 1,700 কোটি টাকা। এটি সুদের হার, বিশেষত ক্ষুদ্র ও মাঝারি ব্যবসায়ের জন্য রপ্তানিকারকদের পুরো ব্যয় হ্রাস করতে সহায়তা করবে। একই সাথে নির্মলা সীতারমন ফ্রী ট্রেড এগ্রিমেন্ট স্থাপন করার ঘোষণাও করেন। বিদেশের বাজারে মাল রপ্তানি করার জন্যও ভারত সরকারকে একটা ট্যাক্স প্রদান করে রপ্তানিকারক। সরকার রপ্তানিকে উৎসাহ প্রদান করতে সেই ট্যাক্সের বোঝা কমিয়ে দেওয়ার সিধান্ত নিয়েছে।