Connect with us

অজানা তথ্য

Fact Check: নরেন্দ্র মোদীর হাতে উদ্বোধন হওয়ার তিন মাস পরেই ভেঙে পড়ল ব্রিজ? জেনে নিন আসল তথ্য

Published

on

মিথ্যা প্ৰচার করে জনগণকে ভ্রমিত করা এখন কিছু রাজনৈতিক দলের নিত্য কাজে পরিণত হয়েছে। তবে মিথ্যাকে যতই বার বার প্রচার করে সত্য দেখানোর চেষ্টা হোক না কেন, সত্য কখনো চাপা থাকে না। সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় এমনি এক মিথ্যা প্রচার ঘুরে বেড়াচ্ছে যার সত্যতা এখন প্রকাশিত হয়েছে। আসলে জামনগর জুনাগড়ে হাইওয়েতে ব্রিজ ভাঙা নিয়ে বিরোধীরা নরেন্দ্র মোদীর উপর মিথ্যা দোষারোপ চাপিয়েছেন যা এখন পর্দাফাঁস হয়েছে। পশ্চিমবঙ্গ কংগ্রেসের তরফ থেকে দাবি করা হয়েছিল যে, জামনগর জুনাগড়ে হাইওয়েতে যে ব্রিজ ১৯ তারিখ ভেঙে পড়ে তা নরেন্দ্র মোদী ৩ মাস আগে উদ্বোধন করেছিলেন। West Bengal Congress তাদের ফেসবুক ও টুইটার হ্যান্ডেলেও এই দাবি করে পোষ্ট করা হয়েছিল।

নরেন্দ্র মোদী ৩ মাস আগে যে ব্রিজ উদ্বোধন করেছিলেন তা ভেঙে পড়েছে বলে দাবি করা হয়েছিল। তবে এখন কংগ্রেসের এই দাবি মিথ্যা প্রমাণিত হয়েছে। India Today Anti Fake News War Room (AFWA) এর অনুযায়ী, নরেন্দ্র মোদী ও ব্রিজ ভাঙা নিয়ে যে দাবি ভাইরাল হয়েছে তা সম্পূর্ণভাবে মিথ্যা। জামনগর জুনাগড়ে হাইওয়েতে যে ব্রিজ ১৯ তারিখ ভেঙে পড়েছে তা ৫০ বছর পুরানো। সাব ডিভিশনাল ম্যাজিস্ট্রেট জিকে মিয়ানিও এটা বলেছেন যে ব্রিজ ৩ মাস আগে উদ্বোধন করা হয়নি এটা ৫০ বছর আগের ব্রিজ।

এক্সসিকুটিভ ইঞ্জিনিয়ার জেভি জোশি বলেন এটা ৫০ বছর আগের ব্রিজ। জোশি বলেন ব্রিজের ভাঙা অংশ দেখলেই বোঝা যায় সেই সময় স্টোন দিয়ে ব্রিজ নির্মাণ হতো, এখন কংক্রিট ব্যাবহার করা হয়। তবে ব্রিজ ৫০ বছরের পুরনো হলেও জনগণকে বিভ্রান্ত করতে এবং নেমে পড়েছে West Bengal কংগ্রেস। যারা সোশ্যাল মিডিয়ায় দুর্ব্যবহার করে মিথ্যা প্রচার চালিয়েছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় বিভ্রান্তি মূলক খবরের বিরুদ্ধে আমরা আপনাদের পাশে আছি।

 

Continue Reading

অজানা তথ্য

রাম ভক্ত হনুমানের নাম নিয়ে নেওয়া হয়েছিল পুলওয়ামার বদলা, তথ্য সামনে আনল ভারতীয় বায়ুসেনা

Published

on

By

১৪ ই ফেব্রুয়ারি পাকিস্তান সমর্থিত জঙ্গি সংগঠন জইশ-এ-মহম্মদ এর জঙ্গি হানায় সিআরপিএফ এর ৪০ জওয়ান শহীদ হওয়ার পর। ২৬ ফেব্রুয়ারি ভারতীয় বায়ুসেনা বদলা নিতে পাকিস্তানের বালাকোটে এয়ার স্ট্রাইক করে। সেই এয়ার স্ট্রাইক নিয়ে এবার এক গোপন তথ্য সামনে এলো। ভারতীয় বায়ুসেনা বিশ্বস্ত সুত্র জানায় যে, বালাকোটে করা এয়ার স্ট্রাইকের কোড নাম ‘Operation Bandar” দেওয়া হয়েছিল। এই অভিযানে ভারতের ১২ টি মিরাজ ফাইটার জেট পাকিস্তানের সীমান্তে ঢুকে জইশ-এ-মোহম্মদ এর জঙ্গি ঘাঁটি গুঁড়িয়ে দিয়ে এসেছিল। মিডিয়া রিপোর্টে বলা হয়েছিল যে, ভারতীয় সেনার এই অভিযানে ২৫০ জন জঙ্গি খতম হয়েছিল।

ভারতীয় বায়ুসেনা বিশ্বস্ত সুত্র জানায় যে, ভারতের যুদ্ধ ইতিহাসে বাঁদর/হনুমান এর সবসময় গুরুত্বপূর্ণ স্থান ছিল। রামায়ণ কালে ভগবান রাম-এর সেনাপতি হনুমান ছিলেন। যিনি চুপচাপ লঙ্কায় ঢুকে লঙ্কা জ্বালিয়ে এসেছিলেন। আর এই জন্যই এই অপারেশনের নাম  ‘Operation Bandar” আমাদের পৌরাণিক গ্রন্থ গুলোর ঐতিহাসিক গুরত্বের উপর অবলম্বিত। রামায়ণের ঐতিহাসিক লড়াইয়ে হনুমানের চরম গুরুত্বপূর্ণ অংশীদারি ছিল। ওনার জন্যই ভগবান রাম বাণর সেনা নিয়ে লঙ্কা গুঁড়িয়ে দিয়ে এসেছিলেন।

প্রসঙ্গত, ২০১৮ সালের ১৪ই ফেব্রুয়ারি পুলওয়ামায় জইশ এর জঙ্গি দ্বারা করা হামলার বদলা নিতে ভারতীয় বায়ুসেনা এই এয়ার স্ট্রাইক করেছিল। পুলওয়ামায় জঙ্গি হামলায় ভারতের ৪০ বীর জওয়ান শহীদ হয়েছিলেন। ভারতীয় বায়ুসেনার সুত্র জানায়, এই পরিকল্পনা গুপ্ত রাখার জন্যই অপারেশনের এই নাম দেওয়া হয়েছিল।

Continue Reading

Trending