মাই ইন্ডিয়া ব্রেকিং নিউজঃ ফেসবুকে প্রেমে হাবুডুবু দুই প্রেমিক প্রেমিকার বিয়ের পরেও নববধুকে বাড়িতে তুলতে অনীহা শ্বশুর বাড়ির। নিজের অধিকার আদায়ে শ্বশুর বাড়ির সামনে ধর্নায় বসলেন নব বধু। দক্ষিন দিনাজপুর জেলার হিলি ব্লকের চেকপোষ্ট লাগোয়া এলাকার ঘটনা। গৃহবধুর মর্যদা না পেলে বাড়ির সামনে আত্মহত্যার হুশিয়ারি দিয়েছে ঐ মহিলা। এই ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়।

স্থানীয় সুত্রের খবর, বছর খানেক আগে হিলির বাসিন্দা অর্জুন চৌধুরীর সাথে ফেসবুকে আলাপ হয় বিহারের কাটিহারের বাসিন্দা তারা কুমারীর। তারপর মোবাইলে একাধীকবার কথোপোকথনে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে দুজনের মধ্যে। গত মার্চ মাসে বালুরঘাটে রেজেস্ট্রী করে বিয়ে করে তারা। যার পর অবশ্য একটি মন্দিরে ভগবানকে সাক্ষী রেখে বৈবাহিক বন্ধনে আবদ্ধ হয়। এদিকে বিয়ের পর বেশ কিছুদিন ছেলে তার বাড়িতে না ওঠায় একাধীক প্রশ্ন করে  ঐ মহিলা। এদিন স্ত্রীকে নিয়ে বাড়িতে যাওয়া মাত্র ছেলের মা বাবা ঘরে তালা দিয়ে পালিয়ে যায়। পরিস্থিতি বেগতিক দেখে এলাকা ছাড়ে যুবক অর্জুন চৌধুরীও। বাধ্য হয়ে তার বাড়ির সামনে ধর্নায় বসে ঐ যবতী। ন্যায্য অধিকার না পেলে সেখানেই আত্মহত্যার হুশিয়ারি দিয়েছে সে।

বিবাহিত মহিলা তারা কুমারী জানিয়েছেন, ফেসবুকে আলাপ থেকে তাদের দুজনের মধ্যে সম্পর্ক গড়ে ওঠে। তারপর রেজিস্ট্রি করে বিয়ে সারেন তারা। কিন্তু তাকে বাড়িতে তুলবে তুলবে করে বিভিন্ন জায়গায় নিয়ে ঘুড়েছে ঐ যুবক। এদিন তাকে তার বাড়ি আনতেই তার মা বাবা বাড়িতে তালা দিয়ে পালিয়ে যায়। যার প্রতিবাদেই ধর্নায় বসেছে সে। ছেলের কাকা গোপাল চৌধুরী জানিয়েছেন, বাড়িটি তার নামে রয়েছে। তিনি অজানা কাউকে বাড়িতে আশ্রয় দিতে পারবেন না।