স্বামীকে তিন তালাক দিয়ে অবিবাহিত ভাইপোর সাথে পালালো মহিলা!

চন্ডীগড়: এ যেন উলটপুরান৷ এতদিন মুসলিম মহিলাদের ইচ্ছামতো তালাক দিতেন পুরুষরা৷ এবার এই ‘কুপ্রথার’ শিকার হলেন এক মুসলিম পুরুষ৷ শুধু তাই নয়, স্বামীকে তালাক দিয়ে প্রেমিকের সঙ্গে পালিয়ে যান স্ত্রী৷ ঘটনাটি হরিয়ানার উনহেন্ডি গ্রামের৷

তিন সন্তানের মা সাজিয়া তাঁর স্বামী আব্বাসকে তিন তালাক দেন৷ একটি চিঠিতে সাজিয়া তিন বার তালাক লিখে স্বামী আব্বাসের সঙ্গে বিবাহ বিচ্ছেদ করেন৷ এই বিবাহ বিচ্ছেদের জন্য স্বামীকেই দায়ী করেন তিনি৷ জানান, বিয়ের পর থেকে স্বামীর অত্যাচার শুরু৷ প্রতিদিন মদ্যপ অবস্থায় বাড়ি ফিরে তাঁকে মারধর করত আব্বাস৷ তাই বাধ্য হয়ে স্বামীকে তালাক দিলেন তিনি৷ চিঠি লিখে একথা জানান সাজিয়া৷ পাশাপাশি তিনি বলেন, স্বেচ্ছায় তিনি আব্বাসকে তালাক দিলেন৷ কেউ এর জন্য দায়ী নয়৷ জানা গিয়েছে, অবিবাহিত এক ভাইপোর সঙ্গে পালিয়ে গিয়েছেন সাজিয়া৷

ঘটনাটি ঘটেছে ২০১৮ সালের এপ্রিল মাসে। কিন্তু এই ঘটনা এখন নতুন করে অক্সিজেন পেয়েছে। কারণ আগস্ট মাসেই রাজ্যসভা থেকে তিন তালাক বিল পাশ করিয়ে নিয়েছে মোদী সরকার। এখন থেকে কেউ যদি কাউকে তিন তালাক দেয়, তাহলে তাঁকে আইনের রোষের মুখে পড়তে হবে। আর সেই মতেই সাজিয়ার বিরুদ্ধে এবার প্রশাসনের দ্বারস্থ আব্বাস। তাঁর কথা অনুযায়ী, সরকার যখন তিন তালাক বিল পাশ করিয়ে নিয়েছে, তাহলে আমিও এখন আমাকে এভাবে ঠকিয়ে যাওয়ার প্রতিশোধ নেব। সাজিয়াকে আইনের পথে এবং আইনের মাধ্যমে কঠিন শাস্তি দেবো।

রাজ্যসভা থেকে তিন তালাক বিল পাশ হওয়ার পর দেশের সমস্ত বিরোধী দল গুলোই মোদী সরকারের বিরোধিতা করে। কিন্তু কেন্দ্রের মোদী সরকার বিরোধীদের বিক্ষোভে ভ্রূক্ষেপ করে রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের থেকেও তিন তালাক বিল এর মঞ্জুরি নিয়ে নেয়। চলতি বছরের সেপ্টেম্বর মাসে তিন তালাক বিল আইন হিসেবে লাগু হতে চলেছে দেশে।

Related Articles