১৩০ বছরের প্রাচীন হিন্দু উৎসবে পুড়ল পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের কুশপুতুল

মাই ইন্ডিয়া ডেস্কঃ জম্মু কাশ্মীর ইস্যু নিয়ে বারবার যুদ্ধের হুমকি দেওয়া পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের বিরোধিতায় মেতে উঠেছে গোটা ভারত। আর সেই ক্রমেই নাগপুর শহরে ১৩৫ বছরের প্রাচীন মারবত উৎসবে ইমরান কাহ্নের কুশপুতুল পোড়ানো হয়। আর এই প্রাচীন হিন্দু অনুষ্ঠানে নাগপুরের রাস্তায় হাজার হাজার মানুষের ভিড় জমে যায়। প্রসঙ্গত, নাগপুর জেলার পোলা উৎসবের দ্বিতীয় দিন মারবত রাস্তায় বের হয়। সামাজিক সমস্যা, রাজনৈতিক উথাল-পুথালের ক্ষোভ এই মারবত উৎসবের মাধ্যমে প্রকাশ করা হয়। এই জুলুসে যেই পুতুল গুলো থাকে, সেগুলো প্রতিটি সমস্যার কথা মাথায় রেখে তৈরি করা হয়। আর এবার ইমরান খানের কুশপুতুল ‘বডজ্ঞা” এর রুপে তৈরি করা হয়েছিল।

জুলুস দেখার জন্য হাজার হাজার মানুষ নাগপুরের রাস্তায় জড় হয়েছিল। এই জুলুসে কালি আর হলুদ রঙয়ের পুতুল প্রধান আকর্ষণ ছিল। ওই পুতুল গুলোকে দুষ্ট আত্মাকে দূরে রাখার জন্য জ্বালানো হয়। যার এই উৎসবে অংশ গ্রহণ করেন, তাঁরা এটা মানেন যে, এই পুতুল গুলো যখন রাস্তা দিয়ে যায়, তখন সমস্ত সামাজিক মন্দ দিক গুলো শেষ হয়ে যায়।

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ছাড়া, আর্থিক মন্দা আর বেকারত্ব নিয়েও পুতুল বানানো হয়েছিল। সেই পুতুল গুলোকেও জুলুসের সাথে বের করা হয়েছিল। সমস্ত পুতুল গুলোই ১০ থেকে ১৫ ফুট পর্যন্ত লম্বা ছিল। আপনাদের জানিয়ে রাখি, এই উৎসব ইংরেজদের সময় থেকেই হয়ে আসছে। সেই সময় ইংরেজদের বিরুদ্ধে ক্ষোভ দেখানোর জন্য এই উৎসব পালিত হত। ১৮৮১ সালে নাগপুরের ভোসলে রাজপরিবারের এক মহিলা বিদ্রোহ করে ইংরেজদের সাথে হাত মিলিয়েছিল। আর সেটারই বিরোধিতায় কালি মারবত নামের পুতুল জুলুসে বের করা হয়।

Related Articles