চরম অ্যাকশন মুডে মোদী সরকার, ফাঁকিবাজ আর দুর্নীতিগ্রস্ত কর্মীদের করা হবে বাধ্যতামূলক ছাটাই

কোন সরকারী কর্মচারীর (Government employee) বয়স যদি ৫০ কিংবা ৫৫ পার হয়ে যায়, তখনই দেখতে হবে তাঁর কাজের ধরণ। সেই কর্মচারী কোন দুর্নীতিতে লিপ্ত কিনা, অথবা তাঁর কাজের মধ্যে কোন অসবচ্ছতা আছে কিনা, সবকিছুই সঠিকভাবে খতিয়ে দেখতে হবে। আর যদি কোন সমস্যা দেখা দেয়, তাহলে নির্দিষ্ট সময়ের পূর্বে তখনই তাঁকে অবসর নিতে হবে।

ভাবছেন এ আবার কেমন নিয়ম? সম্প্রতি এমনই এক রিপোর্ট পেশ করল কেন্দ্র সরকার (Central Government)। অর্থাৎ কোন ব্যক্তি কাজে ফাঁকি দিলে অথবা কাজের বিষয়ে অভিজ্ঞতা নেই যদি একবার প্রমাণ হয়ে যায়, তাহলে জনস্বার্থে তাঁকে তখনই অবসর নিতে হবে।

সম্প্রতি কেন্দ্রীয় মন্ত্রক থেকে জারী করা এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, মৌলিক বিধি ৫৬ (J)এবং ৫৬ (I) ধারা অনুযায়ী সরকারি বেতনভুক কর্মচারীদের কাজের হিসাব নেওয়া হবে। যদি কোন ব্যক্তির কাজের হিসাব নিতে গিয়ে কর্তৃপক্ষ সন্তুষ্ট না হয়, অর্থাৎ তাঁর বিরুদ্ধে কোন গাফিলতির প্রমাণ মেলে, তাহলে তাঁকে সেন্ট্রাল সিভিল রুল ১৯৭২ এর ৪৮ (১) ধারার আওতায় অবসর গ্রহণে বাধ্য করা হবে।

সেইসঙ্গে বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, সময়ের আগে অবসর গ্রহণ কোন শাস্তির বিষয় নয়। সরকারী কর্মচারীদের কর্মে বিচ্যুতির কারণে কেন্দ্রীয় সিভিল সার্ভিস রুল ১৯৬৫ অনুযায়ী এই ধরনের নিয়ম জারী করা যায়। অর্থাৎ কোন ব্যক্তি কর্মজীবনের শেষের দিকে চলে এসেছে, কিংবা ৩০ বছর কর্মজীবন অতিবাহিত করে ফেলেছেন, জনস্বার্থে সেইসকল কর্মচারিদের সরকার চাইলে অবসর দিতে পারে।

প্রতিটি কেন্দ্রীয় দফতরে এই সার্ভিস রেকর্ড রিভিউ চালু হতে চলেছে বলে জানিয়েছে কর্মীবর্গ মন্ত্রক। তবে ধারণা করা হচ্ছে, ব্যক্তির কাজের যোগ্যতা বিচার করতেই এবং প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতেই এই নিয়ম চালু করা হচ্ছে।