fbpx
আন্তর্জাতিকরাজনৈতিক

পাকিস্তানের উপর যা হয়েছে সেটা শুধুমাত্র ট্রেলার, আসল ফিল্ম এখনও বাকি রয়েছে: প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

ভারতের পাকিস্থান হামলার চারদিন পর মুখ খুললেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী৷ পাকিস্থান হামলাকে সিনেমার সঙ্গে তুলনা করে বললেন এটি শুধুমাত্র ট্রেলর, সিনেমা এখনও বাকি আছে বলেও জানান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী৷ প্রধানমন্ত্রীর খোলাখুলি এই মন্তব্যের পর আরও ফুঁসছে পাকিস্থান৷ তবে কি সন্ত্রাসবাদী দমনের জন্য ভারত আরও বড় কোনো পরিকল্পনা করছে, ভাবাচ্ছে দেশবাসীকে৷ প্রসঙ্গত, পুলওয়ামা জঙ্গী হানার অনেক আগেই ভারত সরকার বিশ্ব থেকে সন্ত্রাস নিশ্চিহ্ন করার জন্য ঘোষনা করেছিল৷ তার প্রথম পর্ব শুরু হয়েছে পুলওয়ামা জঙ্গী হামার পাল্টা জবাব পাকিস্থানের বালাকোট জঙ্গী ডেরার ওপর বোমা বিস্ফোরণ দিয়ে৷ দিল্লীতে সায়েনটিস্টদের নিয়ে অনুষ্ঠিত একটি সভা মঞ্চ থেকে প্রধানমন্ত্রী আরও জানিয়েছেন ল্যাবরেটারি থেকে প্রথম পাইলট প্রোজেক্ট হয় বলেও মন্তব্য করেন এবং পরে আসল জিনিস হয় বলেও জানান তিনি৷

প্রধানমন্ত্রী একথা থেকে স্পষ্ট্যই বোঝা যাচ্ছে এখনও অবধি পাকিস্থানের ওপর যা হয়েছে তা পুরোটাই পাইলট প্রোজেক্ট এবং আরও বড় ধরনের চমক দিতে প্রস্তুতি নিচ্ছে মোদি সরকার৷ যদিও সেটি কি তা এখনই জানা যাচ্ছে না৷ চলতি সপ্তাহেই পাকিস্থানের বালাকোটে হঠাৎ আক্রমন চালায় ভারতীয় মিরাজ বিমানবাহিনীর বারোটি বিমান৷ হাজার কেজির বিস্ফোরক পদার্থ ফেলে বালাকোট, মুজাফরবাদ ও চকোটিতে অবস্থিত জইশ জঙ্গীদের প্রধান ডেরায় প্রায় চারশো জন জঙ্গী নিধন সহ মাসুদ আজাহারের বংশও প্রায় শেষ করে দেয় ভারতীয় বায়ু সেনা৷ পাকিস্থানের রাডার ব্লক করে ভারতীয় বায়ুসেনারা অত্যন্ত সতর্কতার সঙ্গে এই বিশেষ অপারেশন চালিয়ে ব্যাপক সাফল্য পেয়েছে৷ আর ভারতীয় বায়ুসেনার এই বিশেষ সাফল্যে পাশে দাঁড়িয়ে ছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী৷ গোপনে পুরো পরিকল্পনা সেরে সারারাত জেগে বিমানহানার নেতৃত্ব দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী৷

পাশাপাশি জঙ্গী নিধনের সময়ও ভারতীয় বায়ুসেনাদের সবসময় পাশে থেকে ছিলেন তিনি। যদিও এই প্রথম বার নয় আগের বছরে প্রথম সার্জিক্যাল স্ট্রাইকেও ভারতীয় সেনাদের একই ভাবে সাহায্য করেছিলেন৷ আর দ্বিতীয়বারের জন্য দিল্লীর ব্লকে বসেই কাজ সামলালেন দেশের প্রধান৷ প্রধানমন্ত্রীর লোকসভা নির্বাচনের আগে যা চমক দেশবাসীকে দিয়েছেন তাতে তো প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী অটল বিহারী বাজপেয়ী যা পারেননি তা করে দেখিয়েছেন মোদি এমন কথা বলছে দেশবাসী৷ কারণ, প্রধানমন্ত্রী অটল বিহারী বাজপেয়ীর আমলে কার্গিল যুদ্ধের সময় পাকিস্থানে হামলা করার চেষ্টা করেছিল ভারতীয় বায়ুসেনা কিন্তু তাতে অনুমতি দেননি প্রধানমন্ত্রী কিন্তু এবার দ্বিতীয় বারের জন্য ভারত সেই অপারেশনে বিরাট সাফল্য পেয়েছে আর এতেই প্রধানমন্ত্রীর জয় জয়কার শুরু হয়েছে বিশ্বের দরবার৷ রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা মনে করছেন যে সত্যিই দেশে এরকম প্রধানমন্ত্রীর দরকার।

কারণ মোদিজির মতো সাহস এবং পরিকল্পনা মাফিক চলার জন্য যে মানুষের যে সাহস থাকার প্রয়োজন সেটি ভারতবর্ষের অন্য কোন প্রধানমন্ত্রীর মধ্যে ছিল না সেটা একমাত্র নরেন্দ্র দামোদর দাস মোদির মধ্যেই আছে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। আর মোদীজি বারে বারে তার কাজের মধ্যে দিয়ে এটাই প্রমাণ করেছেন যে তিনি ভারতবর্ষকে বিশ্বের দরবারে প্রথম স্থান দিতে চান। ভারত কাউকে ভয় পায় না ভারত চাইলে সবকিছু করতে পারে।

Open

Close