মাত্র কয়েক সেকেন্ডেই শত্রুপক্ষের ট্যাঙ্ক গুঁড়িয়ে দিতে, আরেকটি স্বদেশী মিসাইলের সফল পরীক্ষণ করল ভারত

0
130

মাই ইন্ডিয়া ডেস্কঃ বুধবার Defence Research and Development Organisation (DRDO) অন্ধ্র প্রদেশের কুরনুলে মেন পোর্টেবেল অ্যান্টি ট্যাঙ্ক গাইডেড মিসাইল (MPATGM) এর সফল পরীক্ষণ করে। তৃতীয় পরীক্ষণে এই মিসাইল সফল প্রমাণিত হয়। সেনা থার্ড জেনারেশন অ্যান্টি ট্যাঙ্ক গাইডেড মিসাইল চাইছিল, আর সেই দাবি পূরণ করতে এই মিসাইলে বানানো হয়। পরীক্ষণের সময় এই মিসাইলকে ট্রাইপড দিয়ে ফায়ার করা হয়, আর এই মিসাইলের নিশানায় ছিল একটি ট্যাঙ্ক। মিসাইল টপ অ্যাটাক মুডে লক্ষ্য ভেদ করে ট্যঙ্ককে সম্পূর্ণ ভাবে ধ্বংস করে দেয়। DRDO এর তরফ থেকে প্রস্তুত করা এই স্বদেশী পোর্টেবেল গাইডেড মিসাইল অনেক উন্নত টেকনোলজি দিয়ে পরিপূর্ণ। এই মিসাইল প্রায় আড়াই কিমি দূরে থাকা লক্ষ্যকে সহজেই ধ্বংস করে দিতে পারবে।

DRDO জানায় যে, এই মিসাইল অভেদ্য নিশানা লাগায়, আর শত্রু পক্ষের ট্যাঙ্ককে ধাওয়া করে সেটিকে ধ্বংস করে। এই মিসাইলের ওজন খুবই হালকা, এরজন্য এই মিসাইলকে এদিক ওদিক সহজেই নিয়ে যাওয়া যাবে। এই মিসাইলকে কোন উঁচু পাহাড় অথবা অন্য কোন যায়গায় সহজেই নিয়ে যাওয়া যাবে। এই মিসাইলের বিশেষত হল, দিন আর রাত, দুটো সময়েই এই মিসাইল নিজের লক্ষ্যকে ধ্বংস করতে সক্ষম। আশা করা যাচ্ছে যে, ২০২১ এর মধ্যে এই মিসাইল প্রচুর পরিমাণে উৎপাদন হবে। সামনা-সামনি লড়াইতে মেন পোর্টেবেল অ্যান্টি ট্যাঙ্ক গাইডেড মিসাইলে (MPATGM) সেনার অনেক কাজে আসবে।

এশিয়াতে পাকিস্তান ভারতের আগাগোড়াই শত্রু দেশ হিসেবে পরিচিত। কিন্তু চীনও মাঝে মাঝে ভারতকে লাল চোখ দেখায়। আর সেই কারণে যদি যুদ্ধের পরিস্থিতি তৈরি হয়, তাহলে মেন পোর্টেবেল অ্যান্টি ট্যাঙ্ক গাইডেড মিসাইলে (MPATGM) শত্রুদের ঘুম উড়াতে যথেষ্ট বলে প্রমাণিত হবে।