fbpx
আন্তর্জাতিকদেশ

মোদী সরকার কিনতে চলেছে বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী লড়াকু বিমান। এই একটা বিমান দিয়েই ধ্বংস করা যাবে পুরো পাকিস্তান।

মোদি সরকার ক্ষমতায় আসার পর গত বছরের সেপ্টেম্বরে প্রথম সার্জিক্যাল স্ট্রাইক হয়েছিল। এরপর চলতি বছরের ফেব্রুয়ারীতে ফেরও এক ঐতিহাসিক সার্জিক্যাল স্ট্রাইক করেছেন তিনি। যা ভারতের কাছে এক বিরাট পাওয়া। ভারত কোটি কোটি টাকা খরচ করে মিরাজ বিমান দিয়ে পড়শী দেশ পাকিস্থানকে উচিত শিক্ষা দিয়েছে। কিন্তু মিরাজ বিমানের সাফল্যের থেকেও আরও বড় সাফল্য পেতে উদ্যত প্রধানমন্ত্রী। ততকালীন কেন্দ্রীয় সরকারের আমলে সেভাবে দামী ও লড়াকু যুদ্ধ বিমান কেনা ভারতের সম্ভব হয়নি। বিভিন্ন রাজনৈতিক কারণে তা আটকে গেছে। কিন্তু এবার ভারত নাকি এক দামি ও লড়াকু যুদ্ধবিমান কিনতে চলেছে। পুরাতন জেট ফাইটার গুলি যেভাবে ধীরে ধীরে ক্ষমতা হারাচ্ছে তাতে ভারতে যেকোনো বড় ধরনের হামলা হলে তা মোকাবিলা করা কার্যত অসম্ভব হয়ে পড়বে। তাই পাকিস্থান বা অন্যান্য শত্রুভাবাপন্ন দেশ যদি ভারতকে আক্রমন করে তাহলে যাতে বিমান ক্র্যাশ না হয় সেই দিকটি খতিয়ে দেখছে ভারত।

এর আগে কেন্দ্রীয় সরকারের আমলে বিভিন্ন চুক্তি সই হলেও ভারতের সামরিক বাহিনীর ওপরে বিশেষ নজরদারি চালানো হয়নি। এরফলে দেশের সামরিক শক্তি অনেকাংশে হ্রাস পেয়েছে। তাই ভারতের সামরিক শক্তি সুদৃঢ় করার জন্য এই নয়া পদক্ষেপ নিতে চলেছে ভারত। গত বুধবারই পাকিস্থানের একটি এফ-16 বিমানকে তাড়া করতে গিয়ে যেভাবে ভারতীয় জেট ফাইটারটি ক্র্যাশ হয়েছিল তাতে বেশ চিন্তায় রয়েছে ভারতের প্রশাসন। এভাবে যদি সমস্ত বিমান ক্র্যাশ হয় তাহলে অভিনন্দনের মতো আরও কোনো বায়ুসেনা পাকিস্থানের হাতে আটক পড়তে পারে এরফলে দেশের বিরাট ক্ষতির সম্ভাবনা থাকবে তাই আগে থেকেই আঁটোসাঁটো ব্যবস্থা গ্রহণ করতে বদ্ধপরিকর ভারত। তাই সবচেয়ে দামি কোনো বিমান কিনতে চলেছে ভারত। যাতে ভবিষ্যতে আর এই রকম পরিস্থিতি পড়তে না হয় ভারতীয় সেনাবাহিনীকে। যাতে তারা যুদ্ধ করে সুরক্ষিত অবস্থায় দেশে ফিরে আসতে পারে সেই জন্যই ভারত সরকারের এমন পদক্ষেপ।

শোনা যাচ্ছে আমেরিকা থেকে উন্নত প্রযুক্তি সম্পন্ন একটি বিমান চড়া দামে কিনতে পারে ভারত। এনিয়ে বিশদে আলচনাও শুরু হয়েছে ওপর মহলে। বিবেচনা করে দেখা গেছে আমেরিকার বিমান এফ-35 কিনতে পারে ভারত। এই বিষয়ে মত দিয়েছে ভারতীয় বায়ুসেনাও। তাই ভারতীয় বায়ুসেনা ও প্রশাসনের যৌথ আলচনার পর আমেরিকার বিমান প্রস্তুতকারক কোম্পানিকে বিমানটি কেনার ব্যাপারে বিশেষ পত্রও পাঠানো হয়েছে। শোনা গেছে আমেরিকার যে বিমান ভারত কিনতে চলেছে সেই ধরনের বিমান ইজরায়েল ছাড়া অন্য কোনো দেশে নেই। ভারতীয় বায়ুসেনা শক্তিশালী হলেও আমেরিকার ওই বিমানের মতো কোনো শক্তিশালী বিমান এতদিন ছিল না। তাই কম ক্ষমতা সম্পন্ন ভারতীয় পুরানো প্রযুক্তির বিমান দিয়ে যেকোনো সময়েই ভারতীয় বায়ুসেনাকে পরাজিত করতেই পারে। তাই এবার বহু টাকা খরচ করে বিদেশ থেকে বিমান এনে দেশীয় বায়ু সেনাদের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে চায় ভারত সরকার।

আর এই ব্যাপারে ইতিমধ্যেই সমস্ত রকম বৈঠক করে ফেলেছে ভারত সরকার এবং বায়ুসেনা অধিকারিকরা। যদি একবার এই বিমান ভারতের হাতে চলে আসে তাহলে পাকিস্তান তো দূর চীন পর্যন্ত ভয় পাবে ভারতের সাথে যুদ্ধ লাগতে। আর সেই জন্যই যত দ্রুত সম্ভব সেই উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন বিমান ভারত সরকার আনার চেষ্টা করছে।

Close