মাই ইন্ডিয়া ডেস্কঃ ভারতীয় নৌসেনার (Indian Navy) সাবমেরিন আইএনএস খান্ডেরি (INS Khanderi) কে নৌসেনার হাতে তুলে দেওয়া হল। প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং আইএনএস খান্ডেরিকে নৌসেনার হাতে তুলে দেন। আইএনএস খান্ডেরির নির্মাণে পুরো ১০ বছর সময় লাগল। ইঞ্জিনিয়ার দের দিন রাতের পরিশ্রম আর ওনেক রকম পরীক্ষা নিরীক্ষার পর আইএনএস খান্ডেরি এবার নৌসেনায় নিযুক্ত হতে পারল। এই সাবমেরিন সমুদ্রে ৩৫০ মিটার পর্যন্ত ডুবে থাকতে পারে। আইএনএস খান্ডেরি থাকা স্থায়ীভাবে চৌম্বকীয় চালিত মোটর এর জন্য এই ডুবোজাহাজ একদম সাইলেন্ট থাকে, আর এর খবর শত্রুরা পায়না।

খান্ডেরির নাম মহান মারাঠা শাসক ছত্রপতি শিবাজি মহারাজ এর খান্ডেরি দুর্গের নামে রাখা হয়েছে। ওই দুর্গের সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল, এটি জলের মধ্যে খানে ছিল, মানে চারিদিক দিয়ে জলে ঘেরা, আর এই কারণেই শত্রুরা এই দুর্গ কোনদিনও জয় করতে পারেনি। INS Khanderi সমুদ্রে পুরো ৪৫ দিন পর্যন্ত থেকে ১২ হাজার কিমি দূরত্ব অতিক্রম করতে পারবে। এর আগে INS কোলাভরি স্করপিয়ন শ্রেণীর প্রথম ডুবোজাহাজ ছিল। এরপর INS খান্ডেরির নির্মাণ শুরু হয়। ভারতীয় নৌসেনা বিগত কয়েক বছর ধরে INS কোলাভরির ব্যাবহার করে আসছে। INS খান্ডের ওই ডুবো জাহাজের উন্নত ভার্সন। এবং কোলাভরির থেকেই দ্বিগুণ শক্তিশালী।

INS খান্ডের প্রায় ৬৭.৫ মিটার দীর্ঘ, আর ১২.৩ মিটার চওড়া। এই সাবমেরিন সমুদ্রে ৩৫০ মিটার পর্যন্ত ডুবে থাকতে পারে। এর সাথে সাথে এটি জলের মধ্যে একদম চুপচাপ ভাবে থাকতে পারে। INS খান্ডেরি নিজের বেস থেকে ১২ হাজার কিমি দূর পর্যন্ত সমুদ্রে দৌড় লাগাতে পারে।

INS খান্ডেরি সমুদ্রের ভিতরে প্রায় ২০ মাইল প্রতি ঘণ্টা, আর সমুদ্রের উপরে ১১ মাইল প্রতি ঘণ্টার গতিতে ছুটতে পারে। INS খান্ডেরিতে মোট ৩৬০টি ব্যাটারি আছে। প্রতিটি ব্যাটারির ওজন ৭৫০ কেজি। INS থাকা চৌম্বকীয় চালিত মোটর এর জন্য সমুদ্রের নীচে শত্রুদের চোখে ধুলো দিয়ে একবারে শান্ত থাকতে পারে।