দুই দশকের লড়াইয়ের পর অবশেষে আয়ারল্যান্ডে দেশের প্রথম হিন্দু মন্দির পেল সনাতন ধর্মাবলম্বীরা

ঐতিহাসিক মুহূর্তের সাক্ষী থাকল আয়ারল্যান্ডে (Ireland) বসবাসকারী ভারতীয়েরা। ২২ অগস্ট আয়ারল্যান্ডের ডাবলিনে প্রথম প্রতিষ্ঠিত হল হিন্দু মন্দির। ভারতীয় ঐতিহ্য ও সংস্কৃতি রক্ষায় ডাবলিনে বহুদিন ধরেই একটি হিন্দু মন্দিরের দাবি জানিয়ে আসছিলেন সেখানকার ভারতীয়রা। কারণ এতদিন সেখানে হিন্দুদের জন্য কোনও উপাসনা গৃহ ছিল না।

এমনকী কোনও ধর্মীয় উৎসবেও তাঁরা একত্রিত হতে পারতেন না। একসঙ্গে প্রার্থনা বা যে কোনও অনুষ্ঠানের জন্য ভাড়া নিতে হত কমিউনিটি হল। এমনকী নামাজ পড়ার জন্যও একসঙ্গে কোনও একটি হল ভাড়া নিতেন সেখানে বসবাসকারী ভারতীয় নাগরিকেরা। এছাড়াও সেখানে হিন্দু সংস্কৃতির প্রচারের জন্যও অনেক দিন ধরে চেষ্টা করা হচ্ছিল।

আর এই চেষ্টা তলছে ২০ বছরেরও বেশি সময় ধরে। আয়ারল্যান্ডের বৈদিক হিন্দু সংস্কৃতির পরিচালক সুধাংশ ভর্মা ও আরও কিছু মানুষের প্রচেষ্টাতেই আয়ারল্যান্ডে হিন্দু মন্দির তৈরির এই স্বপ্ন অবশেষে সফল হয়েছে। রোহিত শ্রীবাস্তব নামের আর এক আয়ারল্যান্ডবাসী জানালেন, অনেকদিন পর মন্দির দেখে বাড়ি ফেরার মতো শান্তি পাওয়া গেল।

তবে শুধুমাত্র মন্দিরই নয়, আরও বেশ কিছু পরিকল্পনা রয়েছে তাঁদের। সেখানকার ভারতীয়দের জন্য বেশ কিছু উন্নয়নমূলক কাজ করবেন তাঁরা। আয়ারল্যান্ড জুড়ে হাজার হাজার গাছ লাগানোর পরিকল্পনা রয়েছে। এছাড়াও যারা গৃহহীন তাদের জন্য থাকার বন্দোবস্ত করা হবে। সব গরীবেরা যাতে দুবেলা দুমুঠো খেতে পায় সেই ব্যবস্থাও করবে এই মন্দির কমিটি। যে কোনও হিন্দু উৎসবই পালন করা হবে এই মন্দিরে। আয়ারল্যান্ড প্রজাতন্ত্রে এখন প্রায় ২৫ হাজার হিন্দুর বসবাস।