নতুন প্রোজেক্টের ঘোষণা ইসরো’র, টাকার পরিমাণ এত বেশি যে! সেই টাকা দিয়ে আগামী কয়েক দশক অনায়াসে চলতে পারবে পাকিস্তান!

মাই ইন্ডিয়া ডেস্কঃ চন্দ্রযান-২ (Chandrayaan 2) এর ল্যান্ডার বিক্রম (Vikram Lander) চাঁদের মাটিতে অবতরণের ১৪ দিন সম্পূর্ণ হল। শনিবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯ এ ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থা (ISRO) এর প্রধান কে সিবান (K Sivan) মিডিয়ার সামনে এই নিয়ে কথা বলেন। ইসরো প্রধান কে সিবান বলেন, আমরা বিক্রম ল্যান্ডারের সাথে যোগাযোগ স্থাপনে সফল হতে পারিনি। কিন্তু চন্দ্রযান-২ এর অরবিটর একদম সঠিক কাজ করছে। ওই অরবিটরে আটটি উপকরণ আছে, যার আটটি আলাদা আলাদা কাজও আছে। আর সেই উপকরণ গুলো একদম সঠিক কাজ করছে, যার জন্য তাঁদের প্ল্যান করা হয়েছিল। এরপর ইসরো প্রধান জানান যে, এবার আমাদের প্রাথমিকতা এর থেকে আরও বড় মিশন গগনযান (Gaganyaan Mission) নিয়ে প্রস্তুতি করছি।

দশ হাজার কোটি টাকার এই মিশনের ঘোষণা গত বছর স্বাধীনতা দিবসে লাল কেল্লার প্রাচীর থেকে জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণ দেওয়ার সময় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী জানিয়েছিলেন। গগনযান মিশন অনুযায়ী, তিনজন মহাকাশচারীকে নিয়ে এই যান ২০২১ এ মহাকাশে উড়ে যাবে। ইসরো আর ভারতীয় বায়ুসেনা এই প্রোজেক্টে একসাথে কাজ করছে। বায়ুসেনা তাঁদের সবথেকে দক্ষ তিন পাইলটকে নির্বাচিত করে ইসরোর কাছে পাঠাবে। এরপর ইসরো তাঁদের ট্রেনিং দেবে। ভারতের কাছে এই গগনযান মিশন খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আর এটা ভারতের কাছে প্রথম এমন মিশন হতে চলেছে, যেখানে ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থা তিনজন মানুষকে মহাকাশে পাঠাবে।

গগনযান ইসরো ভারতের প্রথম মানব মিশন। ইসরো এটিকে ২০২১ সালের মধ্যে সম্পূর্ণ করতে চলেছে। এই মিশনের জন্য পাইলটদের বাছাই পর্বও শুরু হয়েছে। প্রথম তালিকায় ২৫ জন পাইলটের নাম সিলেক্ট করেছে ভারতীয় বায়ুসেনা। গগনযান এর জন্য যাদের নির্বাচিত করা হয়েছে, তাঁদের মহাকাশ থাকার জন্য প্রশিক্ষণও দেওয়া হবে। আর এই প্রশিক্ষণ নেওয়ার জন্য রাশিয়া ভারতকে সাহায্য করবে।

Related Articles