করণ জোহরের পদ্মশ্রী পুরস্কার ফিরিয়ে নেওয়ার দাবি! ঘোর বিপাকে পরিচালক

করন জোহরের (karan johar) বিরুদ্ধে একের পর এক তোপ দেগে চলেছেন কঙ্গনা রানাওয়াত (kangana ranawat)। শুধুমাত্র সোশ‍্যাল মিডিয়াতেই সীমাবদ্ধ থাকেনি তাঁর প্রতিবাদ। করনের মুখের উপরেই তাঁকে ‘নেপোটিজমের ধ্বজাধারী’ বলে কটাক্ষ করেছেন কঙ্গনা।

ফের একবার অভিনেত্রীর সোশ‍্যাল মিডিয়া টিমের তরফে নিশানা বানানো হয়েছে করনকে। পরিচালক পাকিস্তানকে সমর্থন করেন এবং ভারতীয় সেনার বিরুদ্ধে ভারত বিরোধী ছবি তৈরি করেন। এমনই বিষ্ফোরক অভিযোগ তুলে সরকারের কাছে করনের পদ্মশ্রী পুরস্কার ফিরিয়ে নেওয়ার আবেদন জানিয়েছে কঙ্গনার টিম।

টুইটে তারা লিখেছে, ‘ভারত সরকারকে আমি আবেদন করছি করন জোহরের পদ্মশ্রী পুরস্কার ফিরিয়ে নেওয়া হোক। একটি আন্তর্জাতিক মঞ্চে তিনি আমাকে বলেছিলেন ইন্ডাস্ট্রি ছেড়ে দিতে, সুশান্তের কেরিয়ার ধ্বংস করার ষড়যন্ত্র করেছেন। উরি যুদ্ধের সময় তিনি পাকিস্তানকে সমর্থন করেছেন আর এখন ভারত বিরোধী ছবি বানিয়ে ভারতীয় সেনাকে অসম্মান করেছেন।’

আসলে কিছুদিন ধরেই সংবাদ শিরোনামে রয়েছে করন জোহর প্রযোজিত ছবি ‘গুঞ্জন সাক্সেনা: দ‍্য কার্গিল গার্ল’। ‘অযৌক্তিক নেতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি’তে দেখানো হয়েছে ভারতীয় বায়ুসেনাকে, ‘গুঞ্জন সাক্সেনা: দ‍্য কার্গিল গার্ল’ এর বিরুদ্ধে এমনই অভিযোগ এনে সেন্সর বোর্ডে চিঠি দেওয়া হয়েছে IAF এর তরফে।

এবার আরও এক গুরুতর অভিযোগ করেছেন আরেক ফ্লাইট লেফটেন‍্যান্ট শ্রীবিদ‍্যা রঞ্জন। তিনি গুঞ্জন সাক্সেনার সঙ্গে উধমপুরে ভারতীয় বায়ুসেনার বেসে একসঙ্গে প্রশিক্ষণ নিতেন। শ্রীবিদ‍্যার দাবি, গুঞ্জন নন, তিনিই প্রথম মহিলা যিনি ভারতীয় বায়ুসেনার তরফে কার্গিল গিয়েছিলেন।

তাঁর এই অভিযোগের ভিত্তিতেই করনকে পাল্টা তোপ দেগেছেন কঙ্গনা রানাওয়াত। তবে এখনও পর্যন্ত এই বিষয়ে মুখ খুলতে দেখা যায়নি করন জোহরকে।