তৃণমূলে ব্যাপক ভাঙন! বিজেপিতে যোগ দিলেন টলিপাড়ার শতাধিক অভিনেতা, অভিনেত্রী

তৃণমূলের (All india trinamool congress) চোখ রাঙানি ও শাসানি কার্যত কাজে এলনা। শাসক দলের রক্ত চক্ষুকে ‘ডোন্ট কেয়ার’ করে শনিবার স্বাধীনতা দিবসের দিনেই টালিগঞ্জ ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি ফেডারেশন অফ সিনে টেকনিশিয়ানের ১২০ জন কলাকুশলী বিজেপি সমর্থিত বঙ্গীয় চলচ্চিত্র সংস্কৃতি সংঘ বা  বিসিএসএসতে যোগদান করলেন  যা যথেস্ট তাৎপর্যপূর্ণ। সংঘের তরফে আশা আগামী দিনে আরও কলাকুশলী এভাবেই শাসক দলের থেকে যোগদান করবে।

এদিন বিজেপি কেন্দ্রীয় সম্পাদক রাহুল সিনহা, দক্ষিণ কলকাতার বিজেপি জেলা সভাপতি সোমনাথ বন্দোপাধ্যায় ও বিজেপি নেত্রী তথা টলিউডের নায়িকা কাঞ্চনা মৈত্রর উপস্থিতিতে বিসিএসএস-এর সাধারণ সম্পাদক মিলন চৌধুরি হাত ধরে এই কলাকুশলীরা যোগদান করেন। এ ছাড়াও ৯৫ নম্বর ওয়ার্ডের স্থানীয় বিজেপি নেতা দিলীপ চন্দের নেতৃত্বে এদিন প্রায় ৫০ জন কর্মী সমর্থক তৃণমূল ও সিপিএম ছেড়ে বিজেপি সমর্থিত সংগঠনের পতাকা স্ব-ইচ্ছায় হাতে তুলে নেন।

স্বাধীনতা দিবসের মাঝ রাত থেকেই পতাকা লাগানো নিয়ে তৃণমূল ও বিজেপি দুই দলের মধ্যে উত্তেজনার পারদ চড়তে থাকে। বিজেপির পতাকার ওপর জোর করে তৃণমূলের পতাকা লাগিয়ে দেয়। হুমকি দেওয়া হয় পতাকা খুলে দিলে অনুস্ঠান করতে দেওয়া হবে না।

এমনকি স্থানীয় বিজেপি নেতা দিলীপের উপর হামলাও চালায় তৃণমূল দুষ্কৃতীরা। সব কিছু উপেক্ষা করেই চলেছে যোগদান পর্ব। এক সক্ষাৎকারে মিলন চৌধুরি বলেন, ‘আমাদের রক্ত তো আর ওদের মত নয়। আমরা ওদের পতাকাকে ভাল করে সম্মান জনিয়ে রেখে দিয়েছি। কারণ আমরা বিজেপি করি সম্মান দিতে জানি। কেউ যদি আমাদের অস্সম্মানিত করে তাকে দেখিয়ে তার সামনে আমরা আমাদের কাজ করব। বিসিএসএস ‘বিশ্বাস গড়ে’ ভাঙন ধরিয়ে দিয়েছে। তার ফল আজ ফেডারেশন ভেঙে ওপেনলি সকলে জয়েন করছে। আগামী মাসের মধ্যে ফেডারেশন এর মোটামুটি ৬ টা গিল্ড ভেঙে যাবে। প্রত্যেকেই বিসিএসএস-এর সংগঠনে যোগদান করবে। বেহালা অফিস অথবা ট্রাম ডিপোর সামনে আমরা স্টেজ করে আমাদের জেলা সভাপতি সোমনাথ ব্যানার্জীর হাতদিয়ে প্রায় ২৫০০ থেকে ৩০০০ কলাকুশলীদের বিজেপিতে জয়েন করিয়ে দেব। সকলে পা বাড়িয়ে আছেন।’

 

Related Articles