গন্ধ শুকেই ৩৬৫ টি মামলার নিষ্পত্তি করেছিল রকি, অকালেই জানালো সবাইকে বিদায়

কুকুর মানুষের পরম বন্ধু। মহারাষ্ট্র (Maharashtra) পুলিশের বাহাদুর রকি (rocky) তা জীবন দিয়ে প্রমাণ করে গেছে। যে কোন অপরাধের ক্ষেত্রে দোষীকে খুঁজে বের করা হোক, কিংবা বোমা নিষ্ক্রমণ, সবেতেই এক্সপার্ট ছিল রকি। মহারাষ্ট্র পুলিশের এই সাথী গন্ধ শুঁকে তার গোটা জীবনে মোট ৩৬৫ টি কেসের সমাধান করেছে। রবিবার রকির মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে মহারাষ্ট্র পুলিশ মহলে।

মহারাষ্ট্র পুলিশের তরফে এক ট্যুইট বার্তায় জানানো হয়েছে, বিগত কিছুদন ধরেই রকির ডান পায়ে একটি ক্ষত দেখা দিয়েছিল। তা থেকেই সারা শরীরে ঘা ছড়িয়ে পড়ে। জুন মাস থেকে পুণের এক পশু হাসপাতালে বেশ কিছুদিন ধরেই চিকিৎসাধীন ছিল রকি। কিন্তু শেষ পর্যন্ত মৃত্যুর সাথে লড়াইয়ে জীবনের মায়া ত্যাগ করে রবিবার বিকেল চারটের সময় মারা যায় রকি’।

মুম্বই, ঠাণে বা মহারাষ্ট্র গোপনে করা অপারেশন হোক কিংবা সর্বসমক্ষে দোষীকে খুঁজে বের করা, সবেতেই দক্ষ ছিল এই রকি। পুলিশ পরিবারের এই সহযোদ্ধাকে হারিয়ে মর্মাহত গোটা মহারাষ্ট্র পুলিশ বাহিনী। বিদায় কালে রকিকে যোগ্য সম্মান জানিয়ে তাঁর শেষকৃত্য সম্পন্ন করেছে মহারাষ্ট্র পুলিশ।

কর্মজীবনের এক বহুমূল্য সম্পদ তথা এক সঙ্গীকে হারিয়ে মহারাষ্ট্র পুলিশের এক কর্তা জানিয়েছেন, ‘একটা সময়ে একই দিনে মুম্বই, ঠাণের দুটি অপারেশনের ক্ষেত্রে রকিকে চাওয়ার জন্য আবেদন করা হয়েছিল। সেদিন সকালে ঠাণের অপরাধের কিনারা করেই বিকালেই মুম্বইয়ের দোষীকে ধরতে পুলিশের সাহায্য করেছিল রকি’।

বিড থানার পুলিশের সঙ্গী রকির অকাল মৃত্যুতে মহারাষ্ট্রের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অনিল দেশমুখও ট্যুইট করেছেন। ‘আলবিদা রকি’ নাম দিয়ে তিনি লিখেছেন, ‘রকির জন্য আমার হৃদয়ে গভীর ভালোবাসা রইল’।