করোনার সাথে মোকাবিলায় নজির বিহীন সিদ্ধান্ত নিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী

0
67

করোনাভাইরাসের আশঙ্কায় গত শুক্রবারই নবান্নের তরফে জানানো হয়েছিল সমস্ত স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়-মাদ্রাসা ৩১ মার্চ পর্যন্ত বন্ধ থাকবে। সোমবার নবান্নে প্রশাসনিক বৈঠকের পরে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়ে দিলেন, সেই ছুটি বাড়ানো হচ্ছে। ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত বন্ধ থাকবে রাজ্যের সমস্ত সরকারি ও বেসরকারি স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়-মাদ্রাসা। আইসিডিএস স্কুলও বন্ধ থাকবে। মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ওই সমস্ত স্কুলে মিড ডে মিলের যে রান্না হয় তার কাঁচা মাল ছাত্রছাত্রীদের বাড়িতে পৌঁছে দেবে রাজ্য সরকার।

এদিন মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন বোর্ডের যে সমস্ত পরীক্ষা চলছে, সেগুলি চলবে। তবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে সাধারণ পঠনপাঠন বন্ধ থাকবে।

বাংলায় এখনও পর্যন্ত ৩ লক্ষ ২৪ হাজার মানুষের স্ক্রিনিং হয়েছে বলে জানান মুখ্যমন্ত্রী। একইসঙ্গে তিনি বলেন, পাঁচহাজার মানুষকে নিজেদের বাড়িতেই কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। তাঁদের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখছে রাজ্যের স্বাস্থ্য দফতর।

মমতা এদিন সাংবাদিক বৈঠকে বলেন, সতর্কতামূলক পদক্ষেপ হিসেবেই এই সিদ্ধান্ত নিচ্ছে রাজ্যসরকার। ইতালি, ফ্রান্স, ইরান, স্পেন-সহ একাধিক দেশের করোনা আক্রান্তের তথ্য দিয়ে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, তৃতীয় ও চতুর্থ সপ্তাহে আক্রান্তের সংখ্যা লাফিয়ে লাফিয়ে বেড়েছে। সেই পরিসংখ্যানের কথা মাথায় রেখেই সরকার স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়-মাদ্রাসার ছুটি বাড়াল বলে জানান মমতা।

করোনাভাইরাস নিয়ে গুরুতর পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে সারা পৃথিবীতে। বাদ নেই ভারতও। এদিন মুখ্যমন্ত্রী বলেন, রাজ্যসরকার যে কলসেন্টার চালু করেছে, ইতিমধ্যেই সেখানে পাঁচহাজার কল এসেছে। ফোনে পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

পশ্চিমবঙ্গে এখনও করোনা আক্রান্তের সন্ধান পাওয়া যায়নি। তবে রাজ্য সরকার ইতিমধ্যেই একাধিক সতর্কতা অবলম্বন করেছে। অনেক হাসপাতালে চালু করা হয়েছে আইসোলেশন ওয়ার্ড। কোনও জায়গায় করোনা সন্দেহ হলেই তাঁকে পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে। মুখ্যমন্ত্রী এদিনও আবেদন করেন, “কেউ প্যানিক করবেন না। গুজব ছড়াবেন না। সতর্ক থাকুন।”