রাজ্য অথবা মানুষের কথা ভেবে না, রাজনীতি করার জন্য বারবার লকডাউনের দিন পাল্টাচ্ছেন মমতাঃ দিলীপ ঘোষ

শনিবার সকালে মর্নিং ওয়াকে বেরিয়ে তৃণমূল নেত্রী মমতা ব্যানার্জীর (Mamata Banerjee) বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ আনলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ (Dilip Ghosh)। তিনি বলেন, মানুষের সুবিধা অসুবিধের কথা ভেবে নয়, শুধুমাত্র রাজনীতি করার জন্যই উনি লকডাউন ডেকেছেন। আর এই কারণে তিনি বারবার লকডাউনের দিন ও পাল্টাচ্ছেন। তিনি বলেন, রাজ্য সরকারকে বারবার লকডাউনের দিন পাল্টানোর জন্য জবা দিতেই হবে। প্রসঙ্গত, এই নিয়ে চারবার রাজ্যে লকডাউনের দিনক্ষণ পাল্টানো হয়েছে। আবার ২৮ আগস্টও লকডাউন প্রত্যাহারের দাবি তুলেছে তৃণমূল ছাত্র পরিষদ। কারণ সেই দিন তাঁদের প্রতিষ্ঠা দিবস হিসেবা পালিত হয়।

দিলীপ ঘোষ রাজ্যের করোনা পরিস্থিতি নিয়েও রাজ্য সরকারকে কটাক্ষ করতে ছারেন নি। উনি বলেন, আজ যারা করোনা পজেটিভ, কাল আবার নেগেটিভ হয়ে যাচ্ছে। দিলীপ ঘোষ বলেন, একটা দুটো না রাজ্যে বহু মানুষের ক্ষেত্রে এমনটা হয়েছে। আর এই কারণে অনেক সমস্যা সৃষ্টি হয়েছে। উনি বলেন, রাজ্য সরকারকে করোনা পরীক্ষা নিয়ে আরও সচেতন হতে হবে।

এছাড়াও রাম মন্দিরের জায়গায় যারা হাসপাতাল তৈরির দাবি করছেন, তাঁদেরও একহাতে নিয়েছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি। তিনি বলেন, গোটা দেশের ঐতিহ্য রাম মন্দির হিন্দুরা পাঁচশ বছর ধরে এই দিনটির অপেক্ষা করছিল। অবশেষে তাঁদের স্বপ্ন পূরণ হয়েছে। উনি বলেন, হাসপাতালের সংস্কৃতি থেকে মন্দিরের সংস্কৃতি অনেক বেশি দরকারি। উনি বলেন, অযোধ্যার কেউই এই মন্দিরের জন্য বিরোধিতা করেন নি। বহু মানুষ এই মন্দির আন্দোলনের সাথে যুক্ত হয়ে নিজের প্রাণ বিসর্জন দিয়েছেন।

উল্লেখ্য, পাঁচই আগস্টের দিন রাজ্যে লকডাউন জারি করার জন্য মমতা সরকারকে তুলোধোনা করেছিলেন দিলীপ ঘোষ। তিনি বলেছিলেন মমতা ব্যানার্জী ইচ্ছে করে এই দিনে লকডাউন রেখেছেন। এমনকি তিনি এও বলেছিলেন যে, এই ঐতিহাসিক দিনে লকডাউন রাখার প্রতিশোধ নেবে হিন্দুরা।