নিউ ইয়র্ক থেকে নায়াগ্রা আর বুর্জ খলিফা … চারিদিক তেরঙাময়

করোনা আবহে একাধিক বিধি নিষেধ মেনে পালিত হয়েছে ৭৪ তম স্বাধীনতা দিবস। তবে দেশের জাতীয় পতাকা পতপত করে উড়েছে গোটা বিশ্ব জুড়ে। বুর্জ খলিফা, নায়াগ্রা কিংবা টাইমস স্কোয়ার, ১৫ অগস্টে সবই যেন তেরঙ্গা।

ভারতের স্বাধীনতা দিবসে রং বদলে গেল নায়াগ্রার জলের। তাতে মিশে গেল তেরঙ্গার ছটা। শুধু কি তাই! গোটা কানাডা জুড়ে উড়ল ভারতের জাতীয় পতাকা। তেরঙ্গা লাগানো গাড়ি দিয়ে কানাডায় হলো “Car Rally”। সে দেশে খোদ ভারতের কনস্যুলেট জেনারেল উদ্বোধন করলেন সেই শোভাযাত্রার।

সারা বিশ্বে সবচেয়ে উঁচু বিল্ডিং “বুর্জ খলিফা।” সেখানেও ভারতের স্বাধীনতা দিবসকে সম্মান জানালো গোটা দুবাই। ভারতের স্বাধীনতার সন্ধেয় “বুর্জ খলিফার” রঙ গেরুয়া-সাদা- সবুজ। মাঝখানে অশোক চক্র। ঠিক যেন ভারতের রঙে রেঙেছে বিশ্বের সবচেয়ে উঁচু বিল্ডিং।

ঐতিহাসিক টাইমস স্কোয়ারেও উড়ল দেশের জাতীয় পতাকা। ভারতীয়-আমেরিকানদের মুখে টাইমস স্কোয়ারে মুখরিত হলো দেশাত্মবোধক গান ও স্লোগানে। সেখানেও জাতীয় পতাকা উত্তোলনে সামিল ছিলেন নিউ ইয়র্কে ভারতের কনস্যুলেট জেনারেল রণধির জয়সওয়াল।

করোনার কোপে কিছুটা হলেও ম্লান হয়ে পালিত হয়েছে দেশের স্বাধীনতা দিবস। বদল এসেছে লাল কেল্লা থেকে রেড রোড, সর্বত্র। কিন্তু তার মধ্যেই প্রায় সারা বিশ্বে পালিত হলো ভারতের স্বাধীনতা দিবস। দেশের সঙ্গে স্বাধীনতার সুখ ভাগ করে নিল গোটা নায়াগ্রা থেকে বুর্জ হয়ে সমগ্র টাইমস স্কোয়ার।