রাজ্যে এখন কোন শ্রমিক ট্রেন নেওয়া যাবে না! স্পষ্ট জানিয়ে দিল মমতা সরকার

রাজ্যের মুখ্যসচিব রাজীব সিনহা (Rajiva Sinha) শনিবার ভারতীয় রেলওয়ে (Indian Railways) বোর্ডের চেয়ারম্যানকে একটি চিঠি পাঠান। ওই চিঠিতে তিনি জানান, আপাতত জেলা প্রশাসন সুপার সাইক্লোন আমফানের কারণে উদ্ধারকার্য আর পুনর্বাসের কাজে ব্যস্ত, এরজন্য আগামী কিছুদিন পর্যন্ত রাজ্যে স্পেশ্যাল ট্রেন রিসিভ করা সম্ভব হবে না। তাই রেল বোর্ডের কাছে অনুরোধ আগামী ২৬ মে পর্যন্ত রাজ্যে যেন কোন শ্রমিক স্পেশ্যাল ট্রেন না পাঠানো হয়।

রাজ্যে সুপার সাইক্লোন আমফানের কারণে ৮০ জনের মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী হেলিকপ্টারে করে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা গুলোর পরিদর্শন করেন। এরপর উনি রাজ্য সরকারকে ১ হাজার কোটি টাকা দেওয়ার কথা ঘোষণা করেন। এমনকি উনি এই ঝড়ের মোকাবিলার জন্য রাজ্য সরকারের প্রশংসাও করেন। এছাড়াও মৃতদের পরিবার পিছু ২ লক্ষ আর আহতদের ৫০ হাজার করে আর্থিক সাহায্য দেওয়ার কথা ঘোষণা করেন তিনি।

এই মাসের শুরুতে ট্রেনের সঞ্চালন নিয়ে পশ্চিমবঙ্গ সরকার আর কেন্দ্র সরকারের মধ্যে সঙ্ঘাত বাধে। ৮ মে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহ পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জীকে চিঠি লিখেছিলেন। ওই চিঠিতে অমিত শাহ অভিযোগ করে লিখেছিলেন যে, রাজ্য সরকার পরিযায়ী শ্রমিকদের নিয়ে আসা ট্রেন রাজ্যে ঢুকতে অনুমতি দিচ্ছে না। আর এই কারণে শ্রমিকেরা নানান সমস্যার সন্মুখিন হচ্ছে।

উনি চিঠিতে অভিযোগ জানিয়ে বলেছিলেন, এভাবে রাজ্যে পরিযায়ী শ্রমিকদের ঢুকতে না দেওয়াটা অন্যায়। দেশের বিভিন্ন অংশে আলাদা-আলদা গন্তব্যস্থলে আটকে পড়া পরিযায়ী শ্রমিকদের বাড়ি ফেরানোর জন্য কেন্দ্র সরকার শ্রমিক স্পেশ্যাল ট্রেন চালাচ্ছে। কেন্দ্র সরকার থেকে জানানো হয়েছিল যে, এই শ্রমিক স্পেশ্যাল ট্রেনের মাধ্যমে দুই লক্ষের বেশি শ্রমিকদের তাদের বাড়ি পৌঁছে দেওয়া হয়েছে।