নোবেলের হারের শোকে, লুঙ্গির ফাঁস দিয়ে মরার চেষ্টা বাংলাদেশি যুবকের

বাংলাদেশ ডেস্কঃ সারেগামাপা শেষ হলেও, শেষ হয়নি নোবেল কে নিয়ে মাতামাতি। এই প্রথম কোন বাংলাদেশি গায়ক ভারতের এতো বড় অনুষ্ঠানে ফাইনালে চ্যান্স পেলেন। আর সেই জন্যই এবার উন্মাদনাটা আরও বেশি। তবে উন্মাদনার মধ্যে দুঃখও আছে। গোটা বাংলাদেশ চেয়েছিল নোবেল সারেগামাপা এর ফাইনালে জয়ী হোক। কিন্তু সেটা সম্ভব হয়নি। শেষে সারেগামাপা এর ফাইনালে তৃতীয় স্থান দখল করল বাংলাদেশের এই সুপারস্টার। আর এর পর থেকেই বাংলাদেশ থেকে নোবেলকে নিয়ে নানারকম খবর উঠে আসছে।

একদিকে বাংলাদেশের বরিশালের এক যুবক নোবেলকে সারেগামাপা এর প্রথম ঘোষণা করার জন্য অনশনে বসেছেন। আরেকদিকে বাংলাদেশ থেকে নোবেলের দাবি অনুযায়ী, কবিগুরু রবীন্দ্রনাথের লেখা জাতীয় সঙ্গীত পাল্টানোর চিন্তা ভাবনা চলেছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় এখন শুধু নোবেল আর নোবেল। নোবেল ছাড়া বাঙালিদের এখন আর এক মুহূর্তও কাটছে না। আরেকদিকে সারেগামাপা এ প্রথম না হতে পেরে একটু মানসিক অবসাদে ভুগছেন এই উঠতি তারকা। শোনা যাচ্ছে যে, উনি প্রথম না হতে পেরে দাঁড়ি গোঁফ কেটে ন্যাড়া হওয়ারও চিন্তা ভাবনা নিয়েছিলেন।

আরেকদিকে এতো কিছুর মধ্যে বাংলাদেশ থেকে আরেকটি খবর চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। বাংলাদেশের ঢাকার এক নোবেল প্রেমী সারেগামাপা তে নোবেল প্রথম না হতে পারায় আত্মহত্যার চেষ্টা করেছিল। কিন্তু আল্লাহ বলুন আর ভগবান, আজ ওনাদের দোয়াতে নোবেল এর এই ভক্ত বেঁচে আছেন। প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী, উনি লুঙ্গি গলায় দিয়ে ফ্যানের সাথে ঝুলতে গেলে, ফ্যান ভেঙে পড়ে যান। তবে উনি বেঁচে গেলেও মাথায় খুব আঘাত লেগেছে বলে জানা যায়।

ঢাকার বাসিন্দা সবুজ মিঞা প্রথম থেকেই সারেগামাপা এর সব এপিসোড দেখেছিলেন। নোবেলের গাওয়া প্রতিটি গানই তিনি একেবারে মুখস্ত করে রেখেছিলেন। তবে নোবেল সারেগামাপা তে প্রথম না হওয়ায় মানসিক অবসাদে ভুগে আত্মহত্যা করতে গেছিলেন। কিন্তু কোনোরকমে প্রাণে বেঁচে যান তিনি।

Related Articles