Wednesday, November 20, 2019
Home Blog Page 63

হাইকোর্টের রায় ফের একবার দিলীপ ঘোষের পক্ষে। দিলীপ ঘোষের মুখের হাসি দেখে হতাশ বিরোধীরা।

অশোক সরকার যিনি একজন প্রাপ্তণ বিজেপি নেতা উনি হাইকোর্টে মামলা করেছিলেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের শিক্ষাগত যোগ্যতা নিয়ে। উনার দাবি ছিল নির্বাচন কমিশনের কাছে নিজের শিক্ষাগত যোগ্যতা নিয়ে মিথ্যা তথ্য উল্লেখ করেছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। হাইকোর্টে এই মামলাটি অনেকদিন ধরে ঝুলে থাকার পরে অবশেষে বিচারপতি এইদিন মামলাটি খারিজ করে দেন। উনি মামলাটি খারিজ করে জানান যে, এইভাবে কোনো ব্যক্তির শিক্ষাগত যোগ্যতা জনস্বার্থে  বিষয় হতে পারে না। এর ফলে এইদিন সমস্ত দিলীপ বিরোধীদের মুখ একেবারে বন্ধ হয়ে গেছে। তারা দিলীপ বাবু কে অপমান করার আশা করে ফের একবার হতাশ হয়ে বাড়ি ফিরলেন।

অশোক সরকার দীর্ঘদিন ধরে চেষ্টা করে যাচ্ছেন যাতে দিলীপ ঘোষ কে ক্ষমতা থেকে সরানো যায়। আর সেই জন্যই এই মামলা করা হয়েছিল দিলীপ বাবু কে জব্দ করতে। কিন্তু উনার সেই আশায় এইদিন জল ঢেলে দিল হাইকোর্ট। কিন্তু উনি জানিয়েছেন যে, আমি হাল ছাড়তে রাজি নয়। এই রায়ের বিরুদ্ধে আবার আবেদন করা হবে উনি বলে জানিয়েছেন।

এই ব্যাপারে মামলাকারী দাবি করেছেন যে, ভোট দেওয়ার আগে যাকে ভোট দেওয়া হচ্ছে তার ব্যাপারে সঠিক ভাবে জেনে নেওয়া উচিৎ। কারণ উনি জয়ী হলে উনার হাতেই নির্ভর করছে রাজ্যের ভবিষ্যত। কিন্তু তার কোনো কথা শুনতে রাজি নন হাইকোর্ট। হাইকোর্ট স্পষ্ট ভাবে জানিয়ে দিয়েছেন যে, কারুর শিক্ষ্যাগত নিয়ে প্রশ্ন তুলে এইভাবে মামলা হতে পারে না। তাই মামলাটি খারিজ করে দেওয়া হয় হাইকোর্টের তরফে।
#অগ্নিপুত্র

এ যেন কংগ্রেস দলে ভূমিকম্প শুরু হয়েছে! ফের পদত্যাগ করলেন এক কংগ্রেস সভাপতি।

এ যেন লোকসভা নির্বাচনের আগে কংগ্রেস দলে কোনো ভূমিকম্প নেমেছে। একের পর এক কংগ্রেস নেতার পদত্যাগ আর সেটাও লোকসভা নির্বাচনের আগে। আর এবার কংগ্রেস দল থেকে পদত্যাগ করলেন উড়িষ্যা রাজ্যের কংগ্রেস সভাপতি নাবা কিশোর দাস।

উনি কংগ্রেস প্রাথী হয়ে যোগদান করেন 2014 সালে। উনি এইদিন নিজের পদত্যাগ পত্র জমা দিয়ে আসেন সরাসরি রাহুল গান্ধীর কাছে। পদত্যাগ করে কিশোর বাবু জানিয়েছেন যে, এই কংগ্রেস দলে নিজেকে পরাধীন মনে হচ্ছে। রাজ্যের ভালোর জন্য কোনো কথা বলার অধিকার আমার নেই। সেই জন্যই আমি কংগ্রেস দল থেকে পদত্যাগ করলাম।
#অগ্নিপুত্র

লোকসভা নির্বাচনের প্রস্তুতি তুঙ্গে! মাত্র কয়েক দিনেই তিনশর বেশি সভা করবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

বিজেপি সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ এই মুহূর্তে অসুস্থ অবস্থায় রয়েছেন। কিন্তু অসুস্থ হওয়ার সত্ত্বেও উনি নির্বাচনী প্রচারে কোনোরকম খামতি রাখতে চান না। উনি নির্বাচনের দিন ঘোষণা হওয়ার আগেই সমস্ত রকম পরিকল্পনা স্থির করে দিতে চাইছেন। সেই সাথে উনি প্রতিটি জেলাস্তরের বিজেপি কর্মীদের জন্য দায়িত্ব ঠিক করে দিতে চান। তবে জানা গিয়েছে বিজেপির প্রচারে সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

সূত্রের খবর, যে সমস্ত প্রকল্প গুলি প্রধানমন্ত্রী চালু করতে চান সেগুলি সব লোকসভা নির্বাচনের আগে করে ফেলবেন এবং প্রতিটি জায়গাতে উনি আলাদা আলাদা ভাবে সভা করবেন বলেও জানা গিয়েছে। বিজেপির তরফে ঠিক করা হয়েছে যে, এবার থেকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী প্রতিদিন দুটি করে আলাদা আলাদা প্রকল্পের উদ্ধোধন করবেন।

বিশেষ সূত্রে জানা গিয়েছে যে, আগামী নির্বাচন কে মাথায় রেখে ইতিমধ্যেই বিজেপি দল নির্বাচনী মুড অন করে ফেলেছেন। আর সেই জন্যেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী লোকসভার আগে 275 থেকে 300 টি জনসভা করবেন।
#অগ্নিপুত্র

লোকসভা নির্বাচনের নির্ঘন্ট ঘোষণা করতে চলেছে নির্বাচন কমিশন। জেনে নিন এবার কত দফায় ভোট হতে চলেছে।

নির্বাচন কমিশন ঘোষনা করতে চলেছে লোকসভা নির্বাচনে দিনক্ষণ। সূত্রে খবর নির্বাচন কমিশন প্রতিটি রাজ্যের জেলাশাসকের সাথে কথাবার্তা শুরু করে দিয়েছেন ইতিমধ্যেই। আলোচনা করা হচ্ছে মূলত দিনক্ষণ ঠিক করার ব্যাপারে। কবে কোন রাজ্যে ভোট গ্রহণ হবে সেই ব্যাপারে আলোচনা চলছে সেই সাথে নিরাপত্তার দিকেও সমানভাবে নজর রাখা হচ্ছে।

নির্বাচন কমিশন জানিয়েছে যে, লোকসভা ভোটের সাথে সাথে দেশের পাঁচটি গুরুত্বপূর্ণ রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচন চলবে তাই সব দিক ক্ষতিয়ে দেখা হচ্ছে। সংবাদ সংস্থা এন.আই.এ দাবি করছে যে, এবার লোকসভা নির্বাচন হতে পারে 6 – 7 দফায়।

গত দুই লোকসভার দিনক্ষণ ঘোষনা হয়েছিল মার্চ মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহে। তাই এবারও মার্চের মধ্যেই লোকসভা নির্বাচনের দিনক্ষণ ঠিক হয়ে যাবে বলে জানা যাচ্ছে। তবে এবার এটাই দেখার বিষয় যে এবার কয় দফায় ভোট গ্রহণ হবে। কারণ এবার লোকসভা নির্বাচনের সাথে কয়েকটি রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচন হতে চলেছে। তাই সুরক্ষার কথা ভেবে এবার আরও বেশি দফায় নির্বাচন হতে পারে বলে জানা গিয়েছে।
#অগ্নিপুত্র

ফাঁস হয়ে গেল রাহুল গান্ধীর আসল চরিত্র। পর্নস্টারের সাথে রাহুল গান্ধীর ছবি ভাইরাল স্যোসাল মিডিয়ায়।

এবার স্যোসাল মিডিয়ায় ভাইরাল কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী এবং এক পর্নস্টারের ছবি। ছবিটি খুব দ্রুত ছড়িয়ে পড়েছে বিভিন্ন স্যোশাল মিডিয়ায়। বিভিন্ন জায়গা থেকে কমেন্ট ভেসে আসছে। অনেক ট্রোলের পাত্র হয়ে উঠেছেন রাহুল গান্ধী।

বেশ কয়েকদিন ধরে বিভিন্নভাবে বিতর্কের মধ্যে জড়িয়ে পড়ছেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী। কয়েকদিন আগে দুবাইয়ের একটি হোটেলে রাহুল গান্ধী কে দেখা যায় বিলাসবহুল ব্রেকফাস্ট করতে সেই সাথে উনার মেনুতে ছিল গরুর মাংস। আর এবার সরাসরি পর্নস্টারের সাথে ছবি। ছবিতে দেখা যায় রাহুল গান্ধী, পর্নস্টার নাতালিয়া ব্যামসের সাথে ঘনিষ্ঠ অবস্থায় রয়েছেন।

কিছুদিন আগে এক ফেসবুক ইউজার এই ছবিটি আপলোড করেন। তারপর থেকে ক্রমশ ভাইরাল হতে থাকে ছবিটি। বিভিন্ন মহল থেকে প্রশ্ন ওঠে কি করছিলেন রাহুল গান্ধী ওই পর্নস্টারের সাথে।
#অগ্নিপুত্র

সঙ্ঘের এক সদস্য জানিয়ে দিলেন রাম মন্দির নির্মাণের তারিখ। জেনে নিন কবে সম্পূর্ণ হতে চলেছে রাম মন্দির নির্মাণ।

কুম্ভমেলায় উপস্থিত হয়েছিলেন দেশের অনেক মানিগুনী ব্যাক্তি। সেই সাথে কুম্ভমেলায় এইদিন উপস্থিত হন ভাইয়া জি জোশি ইনি হলেন সঙ্ঘের কার্যকর কমিটির সদস্য। উনি এইদিন কুম্ভমেলায় এসে বিশ্ব হিন্দু সংগঠনের একটি অনুষ্ঠানে যোগদান করেন। এই অনুষ্ঠানে এসে উনি বলেন যে 2025 সালের মধ্যেই রাম মন্দির নির্মানের কাজ সম্পূর্ণ হয়ে যাবে। সেই সাথে উনি আরও বলেন, উনার দাবি দেশে উন্নয়ন শুরু হয়ে 1952 সালে সোমনাথ মন্দির স্থাপন করার পর। তাই 2025 সালে অযোধ্যায় রাম মন্দির নির্মাণ করলে দেশ আরও দ্রুত গতিতে উন্নতির পথে এগিয়ে যাবে।

তিনি এইদিন সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে বলেন যে, আমরা সকলেই চাই যাতে খুব তাড়াতাড়ি রাম মন্দির নির্মানের কাজ শুরু হয়ে যায়। আর এই মন্দির নির্মাণের কাজ শুরু হলে শেষ হতে অন্তত পাঁচ বছর লাগবে তাই উনার দাবি আগামী 2025 সালের মধ্যে রাম মন্দির পুরোপুরি ভাবে তৈরি হয়ে যাবে।
#অগ্নিপুত্র

আয়ুষ্মান ভারত প্রকল্পের জন্য এবার বিল গেটস শুভেচ্ছা জানালেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে।

কিছুদিন আগে মোদী সরকারের আয়ুষ্মান ভারত প্রকল্পের 100 দিন পূর্ন হয়েছে। এর ফলে সমগ্র দেশ জুড়ে খুশির মহল সৃষ্টি হয়েছে কারণ এই প্রকল্পের দ্বারা উপকৃত হয়েছেন দেশের অনেক মানুষ। আর এবার এই প্রকল্পের সফলতা দেখে মোদী সরকার কে ধন্যবাদ জানালেন বিশ্বের সবচেয়ে ধনী ব্যাক্তি বিল গেটস। উনি টুইট করে জানিয়েছেন যে, মোদী সরকারের এটা একটা যুগান্তকারী পদক্ষেপ। এর ফলে ভারতবর্ষের অনেক গরিব পরিবার সুচিকিৎসার সুবিধা পেয়েছেন। এটা দেখে আমি অত্যন্ত খুশি।

উনার টুইটের পরই কেন্দ্রীয় মন্ত্রী জেপি নাড্ডা টুইট করে মাইক্রোসফটের প্রতিষ্ঠতাকে জানান যে, দেশের 6 লক্ষ 85 হাজার মানুষ এই প্রকল্পের সুবিধাভুক্ত। যত দিন যাবে ততই এর সুবিধা ভুক্ত মানুষের পরিমাণ বাড়তে থাকবে বলে উনি জানিয়েছেন। সেই সাথে উনি আরও জানিয়েছেন, উনি এইদিন টুইট করে বিল গেটস কে বলেন যে, এই প্রকল্পের অন্তর্ভুক্ত মানুষজনকে বিনামূল্যে স্বাস্থ্য সুবিধা দেওয়ার পাশাপাশি দেওয়া হয় বিনামূল্যে পরিবহন, ওষুধ ইত্যাদি।
#অগ্নিপুত্র

দারুন মাষ্টারস্টোক! ২-৩ দিনের মধ্যেই কর্ণাটকে সরকার গঠন করতে চলেছে ভারতীয় জনতা পার্টি।

বিজেপি নেতা রাম শিল্ড দাবি করলেন যে আমাদের অপারেশন সফল হয়েছে। আগামী দু’দিনের মধ্যে কর্ণাটকে কংগ্রেস সরকার ভেঙে বিজেপি সরকার গঠন করতে চলেছে। কারণ যে দুই নির্দল প্রার্থীর সমর্থনে কংগ্রেস সরকার গড়েছিল তারা ইতিমধ্যেই সমর্থন প্রত্যাহার করেছেন। এবং তাদের সমর্থন তুলে নিয়েছেন কংগ্রেসের উপর থেকে।

ইতিমধ্যেই কংগ্রেসের ওপর থেকে সমর্থন তুলে নিয়েছেন দুই নির্দল প্রার্থী এইচ নাগেশ এবং আর শঙ্কর। এই ব্যাপারে বিজেপি নেতৃত্বের দাবি উনারা সঠিক পদক্ষেপ নিয়েছেন। উনারা বুঝে গিয়েছেন যে কংগ্রেসের সাথে গেলে কখনই রাজ্যের উন্নতি করা সম্ভব নয়। কংগ্রেস দুর্নীতি যুক্ত রাজনৈতিক দল। তাই উনারা এখন দেশের এবং রাজ্যের উন্নতির জন্য কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপির হাত ধরতে চাইছেন।

কংগ্রেস ছেড়ে চলে আসার পরে এই দিন দুই বিধায়ক দাবি করেছেন যে, আমরা রাজ্যের ভালোর জন্য জোট সরকারে গিয়েছিলাম কংগ্রেসের সাথে। কিন্তু সেই সরকার গঠন হওয়ার পরে এক অন্য চিত্র আমাদের সামনে উঠে এলো, কোনো বোঝাপড়া নেই কংগ্রেসের, ওখানে আমাদের কথা বলার কোন অধিকার ছিল না। কংগ্রেস শুধু নিজের স্বার্থের কথা ভাবে। তাই আমরা কংগ্রেস জোট সরকার ছেড়ে এখন বিজেপিতে যোগদান করেছি এবং মকর সংক্রান্তি মধ্যে রাজ্য সরকার পরিবর্তনের আশা করছি আমরা।
#অগ্নিপুত্র

পশ্চিমবঙ্গে হিন্দুত্ববাদী ঝড় তুলতে রাজ্যে আসছেন যোগী আদিত্যনাথ। জেনে নিন কোথায় কবে সভা করবেন উনি

উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ এই সময় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির পরে সবথেকে উল্লেখযোগ্য মুখ বিজেপির। ইনি হিন্দু ধর্মের পোষ্টার বয় নামেও পরিচিত কারণ তিনি ক্ষমতায় আসার পর হিন্দুদের অনেক ভালো ভালো কাজ করেছেন। এবারে যোগী আদিত্যনাথ দিয়েই পশ্চিমবঙ্গে বাজিমাত করাতে চায় পদ্ম শিবির।

বিশেষ সূত্রে জানা গিয়েছে যে জানুয়ারি এবং ফেব্রুয়ারি মাস জুড়ে যোগী আদিত্যনাথ পশ্চিমবঙ্গে অনেকগুলি সভা করবেন। দক্ষিণবঙ্গ, উত্তরবঙ্গ, নদীয়া এবং দুই 24 পরগনাতে তিনি মোট 10 টি সভা করবেন বলে জানা গিয়েছে। এছাড়াও প্রয়োজনে তিনি আরও বেশি সভা করতে পারেন এমন খবরও পাওয়া যাচ্ছে রাজ্য বিজেপি শিবির থেকে।

জানা গিয়েছে যে পশ্চিমবঙ্গের প্রচারে ঝড় তুলতে চাই বিজেপি। সেই জন্য যোগী আদিত্যনাথ কে দিয়ে একের পর এক সভা করার পাশাপাশি বাইক র‍্যালী পর্যন্ত করানো হবে। এছাড়াও যোগিজির সঙ্গে থাকবেন পশ্চিমবঙ্গের একসময়ের পর্যবেক্ষক তথা উত্তরপ্রদেশের স্বাস্থ্যমন্ত্রী সিদ্ধার্ত নাথ সিং। এর আগে পশ্চিমবঙ্গের পর্যবেক্ষক হিসেবে কাজ করেছেন উনি কাজ করার ফলে পশ্চিমবঙ্গের মাটি উনার খুব ভালভাবেই চেনা। সেই জন্যই এই দুজন কে দিয়ে এবার পশ্চিমবঙ্গে বাজিমাত করতে চায় পদ্ম শিবির।
#অগ্নিপুত্র

দারুন জবাব ভারতীয় সেনার! পাকিস্তানের ব্যাংকার উড়িয়ে দিল ভারতীয় সেনা। মৃত্যু হয়েছে পাঁচ পাকিস্তানী জওয়ানের।

বেশ কয়েকদিন ধরে সংঘর্ষ বিরতি চুক্তি লঙ্ঘন করেছিল পাকিস্তানি সেনা। তারা পুঞ্জ সেক্টরে বারবার আঘাত করছিল ভারতীয় সেনা জওয়ানদের উপর। কোনো রকম নিয়ম না মেনেই তারা বেশ কয়েকটি ব্যাংকার সেখানে উপস্থিত করেছিল যাতে তারা সহজেই ভারতীয় সেনা জওয়ানদের ওপর হামলা করতে পারে। কিন্তু তাদের উপযুক্ত জবাব দিল ভারতীয় সেনা জওয়ানরা।পাকিস্তানকে পাকিস্তানের ভাষাতেই জবাব দিল ভারতীয় সেনাবাহিনী। ভারতের উপর হামলা করবার জন্য পাকিস্তানি সেনাবাহিনী যে ব্যাংকার গুলি সেখানে উপস্থিত করেছিল সেগুলি ভারতীয় সেনা জাওয়ানরা এইদিন একেবারে ভেঙ্গে গুড়িয়ে দিয়েছে।

কিছুদিন আগে সেনাপ্রধান বিপিন রাওয়াত সরাসরি পাকিস্তানকে জানিয়ে দিয়েছিলেন যে তারা যদি কোনরকম সংঘর্ষ বিরোধী চুক্তি লঙ্ঘন করে তাহলে তাদের উপযুক্ত জবাব দেবে ভারতীয় সেনাবাহিনী। আর এই দিন সেই কথাটি কাজে প্রমাণ করে দেখালেন ভারতীয় সেনা। রিপোর্টে জানা গিয়েছে এই দিন শুধু পাকিস্তানে ব্যাংকারই নয়, সেই সাথে 5 পাকিস্তানি জওয়ানের মৃত্যু ঘটেছে ভারতের হামলায়। এরপর থেকে সেই এলাকায় পাকিস্তানের তরফ থেকে আর কোনো রকম সংঘর্ষ বিরোধী চুক্তি লঙ্ঘন করা হয়নি বলে জানা গিয়েছে, পাকিস্তান এখন শান্ত হয়ে গিয়েছে ভারতের ভয়ে।
#অগ্নিপুত্র

তৃণমূলের সিন্ডিকেটের দৌলতে বন্ধ হয়ে গেল জুট মিল। কর্মহীন বহু শ্রমিক।

ফের একবার তৃণমূলের নগ্ন ছবি উঠে এল। এবার তৃণমূল নেতাদের সিন্ডিকেটের জন্য কারখানা বন্ধ করে দিতে চলেছে জুট মিল মালিকরা। ব্যবসায়ী নিধির চন্দ্র মন্ডল এলাকায় বেকারদের কিছু উপার্জনের ব্যবস্থা করে দেওয়ার জন্য সুতো তৈরির কারখানা খুলে ছিল। কিন্তু ইদানিং কালে তৃণমূল শ্রমিক সংগঠনের নেতা মনোজ রায় উনাকে ক্রমাগত টাকা চেয়ে যাচ্ছেন।

উনি জানিয়েছেন যে, আমি টাকা দিতে অস্বীকার করায় আমার কারখানা বন্ধ করে দেওয়ার হুমকি দিচ্ছেন তৃণমূল কংগ্রেসের স্থানীয় নেতারা।
কারখানার মালিক নিধির বাবু জানিয়েছেন যে, গত 9 ই জানুয়ারী তৃণমূল নেতা মনোজ রায় কয়েকজন গুন্ডা নিয়ে কারখানায় এসে মারধর করে যায়। এরপর উনি কারখানা বন্ধ করে দিতে বাধ্য হয়েছেন।

উনি আরও জানিয়েছেন যে, থানায় অভিযোগ জানিয়েও কোনো উপায় হয় নি। বরং পুলিশ উল্টে নিধির বাবু কেই শাষিয়েছে। উনাকে প্রাণ নাসের হুমকি পর্যন্ত দেওয়া হয়েছে বলে উনি জানান।
#অগ্নিপুত্র

গোটা পাকিস্তানী নৌবাহিনীকে এক বারে খতম করার ক্ষমতা সম্পন্ন যুদ্ধ জাহাজ পেল ভারতীয় নৌ-সেনা। জেনে নিন এর ক্ষমতা।

ইতিমধ্যেই ভারতীয় সুরক্ষা বাহিনী তাদের সুরক্ষা দিকটি সবদিক থেকে মজবুত করে ফেলেছে। এর জন্য পাকিস্তান, চীন সহ ভারতের সমস্ত শত্রু দেশ গুলি এই সময় ভয়ে রয়েছে। এর মধ্যেই ভারত সরকার দিল আরেক বড় ধামাকা।
ভারতীয় নৌবাহিনী হাতে এল আই.এন.এস কলকাতা যুদ্ধজাহাজ। এই যুদ্ধ জাহাজের মধ্যে রয়েছে সব রকমের যুদ্ধের অস্ত্রশস্ত্র একসাথে। এর ফলে এটার জন্য ভারতীয় নৌবাহিনী শক্তিশালী হয়ে উঠবে।

বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন যে এর আগে ভারতীয় নৌবাহিনীর কাছে যতগুলি যুদ্ধজাহাজ ছিল সেই গুলির মধ্যে সব থেকে বেশি শক্তিশালী হচ্ছে এই যুদ্ধ জাহাজ। এবং এই যুদ্ধ জাহাজের গতি এতটাই যে আলোর থেকে তিনগুণ বেশি ক্ষতি ধরা হচ্ছে এই যুদ্ধ জাহাজের গতিকে। এবং এই যুদ্ধ জাহাজ পাকিস্তান এবং চীনের থেকে ভারতীয় নৌবাহিনী অনেক এগিয়ে গেল বলে মনে করা হচ্ছে।
#অগ্নিপুত্র