fbpx
আন্তর্জাতিকদেশনতুন খবরমতামত

বড়খবর! ভারতের ক্রমাগত চাপের ফলে হাফিজ শহীদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নিতে বাধ্য হল পাকিস্তান সরকার।

পুলওয়ামায় ভয়াবহ জঙ্গি হামলায় পাকিস্তানের যোগসূত্র থাকার প্রমান পাওয়ার পর থেকে ভারত সরকার নানান রকম চেষ্টা করেছে পাকিস্তান কে আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে কোণঠাসা করার। আর মোদী সরকারের এমন চালের কাছে মুখ থুবড়ে পড়েছে পাকিস্তান। নয়া দিল্লীর চাপের কাছে মাথা নত করে শেষমেশ আলোচনার জন্য আবেদন করেছে ইসলামাবাদ। পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান জানিয়েছেন যে, ভারত যদি সঠিক প্রমান দিতে পারে তাহলে পাকিস্তান তদন্ত করবে। কিন্তু ভারত সরকার স্পষ্ট ভাবে জানিয়ে দিয়েছে যে, আর কোনোরকম আলোচনা নয় পাকিস্তানের সাথে। অপরদিকে পাকিস্তান কে একেবারে কোনঠাসা করার জন্য ভারতের তরফে উপযুক্ত প্রমান পাঠানো হচ্ছে বিভিন্ন দেশের কাছে। আর নয়াদিল্লীর ক্রমাগত চাপের কাছে পাকিস্তান বুঝতে পেরেছে তাদের বিপদ অনিবার্য আর সেই জন্যই এবার হাফিজ শহীদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নিতে বাধ্য হল পাকিস্তান।

ভারতের চাপে নিজেদের বাঁচার কোনো উপায় না দেখে পাক অভ্যন্তরীণ মন্ত্রক সিদ্ধান্ত নিয়ে জানিয়েছেন যে, আমরা হাফিজ শহীদের দুটি সংগঠনের উপর নজর রাখছি উপযুক্ত প্রমান পেলে সেই সংগঠন গুলি বন্ধ করে দেওয়ার কথাও জানিয়েছেন পাকিস্তানের অভ্যন্তরীন নিরাপত্তা মন্ত্রক।

এই হাফিজ শহীদ শুধু এই ঘটনায় নয় এর আগে মুম্বাই হামলা মূল চক্রী ছিল এই হাফিজ শহীদ। আর তার সমস্ত প্রমান ভারত পাকিস্তানের হাতে তুলে দিয়েছিল কিন্তু পাকিস্তান কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি। অবশেষে ভারত সরকার এবং আন্তর্জাতিক চাপের ফলে পদক্ষেপ নিতে বাধ্য হল ইমরান সরকার। কিন্তু অনেকে মনে করছেন এটা শুধুমাত্র আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে নিজেদের ভালো প্রমান করার জন্য করছে পাকিস্তান।
#অগ্নিপুত্র

Open

Close