ফুটপাথ ব্যাবসায়ীদের সাথে আজ কথা বলবেন প্রধানমন্ত্রী, ১ লক্ষ মানুষ পাবেন ১০ হাজার করে টাকা

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (narendra modi) আজ সরসারি কথা বলবেন ফুটপাথের ছোট ব্যাবসায়ীদের সাথে। ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমের ব্যাবসায়ীদের সাথে কথা বলবেন তিনি। একই সময়ে ১ লাখ ব্যাবসায়ী তাদের ব্যাংক একাউন্টে পেয়ে যাবেন ১০ হাজার টাকা করে। প্রধানমন্ত্রী স্বনিধি যোজনার আওতায় এই টাকা পাবেন ব্যাবসায়ীরা।

করোনা কালে লোকসানের মুখে পড়া দেশের প্রায় ৫০ লাখ হকারকে এই প্রকল্পে সহায়তা করতে চলেছে মোদি সরকার। আত্মনির্ভর ভারত আর্থিক প্যাকেজের কথা ঘোষনা করেছিলেন প্রধান মন্ত্রী  নরেন্দ্র মোদি । অর্থ মন্ত্রী নির্মলা সিতারমন সেই প্যাকেজের দ্বিতীয় পর্ব ঘোষনা করেন। দ্বিতীয় পর্বে ফুটপাথ ব্যবসায়ীদের জন্য ৫০০০ কোটি টাকা ঋণ বরাদ্দ করেছে কেন্দ্রীয় সরকার।

করোনা সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার পর সবচেয়ে বেশী ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে সাধারণ দিন আনা মানুষ গুলি। এদের মধ্যেই পড়ে ফুটপাথ ব্যবসায়ীরা। শহরের ব্যস্ত ফুটপাথ গুলিতে নিজেদের পসরা সাজিয়ে বসেন তারা, বেশীরভাগই নিম্ন মধ্যবিত্ত । লকডাউনের কারনে দোকান বন্ধ হওয়ায় মারাত্মক আর্থিক ক্ষতি হয়েছে তাদের। এবার দেশের ৫০ লাখ ফুটপাথ ব্যবসায়ীদের জন্য ১০ হাজার টাকা করে লোনের ব্যবস্থা করেছে সরকার। এছাড়াও ডিজিটাল পেমেন্টেও উৎসাহী করা হবে বিক্রেতাদের

মোদি সরকার জানিয়েছিল ব্যাবসার শংসাপত্র বা পরিচয়পত্র না থাকলেও স্থানীয় সংস্থার কাছ থেকে লেটার অফ রেকমেন্ডেন্স নিয়েও আবেদন করা যাবে।একজন বিক্রেতার শংসাপত্র না থাকলে তিনি সাদা কাগজে স্থানীয় নগর সংস্থার কাছে লেটার অফ রেকমেন্ডেন্স আবেদন করতে পারবেন। ১৫ দিনের মধ্যে সেই আবেদনের নিষ্পত্তি করতে হবে স্থানীয় নগর সংস্থাকে৷ ৩০ দিনের মধ্যেই লেটার অফ রেকমেন্ডেন্স থাকলে পেয়ে যাবেন শংসাপত্র। তারপর ঋণ নিতে পারবে ঐ হকার।