fbpx
দেশনতুন খবরপশ্চিমবঙ্গ

ভোটের মুখে ফের রাজীব কুমারের বিরুদ্ধে ভয়ঙ্কর তথ্য উঠে এল সিবিআই রিপোর্টে, নাম জড়াতে চলেছে আরও…

লোসকভা ভোটের প্রাক্কালেই প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারকে নিয়ে সরব হয়েছিল রাজ্যের শাসকদল। সারদা কেলেঙ্কারি মামলায় জড়িয়ে রাজীবের গ্রেফতারির সম্ভাবনা নিয়ে চিন্তায় পড়েছিল রাজ্যের শাসকদল। তাই ধর্নায় বসেছিলেন স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী সহ একাধিক তৃণমূলের নেতা-নেত্রীরা। সেই সময়ের জন্য আপাতত রেহাই পেলেও ছাড় পেলেন না রাজীব কুমার। সিবিআই তদন্তে রাজীব কুমার নিয়ে উঠে এল এক চাঞ্চল্যকর তথ্য। সেই তথ্য দেশের সর্বোচ্চ আদালতে জমা দিয়েছে সিবিআই। এবং জানা গিয়েছে আরও ভয়ানক অভিযোগ রয়েছে রাজীব কুমারের বিরুদ্ধে। প্রসঙ্গত, রাজীব কুমার মামলায় মঙ্গলবারই শুনানির দিন ছিল। এদিনই সিবিআই এর তরফ থেকে সুপ্রিম কোর্টে কিছু তথ্য জমা দেওয়া হয়। ছয় পাতার সেই তথ্যেই উঠে এসেছে চাঞ্চল্যকর সব অভিযোগ।

এদিন সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ জানিয়েছেন রাজীব কুমারের বিরুদ্ধে আনা এধরনের অভিযোগ সত্যি হলে চুপ করে থাকবে না আদালত। পাশাপাশি, রাজীব কুমারের বিরুদ্ধে আনা ওই অভিযোগের ভিত্তিতে তাঁর বিরুদ্ধে কি কি ব্যবস্থা নেওয়া যেতে পারে সেই বিষয়েও সিবিআইকে একটি আবেদন করার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। মাত্র দশ দিনের মধ্যেই রাজীব কুমার সংক্রান্ত সেই আবেদন আদালতে জমা দিতে হবে সিবিআইকে। অন্যদিকে, সিবিআইয়ের তরফ থেকে অভিযোগ আনা হলেও রাজীব কুমারের মুখের কথাকেও প্রাধান্য দিচ্ছে আদালত। জানা গিয়েছে রাজীব কুমারকে জিজ্ঞাসাবাদ না করে আদালতের পক্ষ থেকে কোনো সিদ্ধান্ত ও পদক্ষেপ নেওয়া হবে না। প্রসঙ্গত, সারদা মামলা নিয়ে প্রায় ছ বছর আগে রাজ্য সরকারে পক্ষ থেকে সিট গঠন করা হয়। যার নেতৃত্ব দিয়েছিলেন স্বয়ং রাজীব কুমার। কিন্তু সারদা মামলা যতই এগিয়ে যায় ততই সেখানে অনেক গাফিলতি দেখা যায়।

এমনকি প্রমান লোপাটের কথাও সামনে আসে। প্রমান লোপাটের অভিযোগ ওঠে রাজীব কুমারের বিরুদ্ধে। এই নিয়ে তাঁর বাড়িতে সিবিআই তল্লাশি ও তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদও করা হয়েছে। কিন্তু তাতেও বাধা দেওয়ার অভিযোগ ওঠে। আর এরপরই ধর্নার পথ বেছে নেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রাজীব কুমারের বাড়িতে তল্লাশি নিয়ে ধর্নায় বসলেন আর ভারতীয় ঘোষকে নিয়ে তিনি কি করলেন, এ ধরনের প্রশ্ন উঠলেও নিজের দাবিতে অনড় ছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। পরে সেখান থেকে কিছুটা অব্যাহতি পেলেও শিলং-এ রাজীব কুমার ও প্রাক্তন সাংসদ কুনার ঘোষকে সারদা মামলা নিয়ে জেরা করার জন্য ডেকে পাঠায় সিবিআই। টানা পাঁচ দিন ধরে সেখানে ম্যারাথন জেরা করে সিবিআই। আর সেখানে উঠে এসেছিল অনেক সন্দেহজনক কথা। সেই রিপোর্টই মঙ্গলবার শীর্ষ আদালতের কাছে জমা দেয় সিবিআই।

যদিও এই প্রথমবার নয়, এর আগে সারদা কেলেঙ্কারিতে যুক্ত থাকার বিষয়ে আরও অনেক অভিযোগ আনা হয়েছিল তাঁর বিরুদ্ধে। এর আগে সিবিআই তরফে দাবি করা হয়েছিল রাজীব কুমারের ফোনের কল লিস্ট থেকে নাম মুছে ফেলা হয়েছে, সেই প্রমান পাওয়ার পরই সিবিআইকে সুপ্রিম কোর্টের তরফ থেকে কল লিস্ট পুনরুদ্ধারের নথি জমা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল।

Open

Close