মমতার রাজ্যে নবম শ্রেণীর ছাত্রীকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করল ফিরোজ মোল্লা আর জাহাঙ্গীর মোল্লা

নাবালিকাকে ধর্ষণ করে তার পরিবারকে খুন করার হুমকির অভিযোগ উঠল এলাকার দুই দুষ্কৃতী ফিরোজ মোল্লা এবং জাহাঙ্গীর মোল্লার বিরুদ্ধে । ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ ২৪ পরগণার বাসন্তী থানার অন্তর্গত  ৪ নম্বর গরানবোস গ্রামে । এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকায় চলে গুলি । গুলিতে আহত তিন । আশঙ্কাজনক অবস্থায় আহতদের  ক্যানিং হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে ।

ঘটনার সূত্রপাত কয়েকদিন আগে । অভিযোগ, বাসন্তী থানার  অন্তর্গত ৪ নম্বর গরানবোস গ্রামের নবম শ্রেণীর ছাত্রী এক নাবালিকা মেয়েকে নিজের বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে ফাঁকা মাঠে ধর্ষণ করে ফিরোজ মোল্লা এবং জাহাঙ্গির মোল্লা । তারপর ধর্ষিত নাবালিকাকে তাঁর  বাড়ির সামনে ফেলে রেখে পালিয়ে যায় অভিযুক্তরা।  এরপর ওই নাবালিকার বয়ানের  ভিত্তিতে বাসন্তী থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করে নাবালিকার  পরিবার।  তাদের অভিযোগের ভিত্তিতে ফিরোজ মোল্লাকে গ্রেফতার করে বাসন্তী থানার পুলিশ। আর তারপর থেকেই  উত্তপ্ত হয়ে ওঠে গরানবোস গ্রাম।

বারে বারে ফিরোজ মোল্লা ও জাহাঙ্গির মোল্লা অনুগামীরা হুমকি দিতে থাকে নাবালিকার পরিবারকে । সেইসঙ্গে  কেস তুলে নেওয়ার জন্য প্রকাশ্যে বন্দুক দেখিয়ে রাস্তার উপর নাবালিকার পরিবারকে হুমকি দিয়ে থাকে অভিযুক্ত অনুগামীরা। শুধু হুমকি দিয়ে ক্ষান্ত থাকেনি অভিযুক্তের অনুগামীরা।

হুমকির পাশাপাশি প্রকাশ্যে  গুলি চালায় তারা । সেই গুলিতে তিনজন  আহত  হয়েছেন । আহতদের ক্যানিং হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অভিযুক্তকে গ্রেফতার করার  পর  দুষ্কৃতীরা  যেভাবে প্রকাশ্যে হুমকি দিয়ে গুলি চালালো তাতে ভয়ে আতঙ্কে শিটিয়ে আছে  নাবালিকার পরিবার। আতঙ্কিত গ্রামবাসীরা । নিগৃহীতার দাদাকেও তুলে নিয়ে গিয়ে মারধর করা হয় বলে অভিযোগ। এখনও এলাকা উত্তপ্ত ।