স্বাধীনতা সংগ্রামীদের বলিদানের বদলে ইংরেজদের হাত থেকে দেশ স্বাধীন হয়েছ। তবে এখনও দেশ ভাষা, সংস্কৃতি ও বেশ ভুষার গোলামী থেকে মুক্ত হতে পারেনি। উদাহরণ স্বরূপ আজও ভারতের প্রশাসনিক কাজ ইংরাজি ভাষাতে হয়। বিশ্বের যে কোনো দেশ তার উপর শাসন করা শক্তির প্রভাবকে উপড়ে ফেলে। তবে ভারত আজও তার পূর্ন স্বাধীনতা গ্রহণ করতে পারেনি। এর মূলত দুটি কারণ এক, ভুল ইতিহাস পড়ার কারণে মানুষের মনে তৈরী হওয়া ভুল ধারণ। দ্বিতীয় সরকারের সদিচ্ছার অভাব। তবে ভুল ইতিহাস পড়ার পেছনেও সরকারের সদিচ্ছার অভাব রয়েছে। কারণ ভারত সরকার দীর্ঘদিন ধরে ইংরেজদের তৈরি মিথ্যা ইতিহাসের শিকড়কে কাটতে সক্ষম হয়নি। অবশ্য বিগত কিছু বছর ধরে ভারতীয়দের সচেতনা যেন তীব্র গতিতে বৃদ্ধি পাচ্ছে।

সরকারের নেওয়ার বড়ো বড়ো পদক্ষেপের সাথে দেশের জনগণও তাদের দাবি তীব্র করতে শুরু করেছে। এখন দেশের সংস্কৃতি সংক্রান্ত একটা বড়ো খবর সামনে আসছে। খবর এই যে, প্রজাতন্ত্র দিবসের প্যারেডে ইংরেজি গীতের পরিবর্তে এবার বন্দেমতারম (Vande Mataram) বাজবে। বিদেশী গীত সরিয়ে স্বদেশী গীত আনার বিষয়টিকে বেশ ঐতিহাসিক হিসেবে ধরা হচ্ছে।

প্রজাতন্ত্র দিবস উপলক্ষে তিন দিনব্যাপী অনুষ্ঠানের শেষ দিনে বিজয় চকে অনুষ্ঠিত বিট রিট্রিট অনুষ্ঠানে পরিবর্তনের খবর রয়েছে। বলা হচ্ছে মারধর Beating Retreat অনুষ্ঠানটি ‘বন্দে মাতরম’ সুর দিয়ে শেষ হবে। তার আগে, অনুষ্ঠানটি মহাত্মা গান্ধীর প্রিয় খ্রিস্টান সংগীত ‘অ্যাবাইড উইথ মি’ দিয়ে শেষ করা হতো যা স্কটিশ হেনরি ফ্রান্সিস লাইট লিখেছিলেন।তবে এবার ইতিহাস পরিবর্তন হতে চলেছে।

বঙ্কিমচন্দ্র চ্যাটার্জীর লেখা বন্দে মাতরম’ গীত Beating Retreat অনুষ্ঠানে বাজবে। স্বদেশীযুগে দেশের বিপ্লবীদের মধ্যে জোশ এনে দিত বঙ্কিমচন্দ্রের লেখা এই ঐশ্বরিক গীত। আর এবার দেশের সেনা ও জনগণের মধ্যে জোশ আনবে এই সংগীত।