fbpx
নতুন খবরপশ্চিমবঙ্গরাজনৈতিক

বিজেপির সাথেই আছেন সব্যসাচী অপেক্ষা সঠিক সময়ের, ভোটের আগে বোমা ফাটালেন মুকুল রায়।

লোকসভা ভোটের দোরগোড়াতেও দল ছাড়ার রীতি অব্যাহত৷ প্রায় দেড় বছর থেকে তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেওয়ার যে নিয়ম চালু হয়েছে তা এখনও বর্তমান৷ দলের সহযোগিতা না পেয়ে যেমন প্রাক্তন মেয়র ও মন্ত্রী তৃণমূল ত্যাগ করেছিলেন তেমনি লোকসভা ভোটের টিকিট না পেয়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন প্রাক্তন সাংসদ অর্জুন সিং৷ বলা ভালো মুকুল রায়ের আদর্শেই মাথা নোয়াচ্ছেন তৃণমূলের প্রাক্তনরা৷ ভোটের আগে যে বিজেপিতে প্রবেশের সংখ্যা আরও বাড়ছে তা বোঝা গিয়েছিল অনেক আগেই৷ তবে ভোটের আগে ফেরও যে বিজেপিতে তৃণমূলের এক তাঁবড় নেতা আসতে চলেছেন তাঁর প্রমান দিলেন রাজ্য বিজেপির নেতৃত্ব মুকুল রায়৷ জলপাইগুড়ির সাংবাদিক বৈঠকে বিধাননগরের মেয়র সব্যসাচী দত্তের বিজেপিতে যোগ দেওয়ার প্রসঙ্গ টেনে আনেন মুকুল রায়৷ সেখানে তিনি সব্যসাচী দত্তের দলে যোগ দেওয়া নিয়ে এক ধাপ এগিয়ে বলেন, তিনি বিজেপির সঙ্গেই আছেন৷

তবে মুকুলের এই তৎপরতা নিয়ে বেশ জল্পনা শুরু হয়েছে রাজ্যের রাজনৈতিক দলীয় অন্দরে৷ কারণ, এর আগে সব্যসাচী দত্তের বাড়িতে নৈশভোজে মুকুলের লুচি- আলুরদম খাওয়া নিয়ে কম বিতর্ক হয়নি৷ তখন মন্ত্রী ও মেয়র ফিরহাদ হাকিম সব্যসাচী দত্ত তাঁদেরই পাশে আছেন বলেছিলেন৷ এমনকি সব্যসাচী দত্তকেও বলতে শোনা গিয়েছিল তিনি নাকি তৃণমূলের পাশেই আছে, ছিলেন ও থাকবেন৷ ব্যাস এরপরই জল্পনা আরও দ্বিগুণ হতে থাকে৷ তাহলে কি তিনি দোটানায় পড়েছেন, নাকি শাসকদলেই আছেন, এই নিয়ে প্রশ্ন উঠতে থাকে৷ অন্যদিকে তৃণমূলের দল ভাঙানোর অভিযোগে অভিযুক্ত মুকুল রায়ও তো ছাড়ার পাত্র নন৷ তিনি আবার জলপাইগুড়ির ওই সাংবাদিক বৈঠকে সব্যসাচী দত্তের বিজেপিকে সাপোর্ট নিয়ে বলেছেন তিনি বিজেপির পাশে আছেন, দেশের পাশে আছে ও গণতন্ত্রের পাশে আছেন৷ পাশাপাশি, বিজেপির জয়ে সম্পর্কে একশো শতাংশ নিশ্চিত মুকুল রায় এদিন জানান রাজ্যের শাসক দলের শীর্ষ নেতারাও তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ রাখছেন৷

যদিও এই দাবি মুকুলের নতুন নয়৷ এর আগে পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের নাম করে তিনি জানিয়েছিলেন দলবদল নিয়ে নাকি তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ রাখছেন তিনি৷ একইসঙ্গে এদিন বিজেপির সাফল্য নিয়ে রাজ্যে সরকারের বিতাড়িত হওয়ার প্রসঙ্গও টেনে আনেন মুকুল রায়৷ দলকে দোকানের সঙ্গে তুলনা করে যে দোকানে বেশি বিক্রি সেই দোকানে বেশি ভিড় বলেও সরাসরি ঘোষনা করেন তিনি৷ এর থেকে বেশি কিছু না বললেও বিতর্ক শুরু হয়েছে শাসক দলের বিরোধীদের মধ্যে৷ তাহলে কি ভোটের আগে আরও একজনকে হারাচ্ছে তৃণমূল, তা যদিও এখনও স্পষ্ট্য নয়৷ তবে সব্যসাচী দত্ত নিয়ে বিজেপি বিতর্ক কম নেই৷ কারণ, সব্যসাচীকে যে ব্যাপক ভাবে বিজেপি চাইছে তা বোঝাই গেছে প্রার্থী ঘোষনার পরই৷ তৃণমূলের পক্ষ থেকে বারাসাতের প্রার্থী করা হলেও এখনও অবধি বিজেপি কিন্তু প্রার্থী করতে চাইছে সব্যসাচী দত্তকে৷ তবে প্রকাশ্যে এভাবে মুকুলের সব্যসাচী প্রসঙ্গ কিন্তু অন্য চোখে দেখছেন বিরোধীরা৷

তিনি নাকি সব্যসাচীর নাম বলে তৃণ অন্দরে সন্দেহের বাতাবরন তৈরি করতে চাইছে বলে মত প্রকাশ করেছেন অনেকেই৷ তবে সত্যি কি সব্যসাচী দলে যোগ দিচ্ছেন তা কিন্তু এখনও পরখ করে বলতে পারছেন না কেউই৷ তবে সব্যসাচী বিজেপিতে যোগদান করুক আর না করুক এই মুহূর্তে সব্যসাচী প্রসঙ্গ নিয়ে যে রাজ্যের শাসক দল এবং বিজেপির মধ্যে বেশ ঠান্ডা লড়াই চলছে সেটা বলাই বাহুল্য।

Open

Close