Connect with us

খেলাধূলা

রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক অভিযোগ তুলে পুরস্কার ফেরাচ্ছেন অ্য‍থলিট। ধিক্কার! তৃণমূল কংগ্রেস!

Published

on

এই মুহূর্তে রাজ্য সরকারের প্রবল দ্বৈরথ চলছে সিবিআই এর সাথে। আর এই সবের মাঝেই ফের চাপে পড়ে গেল রাজ্য সরকার। এবার রাজ্য সরকারের বিড়ম্বনা বাড়ালেন  ক্রীড়াবিদ তিনি হলেন ছায়া আদক।

রাজ্য সরকার উদাসীন খেলা এবং খেলোয়াড়দের প্রতি, আর এর ফলেই দিনের পর দিন সর্বভারতীয় র্যাঙ্কিংয়ে থেকে পিছিয়ে যাচ্ছে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য। এরই প্রতিবাদস্বরূপ ছায়া আদক রাজ্য সরকারের কাছ থেকে পাওয়া বাংলার গৌরব পুরস্কারটি ফিরিয়ে দিতে চলেছেন।

এইদিন সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে শুটিং এবং ভারোত্তোলনে অর্জুন পুরস্কার পাওয়া ছায়া আদক জানিয়েছেন যে, আমি আমার সিদ্ধান্তের ব্যাপারে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কে একটি ই মেল করে জানিয়েছি। উনি আরও জানিয়েছেন উনি এইদিন বলেন যে, রাজ্য সরকার যে কোনো সময়ে তাদের প্রতিনিধি পাঠিয়ে “বাংলার গৌরব পুরস্কার” এবং সম্মানিত ১ লক্ষ্য টাকা ফিরিয়ে নিয়ে যাক। শুধুমাত্র উনি একাই নন উনার সাথে আরও বেশ কয়েকজন তাদের পুরস্কার ফিরিয়ে দিতে চেয়েছেন বলেই খবর।

ছায়া আদক এবং আরো বিভিন্ন খেলোয়াড়দের অভিযোগ যে রাজ্য সরকার ক্লাবগুলির অনুদানের জন্য যে সমস্ত টাকা ব্যয় করেন তার বিন্দুমাত্র যদি রাজ্যের খেলোয়াড়দের উন্নয়নের স্বার্থে দেয় তাহলে খুব সুবিধা হত খেলোয়াড়দের। কিন্তু রাজ্য সরকার সেটা করছে না রাজ্য সরকার যাবতীয় টাকা রাজ্যের ক্লাব গুলি কে দিচ্ছেন আর এই অভিযোগের ভিত্তিতে ওনারা “বাংলার গৌরব পুরস্কার” ফিরিয়ে দিতে চাইছেন।
রাজনৈতিক মহলের মতে এটা রাজ্য সরকারের চরমতম লজ্জার বিষয়। রাজ্যের খেলোয়াড়রা যেখানে পুরস্কার ফিরিয়ে দেন সেখানে রাজ্য সরকার সত্যি লজ্জিত।
#অগ্নিপুত্র

Continue Reading

খেলাধূলা

ধোনির দূর্গে অনন্য রেকর্ড গড়লেন অধিনায়ক বিরাট কোহলি। ভারতীয় অধিনায়ক হিসেবে এই রেকর্ড গড়ে নজির তৈরি করলেন উনি।

Published

on

বিশ্বকাপ একেবারে দোর গোড়ায় কড়া নাড়ছে। বিশ্বকাপ জিততে এখন মরিয়া ভারতে। বিশ্বকাপ যাতে হাতছাড়া না হয় তার জন্য বিদেশে গিয়ে একসঙ্গে থেকেও না থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন অধিনায়ক কোহলি ও অনুষ্কা শর্মা। কিন্তু তার আগেই দেশের জন্য বড় সুখবর নিয়ে এলেন ভারতের বাইশ গজের অধিনায়ক বিরাট কোহলি। ধোনির রাজ্যেই ভারত- অস্ট্রেলিয়া ওডিআই সিরিজে কোহলির জয়, বিশ্বকাপটা ভারতের জন্য কত ভালো হতে চলেছে তার প্রমান দিল। যদিও প্রথমটা এতটাও সহজ ছিল না। কারণ, সিরিজ জয়ের লক্ষ্যে নেমে ভারতের ব্যাটিং বিপর্যয় হয়েছিল। কিন্তু তাতে কি, বিরাট কোহলি যেখানে আছেন সেখানে আবার চিন্তা কি। হিমালয়ের মতো দাঁড়িয়ে যুদ্ধ জয় করলেন বিরাট।

একাই হাল ধরে মাত্র কয়েক মিনিটের মধ্যে এক অন্য যাদু দেখাল ভারত। মাত্র 95 বলে 123 রান করে এক অনন্য রেকর্ড করলেন বিরাট। দলের রান শূন্য থেকে সেঞ্চুরি এ যেন প্রাচীন কাল থেকে আধুনিক যুগে পদার্পন। যদিও এই যুদ্ধে মাত্র কয়েক মিনিটের ব্যবধান। আর সেঞ্চুরি করেই ভারতের ব্যাটিং মাত্রা ছুঁয়ে গেল অন্য জায়গায়। অপ্রতিরোধ্য অষ্ট্রেলিয়া যে এভাবে মাটিতে মিশবে তা বুঝতে পারেনি কেউ। যদিও প্রথমে অজি বাহিনীর 315 রানের জবাব দিতে দিতে মাত্র 15 রানে উইকেট হারিয়েছিল ভারত। কিন্তু তারপর বিরাট যে কেরামতি দেখালেন তাতে আর নতুন কিছু বলার নেই।

তবে বিরাটের রেকর্ডে খুশি ক্রিকেট মহল। যদিও এটাই ধোনির শেষ আন্তর্জাতিক ম্যাচ ছিল নিজের রাজ্যে, কিন্তু সেখানে দাগ কেটে গেলেন বিরাট। ধোনির রাজ্যের কাছে কিছুটা কষ্টের হলেও দেশের জন্য সেটা দারুন সুখবর। আর এই সেঞ্চুরি করেই বিরাট দেশের চার নম্বর ক্যাপ্টেন যিনি 4000 রানের পাহাড় গড়েছেন। পাশাপাশি ক্রিকেট কেরিয়ারে 41 তম সেঞ্চুরির সম্মানও থাকল তাঁর ঝুলিতে।

কিন্তু এত কিছুর মধ্যেও এটাই দুঃখ ভারতীয় ক্রিকেট প্রেমীদের যে এই ম্যাচ টি অসাধারণ খেলার সত্বেও পরাজিত হতে হলো ভারতীয় ক্রিকেট দলকে। বিরাটের এই এত সুন্দর একটা ইনিংস ক্রিকেট প্রেমীদের সেই দুঃখে কিছুটা হলেও আনন্দ দিয়েছিল।

Continue Reading

আন্তর্জাতিক

এবার পাকিস্তানের প্রাপ্তন অধিনায়ক করলেন বিরাট কোহলির প্রশংসা। জেনে নিন উনি ঠিক কি বললেন বিরাট কোহলির ব্যাপারে।

Published

on

অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে টেস্ট সিরিজ শুরু হবার আগে বিরাট কোহলি সম্পর্কে অনেকেই অনেক মতবাদ করেছিলেন। পিছিয়ে ছিলেন না পাকিস্তানের প্লেয়াররাও। পাকিস্তানের প্রাক্তন অধিনায়ক ওয়াসিম আক্রম বলেছিলেন যে এই অস্ট্রেলিয়া সিরিজই হচ্ছে বিরাট কোহলির ক্যাপ্টেনের এবং প্লেয়ার হিসাবে আসল পরীক্ষা। এই সিরিজেই নির্ধারণ করে দেবে বিরাট কোহলি আসলে কোন লেভেলের প্লেয়ার এবং ক্যাপ্টেন হিসেবে কতটা দক্ষ। আর এবার সিরিজ জয়ের পর ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলির প্রশংসায় পঞ্চমুখ প্রাক্তন পাক অধিনায়ক ওয়াসিম আক্রম।

সিরিজ শুরু হওয়ার আগে ওয়াসিম আক্রম বলেছিলেন যে এটাই বিরাট কোহলির নিজেকে সেরা প্রমাণ করার শ্রেষ্ঠ মঞ্চ। এই সময় অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেট দলটি অতটা অভিজ্ঞ নয় যতটা তারা পূর্বে ছিল। তাই এই সময় পুরো শক্তি নিয়ে অস্ট্রেলিয়া দলের উপর ঝাপিয়ে পড়ে তাদের বিরুদ্ধে জয় ছিনিয়ে নেওয়ার বিরাট কোহলি আসল উদ্দেশ্য। এবং বিরাট কোহলি সেটাই করে দেখালেন। প্রথম ভারতীয় তথা এশিয়ার কোনো অধিনায়ক হিসাবে সিরিজ জিতলেন অস্ট্রেলিয়াতে।

আর এরপরই পুরোপুরি ভাবে বিরাট কোহলি প্রশংসায় ডুবে যান প্রাক্তন পাকিস্তানি অধিনায়ক ওয়াসিম আক্রম।উনি বিরাট কোহলির প্রশংসা করে জানিয়েছেন যে ভারত পুরো টিম হিসাবে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে খেলেছে এবং সেই দলের যোগ্য নেতৃত্ব দিয়েছেন বিরাট কোহলি। আমার মতে বিরাট কোহলি এত সুন্দর নেতৃত্বই ভারতকে অস্ট্রেলিয়া বিরুদ্ধে জয়ের পথ সুগম করে দিয়েছে এবং এর ফলে ভারতীয় ক্রিকেটের ভিত আরো মজবুত হয়ে গেল।

এছাড়াও পাকিস্তানের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী তথা পূর্ব পাকিস্তানি প্লেয়ার ইমরান খানও বিরাট কোহলি এবং ইন্ডিয়া টিমের যথেষ্ট প্রশংসা করেছেন। তিনি বলেছেন যে যে কোন এশিয়া দল হিসেবে অস্ট্রেলিয়া গিয়ে তাদের মাটিতে সিরিজ জয় ঐতিহাসিক। এবং এর জন্য বিরাট কোহলির অনবদ্য নেতৃত্বের প্রশংসা শোনা যায় তার মুখে।
#অগ্নিপুত্র

Continue Reading

খেলাধূলা

মহিলাদের অসম্মান করে মন্তব্য! এবার কেরিয়ার শেষ হয়ে যেতে চলেছে এই ভারতীয় ক্রিকেটারের।

Published

on

বলিউডের পরিচালক করন জোহর তার নিজস্ব “শো কফি উইথ জোরন’ এর শোতে আমন্ত্রণ পেয়ে ভারতীয় ক্রিকেট তারকা হার্দিক পান্ডিয়া এবং অপর এক ওপেনার ব্যাটসম্যান কে.এল.রাহুল সেখানে আসেন। সেই শো এ তারা করণ জোহরের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দিতে দিতে একটা প্রশ্নের উত্তরে হেফাঁস মন্তব্য করে বসেন।

হার্দিক পান্ডিয়া কে প্রশ্ন করা হয় নাইট ক্লাবে গিয়ে তিনি কেন সেখানকার মেয়েদের নাম জিজ্ঞেস করে আসেন না। এর প্রতিউত্তরে হার্দিক পান্ডিয়া বলেন যে আমি কালো তাই আমি বিশেষত মেয়েদের ফিগারের দিকে নজর দি। তাদের নামের উপর আমার কোন আকর্ষন নেই। এছাড়াও তিনি তার একাধিক অবৈধ সম্পর্কের ব্যাপারেও খুল্লামখুল্লা বলেন। এছাড়াও এইদিন তাকে বলতে শোনা যায় যে আমার কাছে সেক্স করাটা কোন ব্যাপার নাই, আমি নির্দ্বিধায় বলে দিতে পারি যে “আজ মেনে কারকে আয়া” অর্থাৎ আজ উনি সেক্স করে এসেছেন। উনি জানিয়েছেন যে আমি একসাথে অনেক মহিলার সাথে ফ্লার্ট করি।

এই শোটি টিভিতে টেলিকাস্ট হওয়ার পরেই দেখা যায় যে হার্দিক পান্ডিয়া মহিলাদের নিয়ে অনেক অসম্মানিক মন্তব্য করেছেন। আর এরপরই সোশ্যাল মিডিয়ায় ঝড় উঠে বিভিন্ন মহল থেকে হার্দিক পান্ডিয়া কে কটাক্ষ করেন সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারকারী।

এই ঘটনার পরে এই বিষয়কে কন্ট্রোল করার জন্য হস্তক্ষেপ করতে বাধ্য হয় বিসিসিআই। বোর্ডের তরফে হার্দিক পান্ডিয়া এবং কে.এল.রাহুল জনকে শোকজ এর কার্ড ধরিয়ে দেয়া হয়েছে। এবং কেন তারা এমন মন্তব্য করলেন এই ব্যাপারে উপযুক্ত জবাব জানতে চওয়া হয়েছে 24 ঘন্টার মধ্যে। এর ফলে নিচের ইনস্টাগ্রাম প্রোফাইল ক্ষমা চেয়ে নিয়েছেন হার্দিক পান্ডিয়া। কিন্তু বিতর্ক এখনই থেমে যাচ্ছে না। এবার দেখার বিষয় এই প্রভাব তাদের কেরিয়ারে কতটা পরে।

#অগ্নিপুত্র

Continue Reading

Trending