দিদির সাধের মিষ্টি হাব হতে চলেছে সুলভ শৌচালয়

দূরপাল্লার বাসযাত্রীদের সুবিধার্থে দক্ষিণবঙ্গ রাষ্ট্রীয় পরিবহণ সংস্থা(এসবিএসটিসি) শক্তিগড় সংলগ্ন মিষ্টিহাবে সুলভ শৌচালয় করার পরিকল্পনা নিয়েছে বলে জানালেন সংস্থার চেয়ারম্যান কর্ণেল দীপ্তাংশু চৌধুরী। রবিবার দুর্গাপুরের সিটি সেন্টারের দক্ষিণবঙ্গ রাষ্ট্রীয় পরিবহণ সংস্থার বাস স্ট্যান্ডে ইনফরমেশন কিয়স্কের উদ্ধোধন অনুষ্ঠানে এসে একথা জানান কর্ণেল দীপ্তাংশু চৌধুরী। এদিনের উদ্ধোধনী অনুষ্ঠানে কর্ণেল দীপ্তাংশু চৌধুরী ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন দুর্গাপুরের মেয়র দিলীপ অগস্থি, এসবিএসটিসির ম্যানেজিং ডিরেক্টর গোদালা কিরণ কুমার সহ বিশিষ্ট ব্যক্তিত্বরা। এই ইনফরমেশন কিয়স্ক থেকে এসবিএসটিসি বাসের অগ্রিম টিকিট বুক করা যাবে। রাজ্যের ৩৮ টি জায়গায় এসবিএসটিসি অগ্রিম টিকিট বুকিংয়ের কিয়স্ক বসাচ্ছে বলে জানা গেছে।

এদিনের অনুষ্ঠানে কর্ণেল দীপ্তাংশু চৌধুরী জানান, এসবিএসটিসি যাত্রীদের সুবিধার্থে বর্ধমানের মিষ্টিহাবে সুলভ শৌচালয় করার পরিকল্পনা নিয়েছে। মিষ্টিহাবে পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন সুলভ শৌচালয় করা হলে সেখানে এসবিএসটিসি সহ জাতীয় সড়ক ধরে চলা অন্যান্য দূরপাল্লার বাসগুলি যাত্রীদের প্রয়োজনে শৌচালয় ব্যবহারের জন্য থামবে। এর ফলে মিষ্টিহাবে মানুষজনের যাতায়াত বাড়বে। তখন এখানে দোকান নেওয়া ব্যবসায়ীরা তাঁদের দোকান চালু করতে পারবেন। মিষ্টি হাবের উদ্বোধনের পর কয়েকটি দোকান চালু হলেও ক্রেতার অভাবে দোকানগুলি বন্ধ করে দেন ব্যবসায়ীরা।

উল্লেখ্য, ২০১৭ সালের ৭ এপ্রিল আসানসোল থেকে মুখ্যমন্ত্রী বর্ধমানের ২নং জাতীয় সড়কের উপর বাম বটতলা এলাকায় উদ্বোধন করেন তাঁর স্বপ্নের প্রকল্প মিষ্টি হাব। বর্ধমানের খ্যাতনামা ল্যাংচা, সিতাভোগ, মিহিদানা প্রভৃতি বিবিধ মিষ্টির পাশাপাশি অন্যান্য জেলার মিষ্টিকেও এই হাব থেকে বিক্রির উদ্যোগ নেওয়া হয়। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রীর উদ্বোধনের পরই মুখ থুবড়ে পড়ে গোটা প্রকল্প। দফায় দফায় নানাভাবে এই মিষ্টি হাব চালুর উদ্যোগ নিলেও কোনো সুফল মেলেনি।