fbpx
দেশনতুন খবরভারতীয় সেনামতামত

বড় খবর! কাশ্মীরে শুরু হল সেনাবাহিনী বিশেষ অভিযান: ” অপারেশন-২৫”

পুলওয়ামার সেনা জাওয়ানদের উপর এইভাবে জঙ্গি হামলার পর থেকে দেশজুড়ে জ্বলছে প্রতিশোধের আগুন। আর দিনের পর দিন সেই প্রতিশোধের আগুন আরও জোড়ালো হচ্ছে। দেশের মানুষ যেকোনো মূল্যে সেনা জওয়ানদের মৃত্যুর বদলা চাই। আর সেই জন্য এই মুহূর্তে সেনা জাওয়ানরা একটি বড় চ্যালেঞ্জ নিয়েছেন। তাদের চ্যালেঞ্জ পুলওয়ামার ঘটনার মাস্টারমাইন্ড গাজী রশিদ কে তাড়াতাড়ি ধরা এবং তাকে উপযুক্ত শাস্তি দেওয়া। এই গাজী রাশেদ জঙ্গীদের ট্রেনিং দিয়ে তৈরি করে ভারতের বিরুদ্ধে হামলা করার জন্য। এই মুহূর্তে সেনা জওয়ানরা জানিয়েছেন যে বিস্ফোরণ ঘটার পরে সঙ্গে সঙ্গে গোটা এলাকাটি কে ভালোভাবে ঘিরে ফেলা হয়েছে এর ফলে গাজী রশিদ এখন এই পুলওয়ামাতেই রয়েছে, সেখান থেকে ২৫ কিলোমিটারের বেশি যেতে পারেনি। এই মুহূর্তে সেই স্থানে রয়েছে এবং অপেক্ষা করছে কখন সেনা তাদের তল্লাশি হালকা করে এবং সে সেখান থেকে পালাতে পারে। আর তাকে ধরবার জন্য এই মুহূর্তে সেনা জওয়ানদের নতুন চ্যালেঞ্জ “অপারেশন ২৫”।

এছাড়াও এই মুহূর্তে কাশ্মীর পুলিশ এবং সেনাবাহিনী আরো একটি বিশেষ প্রক্রিয়া শুরু করেছেন। তারা এখন জঙ্গী ছাড়াও আরো নানান দিকে নজর রাখছে, জানা গিয়েছে যে কাশ্মীর পুলিশ এবং সেনাবাহিনীর একটি বিশেষ টিম এই মুহূর্তে কাশ্মীরি এলাকার বিভিন্ন যুবক-যুবতী এবং মহিলাদের প্রতি নজর রাখছেন। যারা জঙ্গিদের বিভিন্ন ভাবে সাহায্য করেছে এবং ভারতীয় সেনাবাহিনীর বিভিন্ন তথ্য তুলে দিয়েছে তাদেরকে চিহ্নিত করার প্রক্রিয়া শুরু করেছে এবং তাদেরকে চিহ্নিত করে তাদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছে ভারতীয় সেনাবাহিনী।

পুলিশ এবং সেনাবাহিনীর একটি বিশেষ টিম বিশেষ করে প্রাক্তন কয়েকজন কর্মীকে নিয়ে একটি টিম তৈরি করা হয়েছে। তারা বেছে বেছে কয়েকটি গ্রাম কে চিহ্নিত করেছেন এবং সেই গ্রামগুলির প্রতিটি মানুষের ব্যাংকের খাতা, কর্মস্থল এবং তাদের মোবাইল এর প্রতিটি জিনিস খুঁটিয়ে খুঁটিয়ে দেখছে যাতে তারা কোন ভাবে জঙ্গি সংগঠনের সাথে যুক্ত নাকি সেটা জানা যায়। এছাড়াও কাশ্মীর পুলিশ মনে করছেন এই জঙ্গি সংগঠনের মূল চালিকা শক্তি হচ্ছে এই সকল লোকাল নেটওয়ার্ক, এদেরকে ধরে ফেলতে পারলেই মূল মাথাটিকে তাড়াতাড়ি বের করা যাবে এবং উপযুক্ত শাস্তি দেওয়া হবে। এই জন্য এই মুহূর্তে খুব সক্রিয় হয়ে উঠেছে ভারতীয় সেনাবাহিনী সহ কাশ্মীর পুলিশের আধিকারিকরা।
#অগ্নিপুত্র

Open

Close