fbpx
দেশভারতীয় সেনা

দেশের সুরক্ষায় বড় সিদ্ধান্ত! সেনার হাতে আসতে চলেছে একে-২০৩ রাইফেল, মিনিটে ছুটবে ৬০০ গুলি।

দেশের সেনাদের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করতে ইতিমধ্যেই আমেরিকা থেকে সবথেকে দামী ও লড়াকু বিমান কিনতে চলেছে ভারত। ভারতীয় সেনা জওয়ান ও প্রশাসনের যৌথ সাক্ষাতে সিদ্ধান্ত হওয়ার পর আমেরিকায় সেই বিমান কেনার বিষয়ে আবেদন পত্রও পাঠিয়েছে। তবে ফেরও ভারতীয় সেনাদের লড়াই করার জন্য এক বিশেষ হাতিয়ার এনে দিতে চলেছে ভারত সরকার। শোনা যাচ্ছে, ভারত নাকি তৈরি করতে চলেছে নতুন অ্যাসল্ট রাইফেল। যদিও রুশ অস্ত্র নির্মাতা সংস্থাই সেটি বানাবে। কিন্তু ভারতের মাটিতেই সেটি বানানো হবে। সঙ্গে এও জানা গিয়েছে অমেঠির একটি অস্ত্র কারখানায় ওই রাইফেল তৈরি করা হবে। রুশ অস্ত্র নির্মাতা কালাশনিকভ ওই রাইফেল তৈরি করার পর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী উদ্বোধন করবেন বলে জানা গিয়েছে। সবথেকে বড় সুখবর হল কালাশনিকভ নাকি একে-২০৩ রাইফেল তৈরি করবে। যেটি মিনিটে ছশো রাউন্ড গুলি ছুঁড়তে সক্ষম হবে।

যদিও এটি কোনো নতুন খবর নয়, কারণ, গত বছর এপ্রিলে ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রী নির্মলা সীতারমনের সঙ্গে রুশ অস্ত্র নির্মাতা সংস্থা কালাশনিকভের একটি চুক্তি হয় আর সেখানেই স্থির হয় ভারতীয় সেনাবাহিনীর জন্য সাড়ে সাতশো হাজার একে-২০৩ রাইফেল তৈরি করার কথা। যেটি সবথেকে শক্তিশালী হবে বলেও জানা গিয়েছে। যদিও কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক এর আগে দেশের সেনা জওয়ানদের লড়াই করার জন্য বিশেষ প্রযুক্তি সম্পন্ন সিগ সাওয়ার অ্যাসল্ট রাইফেল কেনার চুক্তি করেছিল আমেরিকার সঙ্গে। আসলে দেশের জওয়ান যেভাবে সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে লড়াই করছে তাতে তাঁদের কাছে সেই তুলনায় শক্তিশালী হাতিয়ার নেই। আর এবার এরসঙ্গে যুক্ত হচ্ছে একে-২০৩ রাইফেল। যা ভারতীয় সেনাদের কাছে বিরাট পাওয়া। একে-২০৩ রাইফেল গুলি দুই ভাবে ব্যবহার করা যায়। একটি লম্বা আর একটি ভাঁজ করে।  এই রাইফেলের সঙ্গে থাকবে উন্নত টেলিস্কোপ। পাশাপাশি একসঙ্গে দুটি স্ট্যান্ডও থাকবে যাতে দাঁড় করানো সম্ভব হয়।

এই নতুন রাইফেলের খবর পাওয়া মাত্রই স্বস্তির নিঃশ্বাস পড়েছে ভারতীয় জওয়ানদের কাছে। এতদিন ভারতের উন্নত প্রযুক্তি সম্পন্ন রাইফেল বা বিমান না থাকায় ভারতীয় সেনাদের পুরানো প্রযুক্তির বিমান ও রাইফেলকে যুদ্ধের কাজে লাগাতে হত। এর ফলে সেনা জওয়ানদের অনেক ঝুঁকি থেকে যেত। কিন্তু বালাকোট হামলার পর দেশের প্রশাসনের বলা যায় হুঁশ ফিরেছে। এরপরই আমেরিকা থেকে লড়াকু বিমান ও দেশের মাটিতে শক্তিশালী রাইফেল তৈরির সিদ্ধান্ত নিয়েছে দেশের সরকার। একদিকে একে-২০৩ অ্যাসল্ট পাওয়ার রাইফেল অন্যদিকে আমেরিকার দামি বিমান দুই-ই যে পাকিস্থানের যেকোনো জেট ফাইটারকে হারিয়ে দেবে তা বোঝাই যাচ্ছে। তবে ভারতের তড়িঘড়ি এই দুই সিদ্ধান্ত কি তাহলে কোনো বড় যুদ্ধ সৃষ্টির ইঙ্গিত দিচ্ছে, তা জানতে মরিয়া দেশবাসী।

আর মোদী সরকার এই সিদ্ধান্তের জন্য কেন্দ্রীয় সরকারকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন সেনাপ্রধান বিপিন রাওয়াত। কারণ উনি জানেন এই সময় এরকম শক্তিশালী অস্ত্রের কতটা প্রয়োজন এবং এই অস্ত্র থাকলে যুদ্ধে সহজেই সাফল্য পাওয়া যায় বলেও তিনি মনে করেন। আর এ অস্ত্র যদি একবার ভারতের হাতে চলে আসে তাহলে পৃথিবীর শক্তিশালী দেশ গুলিও ভারতের সাথে যুদ্ধ করার অন্তত দশ বার ভাববে।

Open

Close